KXIPvsDC: শ্রেয়স আইয়ারের এই বড়ো ভুলের কারণে ৫ উইকেট হারল দিল্লি ক্যাপিটালস

কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব আর দিল্লি ক্যাপিটালসের মধ্যে আইপিএল ২০২০-র ৩৮তম ম্যাচ দুবাই ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে খেলা হয়েছে। এই ম্যাচে দিল্লি প্রথমে ব্যাট করে ১৬৫ রানের লক্ষ্য দেয়। যা পাঞ্জাবের দল ৫ উইকেটে হাসিল কএ জয়লাভ করে। সেই সঙ্গে ৮ পয়েন্টস নিয়ে তারা পয়েণ্টস টেবিলের পঞ্চম স্থানে পৌঁছে গিয়েছে।

দিল্লি ক্যাপিটালস নেয় প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত

KXIPvsDC: শ্রেয়স আইয়ারের  এই বড়ো ভুলের কারণে ৫ উইকেট হারল দিল্লি ক্যাপিটালস 1

কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব আর দিল্লি ক্যাপিটালসের মধ্যে আইপিএল ২০২০-র ৩৮তম ম্যাচ দুবাই আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে খেলা হয়েছে। এই ম্যাচের টস দিল্লি জেতে আর প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয়। এই ম্যাচে দিল্লি ক্যাপিটালস তিনটি পরিবর্তন করে দলে। ফিট হয়ে যাওয়া ঋষভ পন্থ দলে ফিরেছেন সেইসঙ্গে শিমরন হেটমেয়ার, ড্যানিয়েল স্যামস প্রথম একাদশে শামিল হন। অন্যদিকে কেএল রাহুল ক্রিস জর্ডনের জায়গায় প্রথম একাদশে জিমি নীশমকে শামিল করেন।

দিল্লি ক্যাপিটালস করে ১৬৪ রান

KXIPvsDC: শ্রেয়স আইয়ারের  এই বড়ো ভুলের কারণে ৫ উইকেট হারল দিল্লি ক্যাপিটালস 2

আইপিএল ২০২০তে পাঞ্জাবের বিরুদ্ধে টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নামা দিল্লির শুরুটা ভালো হয়নি। কারণ দলের ওপেনার পৃথ্বী শ ৭ রান করে ফিরে যান। কিন্তু আরও একবার এই ম্যাচে শিখর ধবন দলের ব্যাটিংয়ের দায়িত্ব নেন আর একদিকে টিকে থাকেন। অন্যপ্রান্তে ব্যাট করতে আসা অধিনায়ক শ্রেয়স আইয়ার ১৪, ঋষভ পন্থ ১৪, মার্কস স্টোইনিস ১০ অ্যান করে আউট হন। কিন্তু শিখর ধবন নিয়মিত পাঞ্জাবের বোলারদের উড়িয়ে দিয়ে স্কোরবোর্ড সচল রাখেন। শেষ দিকে শিমরন হেটমেয়ার ১০ রান করেন। শেষমেশ শিখর ধবন ব্যাক টু ব্যাক এই ম্যাচেও দ্বিতীয় সেঞ্চুরি করেন।

এই ম্যাচে ধবন ৬১ বলে ১০৬ রানের শক্তিশালী ইনিংস খেলেন। ধবনের এই ইনিংসের সাহায্যে দিল্লি ক্যাপিটালস ৪ উইকেট হারিয়ে ১৬৪ রানের স্কোর করে। এর সঙ্গেই গব্বর আইপিএলের ইতিহাসের প্রথম ব্যাটসম্যান হন যিনি ব্যাক টু ব্যাক দুটি ম্যাচে ২টি সেঞ্চুরি করেছেন।

কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব হাসিল করল ৫ উইকেটে জয়

KXIPvsDC: শ্রেয়স আইয়ারের  এই বড়ো ভুলের কারণে ৫ উইকেট হারল দিল্লি ক্যাপিটালস 3

দিল্লি ক্যাপিটালসের দেওয়া ১৬৫ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নামা কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের শুরুটাও ভীষণই খারাপ হয়। গত ম্যাচে ৭৭ রানের ইনিংস খেলে দলকে জয় এনে দেওয়া কেএল রাহুল তৃতীয় ওভারেই ১৫ রান করে আউট হয়ে যান। এরপর ক্রিস গেইল ১৩ বলে ২৯ রানের এক বিস্ফোরক ইনিংস খেলেন, কিন্তু তিনি রবিচন্দ্রন অশ্বিনের বলে উইকেট হারিয়ে বসেন। ক্রিজে মজুত ময়ঙ্ক আগরওয়াল সেট হওয়ার জন্য কিছু বল ব্যবহার করেন, কিন্তু তখনই নিকোলস পুরণ আর ময়ঙ্কের মধ্যে তালমেলের অভাব দেখা যায়। যেখানে পুরনো বলকে হিট করার পর একরানের জন্য দৌড় শুরু করতে সংকোচ দেখান আর তারপর দ্রুত গতিতে দৌড়ন, কিন্তু ময়ঙ্ক ক্রিজের লাইনে পৌঁছনোর আগেই অশ্বিন আর পন্থ মিলে তাকে রান আউট করে দেন। এরপর গ্লেন ম্যাক্সওয়েল আর নিকোলস পুরণ ইনিংস এগিয়ে নিয়ে যান। কিন্তু কাগিসো রাবাদ দিল্লিকে ম্যাচে ফিরিয়ে আনেন। পুরণকে তিনি ৫৫ রানে আউট করে দেন। এরপর অলরাউন্ডার গ্লেন ম্যাক্সওয়েল দলকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন কিন্তু খারাপ শট খেলার ফলে তিনি ঋষভকে ক্যাচ দিয়ে ৩২ রান করে আউট হন।
তারপর দীপক হুডা আর জিমি নীশম ক্রমশ অপরাজিত ১০ আর অপরাজিত ১৫ রান করে দলকে ৫ উইকেটে বড়ো জয় এনে দেন।।

দিল্লির অধিনায়ক শ্রেয়স আইয়ার এই ম্যাচে নিজের বোলারদের সঠিকভাবে ব্যবহার করতে পারেননি, যার ফল দলকে ভুগতে হয়। আসলে যখন নিকোলস পুরণ ক্রিজে সেট হননি সেই সময় অশ্বিন নিজের ওভারে তাকে ফাঁসিয়ে রেখেছিলেন, কিন্তু তারপর অধিনায়ক তুষারকে বল দেন আর পুরণ সেট হয়ে যেতে সাহায্য পান।

এখানে দেখুন ম্যাচের স্কোরকার্ড

KXIPvsDC: শ্রেয়স আইয়ারের  এই বড়ো ভুলের কারণে ৫ উইকেট হারল দিল্লি ক্যাপিটালস 4

KXIPvsDC: শ্রেয়স আইয়ারের  এই বড়ো ভুলের কারণে ৫ উইকেট হারল দিল্লি ক্যাপিটালস 5

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *