Mithali Raj

ভারতীয় মহিলা ক্রিকেট দলের অভিজ্ঞ ক্রিকেটার মিতালি রাজ (Mithali Raj) বিশ্বকাপের আগে অবসর নেওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। তবর দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে হেরে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালের দৌড় থেকে ছিটকে যাওয়ার পর রবিবার ভারত অধিনায়ক এখন অন্য কথা জানিয়ে দিয়েছেন। তিনি মনে করছে, ভবিষ্যৎ সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেওয়ার এটাই সঠিক সময় নয়। ছ’টি ওয়ানডে বিশ্বকাপ খেলা একমাত্র মহিলা ক্রিকেটার বলেছেন, দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে শেষ লিগ ম্যাচে তিন উইকেটে হেরে যাওয়ার হতাশা কাটিয়ে উঠতে পারেননি তিনি।

জেনে নিন কী বললেন মিতালি

विश्व कप से बाहर होने के बाद मिताली राज ने संन्यास की खबरों पर दिया बड़ा अपडेट, जानिए कप्तान ने अपने भविष्य के बारे में क्या कहा

অবসর নিয়ে প্রশ্ন করা হলে ৩৯ বছর বয়সী এই ক্রিকেটার বলেন, ”আজ কী হয়েছে তা বুঝতে এবং আমার ভবিষ্যত নিয়ে ভাবতে আমি এক ঘণ্টাও সময় দেইনি। এটা হতাশাজনক যখন আপনি এক বছরেরও বেশি সময় ধরে বিশ্বকাপের জন্য কঠোর প্রস্তুতি নিচ্ছেন এবং আপনার প্রচারাভিযান এভাবেই শেষ হয়। এটা মেনে নিয়ে সেখান থেকে এগিয়ে যেতে সময় লাগে। যে কোনো খেলোয়াড়ের ভবিষ্যৎ যাই হোক না কেন, আমি আসলে আমার ভবিষ্যৎ নিয়ে ভাবিনি।”

শচীন তেন্ডুলকার এবং জাভেদ মিয়াঁদাদের পর মিতালি হলেন তৃতীয় ক্রিকেটার (পুরুষ ও মহিলা) যিনি ছ’টি বিশ্বকাপে খেলেছেন। তিনি আগে তার অবসর সম্পর্কে ইঙ্গিত দিয়েছিলেন, বলেছিলেন যে তার জন্য “জীবনের একটি চক্র সম্পূর্ণ” কারণ তিনি “তার যাত্রা শেষ করতে চাইছেন”। তবে তিনি রবিবার বলেছিলেন যে “আবেগ নিয়ন্ত্রণে থাকলে” তিনি তার কেরিয়ার ও ভবিষ্যতের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন।

এখনই অবসর নিয়ে ভাবছেন না মিতালি

Ind Vs Sa Mithali Raj: मिताली राज ने बनाया एक खास रिकॉर्ड, दक्षिण अफ्रीका और न्यूजीलैंड का मिला गजब संयोग - Cricket AajTak

যখন মিতালিকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল যে এটি ভারতীয় দলের জার্সিতে তার শেষ ম্যাচ কিনা, তখন তিনি বলেছিলেন, “আমি এখনই এই বিষয়ে কথা বলার সঠিক অবস্থানে নই… আমার ভবিষ্যতের বিষয়ে এখনই মন্তব্য করা আমার পক্ষে উপযুক্ত হবে না। আজ আমরা যেভাবে পারফর্ম করেছি তা বিবেচনা করে আবেগকে নিয়ন্ত্রণ করা কঠিন।”

বিশ্বকাপ থেকে বেরিয়ে যাওয়া ভারতের কিংবদন্তি ফাস্ট বোলার ঝুলন গোস্বামীর বর্ণাঢ্য কেরিয়ারও শেষ করে দিতে পারেন, যিনি হ্যামস্ট্রিং স্ট্রেনের কারণে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে মাঠে নামতে পারেননি। মিতালি বলেন, “এক প্রজন্মের খেলোয়াড় গেলে আরেক প্রজন্ম আসবে। দলকে এগিয়ে যেতে হবে। প্রতি বিশ্বকাপের পর দলে পরিবর্তন আসে। সেখানে নতুন মুখও থাকবে এবং কিছু অভিজ্ঞ খেলোয়াড়ও থাকবে।”

Leave a comment

Your email address will not be published.