ধোনি আর কোহলির মধ্যে একে সেরা অধিনায়ক বাছলেন এস শ্রীসন্থ 1

ভারতীয় দলের বিতর্কিত জোরে বোলার এস শ্রীসন্থ এমএস ধোনির নেতৃত্বে খেলেছেন এবং দেশের হয়ে সুনামও অর্জন করেছেন। শ্রীসন্থ ২০০৭ টি-২০ বিশ্বকাপ এবং ২০১১ বিশ্বকাপ জয়ী ভারতীয় দলেরও অংশ ছিলেন। এমএস ধোনি অতীতে একবার বলেছিলেন যে শ্রীসন্থ রিভার্স সুইং করানোর ক্ষেত্রে অন্যতম সেরা বোলার। এর বিপরীতে ২০১১ বিশ্বকাপে ধোনি কীভাবে সবকিছু ম্যানেজ করেছেন।

শ্রীসন্থকে অন্যতম সেরা রিভার্স সুইং বোলার বলেছিলেন ধোনি

ধোনি আর কোহলির মধ্যে একে সেরা অধিনায়ক বাছলেন এস শ্রীসন্থ 2

এমএস ধোনি অনেকটাই পেছিয়ে পড়া রাজ্য ঝাড়খন্ডের রাঁচি শহর থেকে এসেছেন এবং দারুণভাবে সফল হয়েছিলেন। সেই সঙ্গে তিনি অন্যতম সেরা অধিনায়কও থেকেছেন এবং সমস্ত আইসিসি ট্রফি জিতেছেন। তার এই সাফল্য তাকে ক্রিকেট সার্কিটের অন্যতম প্রভাবশালী ব্যক্তিও করে তুলেছে কিন্তু তিনি এমনটা ছিলেন না যখন তিনি তার কেরিয়ার শুরু করেন। অন্যদিকে বিরাট কোহলি টেস্ট ক্রিকেটে ভারতের অন্যতম সফল অধিনায়ক। বিরাটের অধিনায়কত্বে গত কয়েক বছর ধরে ভারতীয় দল ধারাবাহিকভাবে ভালো প্রদর্শন করে চলেছে। ক্রিকেট অ্যাডিকটরের সঙ্গে একটি এক্সক্লিউসিভ ইন্টারভিউতে যখন শ্রীসন্থকে সেরা অধিনায়ক বাছার কথা বলা হয় তো তিনি এই দুজনের মধ্যে থেকে সময় নষ্ট না করে এমএস ধোনিকে সেরা হিসেবে বেছে নেন।

নিজের অবসর নিয়ে এখনো পর্যন্ত মুখ খোলেননি ধোনি

ধোনি আর কোহলির মধ্যে একে সেরা অধিনায়ক বাছলেন এস শ্রীসন্থ 3

এমএস ধোনির ক্রিকেটের ব্যাপারে যথেষ্ট ভালো ম্যাচ রিডিং ক্ষমতা রয়েছে। তিনি তার দলের শক্তিকে খুব ভালো করে জানেন এবং সেই অনুযায়ী তিনি তার খেলোয়াড়দেরও সমর্থন করতেন। অধিনায়ক থাকাকালীন কোনো অপ্রয়োজনীয় সিদ্ধান্ত নিতেন না এবং নিজের শান্তভাব বজায় রাখতেন। এই গুনগুলির কারণেই ধোনি ক্রিকেট জগতের সবচেয়ে শান্ত এবং গোছানো চরিত্র থেকেছেন ক্রিকেট জগতের। যদিও এই মুহূর্তে এমএস ধোনির ভবিষ্যত নিয়ে ক্রিকেট জগতে বেশকিছু প্রশ্ন উঠছে। ধোনি ২০১৯ বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ডের সেমিফাইনালের পর থেকে এখনো পর্যন্ত কোনো আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেননি, সেই সঙ্গে তিনি নিজের অবসর নিয়েও কোনো অফিসিয়াল বয়ান দেননি। এই ব্যাপারে তিনি এখনো পর্যন্ত নিরবই থেকেছেন।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *