টাকার গন্ধে ভোলবদল স্টিভ স্মিথের, হতবাক গোটা অস্ট্রেলিয়ান দল থেকে মিডিয়া 1
স্টিভ স্মিথ ও বিরাট কোহলি

অগত্যা স্টিভ স্মিথকে ফিরতে হল ভারতীদের কাছেই। সময় বেগতিক দেখেই মানে মানে ক্ষমা চেয়ে নিলেন তিনি। কিন্তু বিশ্বের দাম্ভিক ক্রিকেট দলের অধিনায়কের কাছে এটা কি আশা করে যায়! হ্যা, অপ্রত্যাশিত এমন ঘটনাই ঘটল মোটা টাকার গন্ধে।

মাঠের মধ্যেই স্মিথ ঘটালেন এক মজার কান্ড, দেখে ভ্যাবাচ্যাকা খেলেন ঋদ্ধিমান

অর্থ মানুষকে সবকিছু করতে বাধ্য করে। সেটাই যেতে যেতে প্রমাণ করে দিলেন অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ। ক্ষুরধার নেতার মতই নিজের পাপ মোচন করে নিলেন মাত্র কিছু বাক্য খরচ করে। ভারত অস্ট্রেলিয়া সিরিজে স্লেজিংয়ের জন্য যে অধিনায়ক উদ্বুদ্ধ করছিলেন দলের অন্যান্য ক্রিকেটারদের, সে ক্ষমা চাওয়ায় সমীকরণটা ঠিক সহজে মিলছিল না। এতটাই কি সহজ! শুধুমাত্র সুসম্পর্ক বজায় রাখতেই কী কোহলিদের কাছে ক্ষমা চাইলেন স্মিথ? ভেবে পাওয়া গেল অন্য কারণ।

আসল বিষয়টা হল বিলাসবহুল আইপিএল। আপাতত দেশে ফিরে গেলেও কয়েকদিনের মধ্যেই স্মিথকে ফিরতে হবে ভারতে। আইপিএলে রাইজিং পুনে সুপারজায়ান্টসের অধিনায়ক এখন তিনিই। যে দলে রয়েছে অজিঙ্ক রাহানে, রবিচন্দ্রণ অশ্বিনরা। বেঙ্গালুরু থেকে শুরু করে ধর্মশালার টেস্টে একা হাতেই ভারতের ক্রিকেটারদের স্লেজিং করে গিয়েছেন স্মিথ। এমনকী দলের অন্যদেরও তাতে উদ্বুদ্ধ করেছেন। তাইতো সিরিজে নিশ্চিত হার জানা সত্ত্বেও ম্যাথু ওয়েডকে রবীন্দ্র জাডেজার সঙ্গে বিবাদে লেলিয়ে দেন তিনি। যাইহোক স্মিথ ভালোই বুঝেছিলেন এই তিক্ততা তাঁর আইপিএল অধিনায়কত্বে প্রভাব ফেলতে পারে। তাই তড়িঘড়ি ৩৬০ ডিগ্রি ঘুরে গিয়ে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইলেন তিনি।

মঙ্গলবার পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে এসে স্মিথ বলেন, “সিরিজ এতটাই কঠিন ছিল যে আবেগের বহিঃপ্রকাশটা মাত্রাছাড়া হয়ে গিয়েছিল।” স্মিথের এই উক্তিতে হতবাক হয়ে যান ভারতীয় ক্রিকেটার থেকে শুরু করে ওই সময় মাঠে উপস্থিত সকলেই। স্মিথ একজন বুদ্ধিমান অধিনায়ক সেটা বলার অপেক্ষা রাখেনা। এই ঘটনার পর বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে কূটনৈতিকতাতেও ১০০ মার্কস দেওয়াই যায় অধিনায়ক স্টিভ স্মিথকে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *