কুম্বলের সমকক্ষ হলেন আড়িয়াদহের স্পিনার, কীভাবে জেনে নিন 1

ভারতের কিংবদন্তী স্পিনার অনিল কুম্বলের সঙ্গে একই সারিতে বসল বাংলার এক স্পিনার। নাহ! এটা এপ্রিল ফুল করার কোনও প্রয়াস নয়। কোনও চটুল খবর ছড়ানোর প্রয়াসও নয়। বাস্তবে কুম্বলের মতই এক ইনিংসে ১০টি উইকেট নিয়ে তাক লাগিয়ে দিয়েছে আড়িয়াদহ স্পোর্টিং ক্লাবের স্পিনার মহম্মদ সইফ।

১৯৯৯ সালে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে লেগ স্পিনার অনিল কুম্বলে এই রেকর্ড করেন। এই ধরনের যে অনেক কীর্তি রয়েছে তা নয়। তাই কুম্বলে আজও বিশ্বের অন্যতম সেরা স্পিনার। কুম্বলের আগে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে মাত্র একজনই এই কান্ড ঘটিয়েছিলেন। ১৯৫৬ সালে ইংল্যান্ডের জিম লেকার অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে এই কীর্তির অধিকারি হন। লেকার ও কুম্বলের পরে এখনও পর্যন্ত আন্তর্জাতিকে ক্রিকেটে আর কোনও বোলার খুঁজে পাওয়া যায়নি যে এই কৃতিত্বের ভাগীদার হতে পারে।

তবে সইফ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট তো নয়ই, প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটও খেলে না। তবুও এক ইনিংসে ১০ টি উইকেট নেওয়া সহজ কথা নয়। আর সেটা সহজ নয় বলেই খবরের শিরোনাম হয়েছে আজ। দ্বিতীয় শ্রেণির ক্রিকেটে নিজের ক্লাব আড়িয়াদহ স্পোর্টিং ক্লাবের হয়ে সইফ এই গৌরবময় কীর্তি করেন। কলকাতার তালতলার মাঠে ন্যাশনাল অ্যাথলেটিক ক্লাবকে ২৮ রানে হারায় আড়িয়াদহ। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ১৩৭ রান করে সইফের দল। তার জবাবে মাত্র ৯৯ রানে গুটিয়ে যায় ন্যাশনাল অ্যাথলেটিকের ইনিংস।

দারুণ এই প্রাপ্তিযোগের পর সইফ বলেন, “আমি শুধুমাত্র পিচের বাউন্স ও টার্নের দিকে লক্ষ্য দিয়েছিলাম। সেটাই স্পিন হতে বেশ সাহায্য করেছিল।”

কিউই স্পিনার ডানিয়েল ভেত্তোরির এই ভক্ত এবার নিজের ক্লাবকে ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অব বেঙ্গলের অধীনে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে নিয়ে যেতে চায়। ম্যাচের পরে তাঁর পরবর্তী লক্ষ্য সম্বন্ধে জিজ্ঞাসা করা হলে সইফ বলে, “আমার প্রথম লক্ষ্য আমার দলকে সিএবির প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে অন্তর্ভুক্ত করা।”

তরুণ এই স্পিনারের বল এভাবেই ঘুরলে আড়িয়াদহের পক্ষে সিএবির অধীনে চলে আসাটা খুব একটা কঠিন হবেনা। বাংলা থেকে সদ্য কলকাতা নাইট রাইডার্সের জার্সি ধারণ করেছে সায়ন ঘোষ। আইপিএল নিলামের আগে এই ঘটনা ঘটালে কেকেআরের ডাক আসতেই পারত সইফের কাছেও।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *