CSK vs MI: আগামী মরশুমে দুই ভয়ঙ্কর বোলারকে নিজেদের দলে নেবে সিএসকে, ম্যাচ শেষে স্বয়ং ধোনি করলেন খোলসা

আইপিএল ২০২২ এর ৫৯তম ম্যাচ গত বছরের চ্যাম্পিয়ন দল চেন্নাই সুপার কিং আর মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের মধ্যে ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে খেলা হয়েছে। এই ম্যাচ মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের দল ৫ উইকেটে জিতে নেয়। এই ম্যাচে মুম্বইয়ের অধিনায়ক রোহিত শর্মা টসে জিতে প্রথমে বোলিং করার সিদ্ধান্ত নেন। প্রথমে ব্যাট করে চেন্নাইয়ের দল নির্ধারিত ২০ ওভারও খেলতে পারেনি আর তারা মাত্র ১৬ ওভারে ৯৭ রান করেই অলআউট হয়ে যায়। ৯৮ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে মুম্বইয়ের দল ১৪.৫ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ১০৩ রান করে সহজেই জয় তুলে নেয়। এই ম্যাচে হারের পর চেন্নাইয়ের অধিনায়ক এমএস ধোনিকে যথেষ্ট নিরাশ দেখিয়েছে।

লজ্জাজনক হারের পর কী বললেন এমএস ধোনি?

CSK vs MI: আগামী মরশুমে দুই ভয়ঙ্কর বোলারকে নিজেদের দলে নেবে সিএসকে, ম্যাচ শেষে স্বয়ং ধোনি করলেন খোলসা 1

মুম্বইয়ের হাতে লজ্জাজনক হারের পর চেন্নাই অধিনায়ক এমএস ধোনি জানিয়েছেন যে ১৩০ এর নীচে স্কোর বাঁচানো সামান্য মুশকিল। তরুণ বোলাররা ভাল বোলিং করেছেন। ওরা শিখতে পারছে। মুম্বইয়ের বোলাররা ভাল বোলিং করেছেন। ম্যাচ শেষে নিজের বয়ানে এমএস ধোনি বলেন,

“উইকেট যেমনই হোক, ১৩০ এর নীচের স্কোর বাঁচানো সামান্য মুশকিল হয়। আমি শুধু নিজের বোলারদের বলেছিলাম যে তোমরা ম্যাচ হারা আর জেতার ব্যাপারে ভেব না আর নিজের মতো করে বোলিং করো। দুই তরুণ জোরে বোলার বাস্তবে ভাল বোলিং করেছে আর আমার মনে হয় যে এই ধরণে খেলা বাস্তবে ওদের নিজের উপর বিশ্বাস করতে সাহায্য করে, যে পরিস্থিতি সত্ত্বেও যখনই আমরা শুরু করি তো আমাদের সেই ধরণের অ্যাটিটিউড বজায় রাখার প্রয়োজন হয়, আর এটাই সবচেয়ে ছোট ফর্ম্যাটে জরুরী। এমনটা নয় যে আমাদের কাছে কিছু দুর্দান্ত জোরে বোলারদে রবেঞ্চ স্ট্রেংথ ছিল। তরুণ বোলাররা দুর্দান্ত বোলিং করেছে। ওরা অভিজ্ঞতার পাশাপাশি যথেষ্ট কিছু শিখতে পাচ্ছে। সেই সঙ্গে আমাদের কাছে আগামী মরশুমে আরও দুজন জোরে বোলার আসতে চএলছে। ওদের শিখতে দেওয়ার জন্য আমাদের কাছে যথেষ্ট সময় রয়েছে”।

দলের ব্যাটিং নিয়ে এমএস ধোনি বলেন,

“যখন আপনি এই ধরণের চাপে ব্যাটিং করেন তো প্রথম কিছু বল গুরুত্বপূর্ণ হয়, এই কারণে এটা বাঁচার সুযোগ ছিল। আমরা তার ফায়দা নিতে পারিনি। আজ মুম্বইয়ের বোলাররা ভাল বোলিং করেছে। আমাদের কিছু ব্যাটসম্যান এমন বলে আউট হয়েছে যা সামান্য নিরাশাজনক ছিল। আশা রয়েছে যে ওরা প্রত্যেকটা ম্যাচেই শিখছে। আমরা চাইছি যে দলে যেখানেই দুর্বলতা রয়েছে তা পূরণ করার”।

Leave a comment

Your email address will not be published.