দেশে ফিরে পিতার শেষ কাজ সারার পর নিজেকে এই অসাধারণ উপহার দিলেন মহম্মদ সিরাজ 1

অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে সদ্য সমাপ্ত টেস্ট সিরিজে ভারতের হয়ে সর্বোচ্চ উইকেট অর্জনকারী মহম্মদ সিরাজের পারফরম্যান্স নিয়ে আলোচনা হচ্ছে গোটা ক্রিকেট বিশ্বে। ব্রিসবেনের গাব্বা মাঠে সিরাজের দুর্দান্ত বোলিংয়ের ভিত্তিতে ৩৩ বছর পর  প্রথম সফরকারী দেশ হিসেবে অস্ট্রেলিয়াকে পরাস্ত করতে সফল হয়েছিল টিম ইন্ডিয়া। দলের প্রধান কোচ রবি শাস্ত্রীও মহম্মদ সিরাজকে এই সফরের আবিষ্কার হিসেবে তুলে ধরেছিলেন এবং তার খুব প্রশংসা করেছিলেন।

দেশে ফিরে পিতার শেষ কাজ সারার পর নিজেকে এই অসাধারণ উপহার দিলেন মহম্মদ সিরাজ 2

ইতমধ্যে, অস্ট্রেলিয়া সফর শেষ করে দেশে ফিরেছেন ভারতীয় ক্রিকেটাররা। আপাতত কয়েকদিনের বিশ্রাম সারবেন তারা তাদের পরিবারের সাথে। এই অবস্থায় এবার মহম্মদ সিরাজ নিজের এই অসাধারণ পারফর্মেন্সের জন্য নিজেকে দিলেন বিশেষ পুরষ্কার। তারকা পেসার সিরাজ নিজেকে একটি বিএমডব্লু গাড়ি উপহার দিয়েছেন। সিরাজ তার ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে তার নতুন বিএমডব্লু গাড়ির একটি সংক্ষিপ্ত ভিডিও পোস্ট করেছেন। যার মধ্যে সিরাজকে ভেতরের ও বাইরে থেকে গাড়িটিকে দেখাতে দেখা গিয়েছে।

pic credit  siraj instagram

অস্ট্রেলিয়া সফরে ঐতিহাসিক জয়ের পরে বিসিসিআই বোনাস হিসাবে গোটা ভারতীয় দলকে পাঁচ কোটি টাকা দেওয়ার ঘোষণা করেছিল। অস্ট্রেলিয়া সফরে আসার কয়েক দিনের মধ্যেই মারা গিয়েছিলেন সিরাজের বাবা , তবে এই ফাস্ট বোলার পিতার কাজ সারার জন্য সফরের মাঝপথে ভারতে ফিরে না আসার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। মেলবোর্নে খেলা দ্বিতীয় টেস্ট ম্যাচে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক করেছিলেন মহম্মদ সিরাজ এবং দুর্দান্ত বোলিং করেছিলেন।

দেশে ফিরে পিতার শেষ কাজ সারার পর নিজেকে এই অসাধারণ উপহার দিলেন মহম্মদ সিরাজ 3

ভারতের হয়ে টেস্ট অভিষেকের সময় সিরাজ খুব আবেগপ্রবণ হয়েছিলেন এবং সিডনি টেস্টে জাতীয় সংগীতের সময় সিরাজের চোখে জল এসেছিল। হায়দ্রাবাদের এই ফাস্ট বোলারের বাবার স্বপ্ন ছিল ছেলে যাতে ভারতের হয়ে খেলে। গাব্বার মাঠে দ্বিতীয় ইনিংসে নেওয়া পাঁচ উইকেট সহ অস্ট্রেলিয়া সফরে সিরাজ মোট ১৩ টি উইকেট নিয়েছিলেন। ব্রিসবেনে খেলা চতুর্থ টেস্ট ম্যাচে ভারতীয় বোলিং বিভাগকে সিরাজ নেতৃত্ব দিয়েছিল এবং তাঁর জেরে টিম ইন্ডিয়ার পেস আক্রমণ দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করেছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *