ওই অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যান আমাকে ভয় পায় : কুলদীপ যাদব 1
কূলদীপ যাদব

অস্ট্রেলিয়ার ওপেনিং ব্য়াটসম্য়ান ডেভিড ওয়ার্নারকে ভারত-অস্ট্রেলিয়া সিরিজের চেন্নাই ম্য়াচ ধরলে সাম্প্রতিক সময়ে চারবার আউট করা হয়ে গেল ভারতের চায়নাম্য়ান স্পিনার কুলদীপ যাদবের। ২১ সেপ্টেম্বর কলকাতার ইডেন গার্ডেন্সে বৃহস্পতিবার সিরিজের দ্বিতীয় একদিনের আন্তর্জাতিক ম্য়াচে মুখোমুখি হচ্ছে ভারত ও অস্ট্রেলিয়া। ইডেনেও কি কুলদীপ ওয়ার্নারকে তুলে নেবেন অল্প রানে? ম্য়াচের আগে দিন বুধবার সাংবাদিক সম্মেলনে ভারতের রিস্ট স্পিনারকে প্রশ্ন করা হয়েছিল, আসল রহস্য়টা কী? তাতে কুলদীপ কোন কিছু না ভেবেই বলে দেন, এর পেছনে কোনও কারণ নেই। আমি বল করতে এলেই ওয়ার্নার আউট হয়ে যায়। আসলে ও বোধহয়, সবসময় ভয়ে ভয়ে থাকে, কুলদীপ বল করতে এলে কিছু একটা অঘটন ঘটবেই। ওয়ার্নার আমাকে ভয় পায়। আমি আলাদা করে কোনও কিছু করি না।

কুলদীপের মতে, বাকি অজি ব্য়াটসম্য়ানদের মধ্য়ে অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক স্টিভ স্মিথকে বোলিং করা খুব কঠিন। ভারতের তরুণ রিস্ট স্পিনার বলেন, ওয়ার্নারের তুলনায় স্মিথকে বোলিং করা খুব চাপের। কারণ অন্য়ান্য় অজি ব্য়াটসম্য়ানদের তুলনায় স্মিথ অনেক বেশি স্ট্রাইক রোটেট করে। ফলে, ওর বিপক্ষে সিঙ্গলস আটকানো সমস্য়া হয়ে দাঁড়ায়। বৃহস্পতিবার ভারতের একনম্বর টার্গেট, ওয়ার্নার ও স্মিথকে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব প্য়াভিলিয়নে পাঠানো।  কুলদীপ বলেন, ব্য়াটিং অর্ডারে প্রথম তিন ব্য়াটসম্য়ানকে প্য়াভিলিয়নে পাঠিয়ে দেওয়া গেলে, বিশ্বের যে কোনও বড় দলকে চাপে ফেলে দেওয়া যায়

ভারতীয় দলে এখন দুজন রিস্ট স্পিনার। কুলদীপ ও যুজবেন্দ্র চহল। এবিষয়ে কুলদীপের বক্তব্য়, যে কোনও দলের বোলিং লাইন-আপে রিস্ট-স্পিনার থাকলে বৈচিত্র বাড়ে আক্রমণে। যত বেশি বৈচিত্র, তত বেশি অপশন হাতে। সেই মতো আক্রমণ সাজানো যায়। মাত্র বাইশ বছর বয়সেই লাইম লাইটে বোলার কুলদীপ যাদব। কী বলতে চান এনিয়ে? পুরো কৃতিত্বটাই আইপিএল ফ্র্য়াঞ্চাইজি কলকাতা নাইট রাইডার্সকেই দিলেন তিনি। কুলদীপের উত্তর, কেকেআর টিমে জায়গা পাওয়া এখন কাজে দিচ্ছে। সুনীল নারিন, পীযূষ চাওলা এবং ইমরান তাহিরকে দেখে অনেক কিছু শিখেছি। সাফল্য় পেলে, কিভাবে তা সামলাতে হয় যেমন শিখেছি, তেমন সাফল্য় না পেলে কিভাবে তার মোকাবিলা করতে হয়, তাও শিখেছি।

নিজের দলের হার্দিক পান্ডিয়াকে নিয়ে বেশ উচ্ছ্বসিত কুলদীপ। বললেন, হার্দিক এমন একজন ক্রিকেটার যে কোনও সময় ব্য়াট হাতে ম্য়াচের রঙ বদলে দিতে পারে। ও লম্বা রেসের ঘোড়া। আর যে টিমে যত বেশি অলরাউন্ডার, সেই টিম তত বেশি ভালো খেলে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *