দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে হারের জন্য দায়ী কোহলি-দ্রাবিড়, বড় দাবি তুলে ধরলেন এই পাক ক্রিকেটার 1

দক্ষিণ আফ্রিকার (South Africa) বিরুদ্ধে তিন টেস্টের সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে সাত উইকেটে হেরেছে ভারতীয় ক্রিকেট দল (Indian Cricket Team)। অধিনায়ক ডিন এলগারের (Dean Elgar) অপরাজিত ৯৬ রানের সুবাদে জোহানেসবার্গে (Johannesburg) খেলা দ্বিতীয় টেস্ট জিতে নেয় আফ্রিকান দল। এই টেস্টে কেএল রাহুলের (KL Rahul) রক্ষণাত্মক অধিনায়কত্ব নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। একই সময়ে, পাকিস্তানের প্রাক্তন স্পিনার দানিশ কানেরিয়া (Danish Kaneria) প্রধান কোচ রাহুল দ্রাবিড় (Rahul Dravid) এবং নিয়মিত অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে (Virat Kohli) কটাক্ষ করেছেন।

ভারতীয় থিঙ্ক ট্যাঙ্কের উচিত ছিল ফাস্ট বোলারদের ছোট স্পেলে বল করতে বলা

India vs South Africa, 2nd Test, Day 3 Highlights: South Africa 118/2 At  Stumps On Day 3, Need 122 More To Win | Cricket News

কানেরিয়া বলেছিলেন যে ২৯ বছর বয়সী এই হারের জন্য তাকে দায়ী করা যায় না কারণ তিনি তার কেরিয়ারে প্রথমবারের মতো টেস্ট দলের অধিনায়ক ছিলেন। প্রাক্তন পাকিস্তানি বোলার বিশ্বাস করেন যে কোহলি এবং প্রধান কোচ রাহুল দ্রাবিড়ের জুটির উচিত ছিল চতুর্থ দিনে ড্রেসিংরুম থেকে রাহুলকে সাহায্য করা। কানেরিয়া তার ইউটিউব চ্যানেলে পোস্ট করা একটি ভিডিওতে বলেছেন, “টিম ইন্ডিয়া ম্যাচে ব্যাকফুটে ছিল, তবে তাদের উচিত ছিল দক্ষিণ আফ্রিকাকে রান পেতে আরও কঠোর পরিশ্রম করা। এটি ঘটেনি এবং আফ্রিকান দল খুব সহজেই বাকি রানগুলি তৈরি করে ফেলেছে। বোলিং পরিবর্তন ভালো ছিল না। রাহুল প্রথমবার অধিনায়ক হওয়ার কারণে আমরা সমালোচনা করতে পারি না। বিরাট কোহলি এবং রাহুল দ্রাবিড়ের বোলিং পরিবর্তনের জন্য নির্দেশনা পাঠানো উচিত ছিল।”

কানেরিয়া বলেছিলেন যে রাহুলকে এই হারের জন্য তাকে দায়ী করা যায় না

IND vs SA Live Cricket Score: India vs South Africa Test Scorecard Live  Updates, SA vs IND 2nd Test Match Live Match Score Ball by Ball Updates

কানেরিয়া বলেছেন ভারতীয় থিঙ্ক ট্যাঙ্কের উচিত ছিল ফাস্ট বোলারদের ছোট স্পেলে বল করতে বলা। রবিচন্দ্রন অশ্বিনকে ঠিকমতো ব্যবহার করেনি টিম ইন্ডিয়া। কানেরিয়া বলেন, “তাদের ফাস্ট বোলারদের বলা উচিত ছিল – জসপ্রিত বুমরাহ, মহম্মদ শামি এবং মহম্মদ সিরাজকে ছোট স্পেল বল করতে। অশ্বিনকে ব্যবহার করা হয়নি। মাত্র ১১ রান বাকি ছিল তখন অশ্বিনকে ব্যবহার করা হয়েছিল। শামি এবং বুমরাহ রান দিয়েছেন। এটি একই ছিল। সিরাজের ক্ষেত্রে। টেস্ট ক্রিকেটে ধৈর্যই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।”

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *