শাস্ত্রী আর কোহলির ভাবনা নিয়ে মহম্মদ কাইফ তুললেন বড়ো প্রশ্ন, বললেন এই বড়ো কথা

অস্ট্রেলিয়া আর ভারতের মধ্যে দ্বিতীয় টি-২০ ম্যাচ খেলা হচ্ছে। এই ম্যাচের টস জিতে ভারত প্রথমে বল করার সিদ্ধান্ত নেয়। অন্যদিকে ব্যাটিং করতে নামা অস্ট্রেলিয়া দল দুর্দান্ত প্রদর্শন করে টিম ইন্ডিয়াকে ১৯৫ রানের লক্ষ্য দিয়েছে। কিন্তু বিরাট কোহলির অধিনায়কত্ব সবসময়ই দল নির্বাচন নিয়ে নিয়মিত বিতর্ক তৈরি হয়েছে। যা নিয়ে মহম্মদ কাইফ বড়ো বয়ান দিয়েছেন।

বিরাট কোহলির নির্বাচন নিয়ে ক্ষুব্দ মহম্মদ কাইফ

শাস্ত্রী আর কোহলির ভাবনা নিয়ে মহম্মদ কাইফ তুললেন বড়ো প্রশ্ন, বললেন এই বড়ো কথা 1

এর মধ্যে ভারতের প্রাক্তন খেলোয়াড় মহম্মদ কাইফ বিরাট কোহলি এই ধরণের দল নির্বাচন নিয়ে নিজের প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন। তার এই বয়ানে পরিস্কার আন্দাজ করা যেতে পারে যে মহম্মদ কাইফ বিরাট কোহলির অধিনায়কত্ব নিয়ে একদমই খুশি নন। কাইফের মতে যে ভাবে সৌরভ গাঙ্গুলী নিজের খেলোয়াড়দের সমর্থক করতেন বিরাট কোহলি সেভাবে করেন না। আসলে সোনি স্পোর্টস নেটওয়ার্কে কথা বলতে গিয়ে মহম্মদ কাইফ শ্যরেস্য আইয়ারকে প্রথম টি-২০ ম্যাচের জন্য প্রথম একাদশে শামিল না করা নিয়ে নিজের রায় দিয়েছেন। সেই সঙ্গে তিনি অধিনায়ক বিরাট কোহলির এই নির্ণয় নিয়ে বেশকিছু প্রশ্নও তুলেছেন। কাইফের মোতাবেক শ্রেয়স আইয়ার চার নম্বরে আইপিএল আর নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে হওয়া সিরিজে নিজেকে প্রমান করে দেখিয়েছেন।

মহম্মদ কাইফ দিয়েছেন বয়ান

শাস্ত্রী আর কোহলির ভাবনা নিয়ে মহম্মদ কাইফ তুললেন বড়ো প্রশ্ন, বললেন এই বড়ো কথা 2

মহম্মদ কাইফ নিজের বয়ানে বলেছেন যে, “এক সময় শ্রেয়স আইয়ার আপনার জন্য প্রধান খেলোয়াড় ছিল। ও আপনার দলের চার নম্বর ব্যাটসম্যান ছিলেন। যে ম্যাচ শেষ করত। আইপিএল থেকে শুরু করে নিউজিল্যাণ্ড সিরিজ পর্যন্ত কথা বলা হলে শ্রেস্য আইয়ার চার নম্বরে ব্যাট করে ম্যাচকে সঠিকভাবে ফিনিশ করেছে। চার নম্বরে থেকে ও দুর্দান্ত প্রদর্শন করছিল। তবে রবি শাস্ত্রী আর বিরাট কোহলির ভাবনায় সামান্য কমতি রয়েছে আর প্লেয়ার্সরাও এই বিষয়টি সঠিকভাবে জানেন। খেলোয়াড়রাও জানে যে ওরা স্রেফ ২ ইনিংসেই সুযোগ পাবে”।

মহম্মদ কাইফ করলেন কোহলি আর সৌরভ গাঙ্গুলীর তুলনা

শাস্ত্রী আর কোহলির ভাবনা নিয়ে মহম্মদ কাইফ তুললেন বড়ো প্রশ্ন, বললেন এই বড়ো কথা 3

মহম্মদ কাইফ আগে কথা বলতে গিয়ে বিরাট কোহলি আর সৌরভ গাঙ্গুলীর অধিনায়কত্বের পার্থক্য বলেছেন। তিনি বলেছেন যে, “যখন আমরা দাদার অধিনায়কত্বে দলের অংশ ছিলাম, সেই সময় এই ধরণের ব্যাপার হত না। যখনই দাদা কোনো খেলোয়াড়ের নির্বাচন করতেন তো সে দলে ততক্ষণ খেলত, যতক্ষণ না সে ভালো প্রদর্শন করত। সত্যিই সেই সময় উনি প্লেয়ারদের দারুণ সমর্থন করতেন। এই অবস্থায় বিরাট কোহলিকেও এটার উপর মনোযোগ দেওয়া উচিত যে ও নিজের অধিনায়কত্বে কেমন প্রভাব ফেলে। আমি বা বীরেন্দ্র সেহবাগ কেনও দাদার ব্যাপারে কথা বলি, কারণ উনি নিজের অধিনায়কত্বে যথেষ্ট ভালো ইমপ্যাক্ট ফেলেছিলেন। উনি একটি দল তৈরি করেছিলেন”।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *