কোহলির সাফল্যের পিছনে নাকি রয়েছেন এই বাঙালি ধর্মগুরু! 1

ক’দিন আগে ভারতের বির্তকীত ধর্মগুরু গুরমিত রাম রহিম জানিয়েছিলেন, তিনিই বর্তমান টিম ইন্ডিয়ার অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে সাফল্যের রাস্তা বাতলে দিয়েছিলেন। যার সুবাদে কোহলি আজ এত বেশি সফল।মাঝে আরও বেশ কয়েক’জন কোহলির সফল হওয়ার পিছনে নিজেদের অবদানের কথা জানিয়েছিলেন।

যদিও এবার খোদ কোহলি সবার নানান তত্ত্ব উড়িয়ে সরাসরি জানিয়ে দিলেন, ক্রিকেটের আঙিনায় তাঁর সফল হওয়ার পিছনে একজন বাঙালির হাত রয়েছে। আর তিনি হলেন মুকুন্দলাল ঘোষ। যাঁকে গোটা বিশ্ব পরমহংস যোগানন্দ নামেই চেনেন। কোহলির মতে, বাঙালি ধর্মগুরু পরমহংস যোগানন্দের আত্মজীবনী তাঁকে পুরোপুরি বদলে দিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে। পাশাপাশি তাঁকে একজন বিশ্বমানের খেলোয়াড় হতেও সাহায্য করেছে।

মাস্টার ব্লাস্টার শচীন তেন্ডুলকরই বিরাট কোহলির প্রেরণা। এটা কমবেশি সব ক্রিকেটপ্রেমীরা জানেন। এমনকি তাঁর ছোটবেলার কোচ রাজকুমার শর্মা আজকের দিনের কোহলিকে বিরাট আকারে তুলে আনতে গুরু দায়িত্ব পালন করেছেন। কিন্তু কোহলি নিজের উঠে আসার ক্ষেত্রে শচীন তেন্ডুলকরের প্রেরণা কিংবা ছোটবেলার কোচ রাজকুমার শর্মার নিস্বার্থ চেষ্টাকে অসম্মান না করেও এগিয়ে রাখলেন ধর্মগুরু পরমহংস যোগানন্দকে।

কোহলি নিজেই নিজের সাফল্যের রহস্য উন্মোচন করে সোশ্যাল নেটওয়ার্ক সাইট ইনস্টাগ্রামে জানিয়ে দিলেন, তাঁকে বদলে দিয়েছে যোগানন্দের আত্মজীবনী ‘অটোবায়োগ্রাফি অফ যোগি’। ইনস্টাগ্রামে সেই আত্মজীবনী হাতে নিয়ে একটি ছবি পোস্ট করেছেন কোহলি। পাশাপাশি লিখেছেন, “সত্যি বলতে, আমি এই বইকে খুব ভালোবাসি। যারা নিজেদের ভাবনা-চিন্তাধারা নিয়ে চলার সাহস রাখেন, তাদের অবশ্যই এই বইটি পড়া উচিত। জীবন সম্পর্ক উপলব্ধি, জ্ঞানের বিকাশ ঘটাতে এই বইয়ের কোনও বিকল্প নেই। এই বই আপনাকে নিজের এবং ঈশ্বরের ওপর বিশ্বাস তৈরি করতে সাহায্য করবে।”

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *