ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা ওয়ানডে সিরিজ বাতিল হওয়ার মধ্যে মমতা ব্যানার্জি হলে সৌরভের প্রতি ক্ষুব্ধ, বললেন এই কথা…

ভারত আর দক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যে খেলা হতে চলা তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ নিয়ে বিসিসিআই একটি বড়ো সিদ্ধান্ত নিয়েছে। পুরো বিশ্বই এই মুহুর্তে করোনা ভাইরাস নিয়ে সমস্যার রয়েছে, আর এই করোনা ভাইরাসের আতঙ্কে সমস্ত দেশই ভীত রয়েছে। এর মধ্যেই বিসিসিআই বড়ো সিদ্ধান্ত নিয়ে ভারত আর দক্ষিণ আফ্রিকার সিরিজ বাতিল করে দিয়েছে।

ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকার সিরিজকেও বিসিসিআই করল বাতিল

ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা ওয়ানডে সিরিজ বাতিল হওয়ার মধ্যে মমতা ব্যানার্জি হলে সৌরভের প্রতি ক্ষুব্ধ, বললেন এই কথা… 1

বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলী অ্যাণ্ড কোম্পানি শুক্রবার করোনা ভাইরাসের ক্রমবর্দ্ধমান প্রভাবকে মাথায় রেখে ভাবনাচিন্তা করার পর কড়া পদক্ষেপ নিয়ে বর্তমানের জন্য এই ওয়ানডে সিরিজকে বাতিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এই ওয়ানডে সিরিজের সঙ্গেই বিসিসিআই আইপিএলকেও ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত পেছিয়ে দিয়েছে। করোনা ভাইরাসে এই মুহূর্তে সারা বিশ্বই ক্ষতিগ্রস্ত যা প্রত্যেকদিন বেড়েই চলেছে। এই কারণে বিসিসিআইকে এই সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে।

কলকাতা ম্যাচ বাতিল করার তথ্য না দেওয়ায় মমতা ব্যানার্জি সৌরভ গাঙ্গুলীর উপর ক্ষুব্ধ

ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা ওয়ানডে সিরিজ বাতিল হওয়ার মধ্যে মমতা ব্যানার্জি হলে সৌরভের প্রতি ক্ষুব্ধ, বললেন এই কথা… 2

ভারত আর দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজকে বাতিল করার পর বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি বিসিসিআই সভাপতি আর বেঙ্গল ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের প্রাক্তন সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলীর উপর ক্ষুব্ধ হয়েছেন। মমতা ব্যানার্জি এরপর নিজের ক্ষোভও সামনে এসে প্রকাশ করেছেন। আসলে ভারত আর দক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যে হতে চলা এই ওয়ানডে সিরিজের তৃতীয় তথা শেষ ওয়ানডে ম্যাচ ১৮ মার্চ কলকাতার ইডেন গার্ডেন্সে হওয়ার প্রস্তাবনা ছিল। কিন্তু মমতা ব্যানার্জির এই মতে এই ম্যাচ বাতিল হওয়ার ব্যাপারে সৌরভ গাঙ্গুলীর কিছু তো জানানো উচিত ছিল।

মমতা ব্যানার্জি বললেন, কম সে কম বাতিল হওয়ার কথা জানানো উচিত ছিল

ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা ওয়ানডে সিরিজ বাতিল হওয়ার মধ্যে মমতা ব্যানার্জি হলে সৌরভের প্রতি ক্ষুব্ধ, বললেন এই কথা… 3

মমতা ব্যানার্জির তরফে পরিস্কার বলা হয়েছে যে, “সৌরভের সঙ্গে সবকিছু ঠিক ছিল। কিন্তু ওর একটা শব্দে আমাদের জানানো উচিত ছিল আর কিছু নয়। যখন ম্যাচ কলকাতায় হওয়ার কথা ছিল তো কম সে কম কলকাতা পুলিশকে জানানো উচিত ছিল। আমি এটা উচিত সম্মানের সঙ্গে বলছি। রাজ্যের মুখ্য সচিব বা গৃহ সচিব বা পুলিশ কমিশনার বা সরকারের যে কোনো অন্য ব্যক্তিকে কেনো জানানো হবে না? যদি আপনি সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর আমাদের জানান তো এটা কেন? আমরা আপনাকে ম্যাচ আটকানোর জন্য বলছি না। কিন্তু আপনি এই পরিস্থিতিতে কী করবেন?”

Leave a comment

Your email address will not be published.