সমর্থকদের নেতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি সামলানোর একি অভিনব উপায় মহেন্দ্র সিং ধোনির ঝুলিতে! 1

ক্রিকেটকে নিয়ে পাগলামোর অর্থ হল, যাঁরা এই খেলাটি মাঠের মধ্যে খেলছেন, তাঁদের সব সময় ভক্তদের নজরবন্দী হয়ে থাকতে হয়। সমর্থকরা সব সময় তাদের প্রিয় ক্রিকেটারদের কাছ থেকে ভালো পারফরম্যান্সের আশা করার পাশাপাশি তাঁদের অফ ফর্ম নিয়েও রীতিমতো চিন্তিত থাকেন। আবেগের বশে কিছু সমর্থকেরা আবার এমন আচরণ করে বসেন, যেখানে ক্রিকেটাররা নিজেদের ধৈয্য হারিয়ে পাল্টা প্রতিক্রিয়া দিতেও পিছুপা হন না। ক’বছর আগে এমন একটি ঘটনা ঘটেছিল ভারত অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির সঙ্গে। যেখানে এক সমর্থক তৎকালিন ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির ব্যাটিং ফর্ম নিয়ে চিন্তাপ্রকাশ করে খোদ ধোনিকেই জ্ঞান দিয়ে বসলেন।

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির জন্য ভারতীয় দলে সুযোগ না পেয়ে ধোনির বিরুদ্ধে এমন কথা বলতে পারলেন হরভজন সিং!

ঘটনাটি ঘটেছিল বেশ কয়েক বছর আগে। ধোনি ট্যুইটারে নিজের অ্যাকাউন্টে একটি ছবি আপলোড করে বলেন, “আলাদা চিহ্নিতকরণ করুন।”

ব্যাট হাতে দীর্ঘদিন অফ ফর্মের কবলে পড়ে থাকা মাহির সোশ্যাল নেটওয়ার্ক সাইটে এমন কার্যকারিতা পছন্দ হয়নি তাঁর ভক্তের। যার জেরে শ্রীধর রেড্ডি ভি নামের এক ধোনি সমর্থক এর পাল্টা প্রতিক্রিয়া জানিয়ে রিটুইট করে লেখেন, “আপনি দয়া করে সোশ্যাল নেটওয়ার্ক সাইটে সময় নষ্ট না করে নিজের ব্যাটিংয়ে মন দিন।”

একজন ক্রিকেটারের ফর্ম নিয়ে তাঁর সমর্থকেরা কতটা চিন্তিত, তা দেখে কমবেশি সব ক্রিকেটাররাই আনন্দিত হবেন। তবে এক্ষেত্রে ওই সমর্থকের ধোনির প্রতি এমন আবেগ প্রকাশে খুশি করেনি মাহিকে। তা সত্ত্বেও ক্যাপ্টেন কুল মাথা ঠান্ডা রেখে ওই সমর্থককে মিষ্টি কথায় যোগ্য জবাব দিয়ে বলেছিলেন, “আজ্ঞে স্যার, আর কোনও পরামর্শ।” এর মাধ্যমে ধোনি কিন্তু নিজের ওই সমর্থকের নেতিবাচক কথার বিনিময়ে পাল্টা কড়া কথা না বলেও মিষ্টি ছুরি চালিয়ে দারুণভাবে পুরোটাই সামলে দিলেন।

একা ধোনি নন, সোশ্যাল নেটওয়ার্ক সাইটে নামজাদা ক্রিকেটারদের প্রায়শোই নিজেদের সমর্থকদের কাছ থেকে এমন সব মিষ্টি অত্যাচার সহ্য করতে হয়। অনেক সমর্থক মাঝে মধ্যে এতটাই অভদ্র আচরণ করে বসেন, যে খেলোয়াড়রা নিজেদের মেজাজ ঠিক না রাখতে পেরে অপ্রয়োজনীয় সব বাক্য খরচ করে অকারণে মিডিয়ার খোরাক হয়ে যান। এ ক্ষেত্রে মহেন্দ্র সিং ধোনি একেবারে ব্যাতিক্রম। তিনি অন্তত কাউকে কোনও পাল্টা না দিয়ে ঠান্ডা মাথায় সামলে দেন। শচীন তেন্ডুলকর থেকে শুরু করে ইরফান পাঠানেরও সোশ্যাল নেটওয়ার্ক সাইটেও এমন সব সমর্থকেরা রয়েছেন, যারা মাঝে মধ্যে এই তারকা ক্রিকেটারদের ব্যাক্তিগত বিষয়ে অকারণে নাক গলিয়ে থাকে। যদিও নিজেদের প্রিয় খেলোয়াড়দের নিয়ে এমন পাগলামি করে দিনের শেষে তারাই কিন্তু নিজেদের ক্ষুদ্র মানসিকতার পরিচয় দিয়ে যান।

খারাপ ফর্মে থাকা যুবরাজ, ধোনিকে নিয়ে ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি যা বললেন তা শুনলে …

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *