বেঙ্গালুরুর বিতর্কিত স্মৃতি ভুলে সামনের দিকে দেখতে চায় কোহলি 1
বিরাট কোহলি

বেঙ্গালুরু টেস্ট শেষ হওয়ার পর প্রায় ৮ দিন কেটে গিয়েছে। ডিআরএস কাণ্ড নিয়ে ভারত ও অস্ট্রেলিয়া সমঝোতাও করে নিয়েছে। তাও রাঁচি টেস্টে কাটলোনা বেঙ্গালুরুর ডিআরএস বিভিষিকা। রাঁচিতে মাঠে নামার আগে আবারও বিরাট কোহলিকে এই বিষয়ে সংবাদমাধ্যমের প্রশ্নের সামনে পড়তে হল।

দ্বিতীয় টেস্টে অজি অধিনায়ক নিজের আউট বাঁচাতে নিয়ম বর্হিভূতভাবে ড্রেসিংরুমের দিকে সাহায্য চাওয়ার জন্য তাঁকিয়েছিলেন। যা দেখে বিরাট কোহলি ও আম্পায়ার নাইজেল লঙ তাঁকে রিভিউ নেওয়া থেকে বিরত রাখে। এরপর ম্যাচ শেষে সাংবাদিক বৈঠকে কোহলি তীব্রভাবে এর বিরোধিতা করে। কিন্তু কোথাও ‘ঠকানো’ শব্দের উল্লেখ করেন নি।

ম্যাচ জিতে অজিদের বিরুদ্ধে ‘জোচ্চুরির’ অভিযোগ আনলেন বিরাট!

তবে অস্ট্রেলিয়ান মিডিয়া কার্যত এই শব্দটিকে অ্যাজেন্ডা করেই কোহলির শাস্তির জন্য জনমত তৈরি করতে থাকে। এমনকী অস্ট্রেলিয়ান বোর্ডও এই শব্দটিকে কেন্দ্র করে আইসিসির কাছে কোহলির শাস্তির জন্য দারস্থ হয়। পাল্টা বিসিসিআইও ডিআরএস নিয়ে স্মিথ ও হ্যান্ডসকমের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানায় ক্রিকেট নিয়ামক সংস্থায়। তবে খেলার স্বার্থে আইসিসি চায়নি এই জল আরও দূর এগোক। তাই দুই ক্রিকেট বোর্ডকে নিজেদের মধ্যে মীমাংসা করে নিতে বলে। হয়ও তা।

দুই বোর্ডের মীমাংসা হওয়ার পর থেকে বিরাট কোহলিও বিষয়টিকে ভুলে যায়। সেদিন ম্যাচের শেষে যে প্রমাণ সঙ্গে নিয়ে তিনি প্রতিবাদ করেছিলেন, বেমালুম ভুলে যান তিনি। এই বিষয় নিয়েই রাঁচি টেস্টের আগে সাংবাদিক বৈঠকে কোহলিকে প্রশ্ন করা হয় কী কারণে অভিযোগ করা হয়েছিল? তিনি ধুর্ততার সঙ্গে উত্তর দেন, “আমার মতে যদি কেউ কারোর বিরুদ্ধে প্রশ্ন তোলে তাকে অভিযোগ বলে। কিন্তু সেই অভিযোগের ভিত্তিতে শাস্তি না হলে কীভাবে সেটা অভিযোগ হল।” কূটনৈতিকতার সঙ্গে ভারতীয় অধিনায়ক গোটা বিষয়টিকেই এড়িয়ে যান।

বেঙ্গালুরু ম্যাচের শেষে স্মিথের বিরুদ্ধে কোহলির যে রণংদেহী মূর্তি দেখা গিয়েছিল তা নরম হয়ে গেল কেন? কোহলি বলেন, “আমাদের উচিত খেলার দিকে মন দেওয়া। একটি কয়েনের দুটি পৃষ্ঠ থাকে। তাই একভাবে কোনওকিছু বিচার করা ঠিক নয়। এখানে সবাই নিজের স্বার্থের জন্য বসে আছে। সবাই তাঁদের ইচ্ছামত প্রশ্নও করতে চায়। কিন্তু আমাদের খেলার দিকেই বেশি গুরুত্ব দিতে হবে।”

অল্প কথা বলে এদিন কোহলি খুব নিপুণভাবে সাংবাদিকদের বোমা সামলে নিয়েছিল। বৃহস্পতিবার তৃ্তীয় টেস্টের প্রথম দিন, মাঠেও স্মিথ বা হ্যান্ডসকমের সঙ্গে সেভাবে কোনও সমস্যা যায়নি কোহলির। যদিও এদিন তিনি বেশইরভাগ সময়ই মাঠের বাইরেই কাটান। তাঁর জায়গায় অধিনায়কত্ব সামলান অজিঙ্ক রাহানে।

ভারতীয় বোর্ডের তরফ থেকে জানিয়ে দেয়া হল বিরাটের চোট গুরুতর নয়!

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *