দীর্ঘ নবছরের ঘরোয়া ক্রিকেটে মাত্র নটা উইকেট। মহারাষ্ট্র ও পশ্চিমাঞ্চলের হয়ে বল হাতে তেমন কোনও খেল দেখাতে না পারলেও, সেই পার্ট-টাইম বোলারটাই দেশের হয়ে আন্তর্জাতিক মঞ্চে টপাটপ উইকেট তুলে নিচ্ছেন, বাইশ গজে হাত ঘোরাতে এলেই। মিডল অর্ডার ব্য়াটসম্য়ান হিসেবে ভারতীয় দলে জায়গা পেলেও, গত এক বছরে বল হাতে প্রায়শই সাফল্য় পেতে দেখা যাচ্ছে কেদার যাদবকে। আশ্চর্যের বিষয়, অধিনায়ক বিরাট কোহলি মহারাষ্ট্রের এই ক্রিকেটারটির হাতে প্রথমবার যখন বল তুলে দেন, তখন কেউ ভাবতেও পারেননি, এমন পারফর্ম করবেন। ভাববেনই বা কি করে, ২৪২টি প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট ম্য়াচে বোলার কেদারের তখন মাত্র ১১০.৫ ওভার বল করার অভিজ্ঞতা। এছাড়া, লিস্ট এ ও টি-২০ ম্য়াচ খেলেছিলেন কয়েকটা।

অবাক করে দেওয়ার মতো  ব্য়াপার হলো, ঘরোয়া ক্রিকেটে বোলিংয়ে আহামরি পারফরম্য়ান্স না করলেও বোলার কেদার যাদব অধিনায়ক বিরাট কোহলির পরীক্ষায় প্রত্য়েক বারই পাশ করেছেন। অধিনায়কের আস্থার প্রতি সুবিচার করেছেন মোক্ষম সময়ে বিপক্ষ দলের বড় বড় ব্য়াটসম্য়ানদের উইকেট তুলে নিয়ে। বোলার যাদব তাঁর প্রথম ম্য়াচেই কেন উইলিয়ামসন, টম লাথাম ও কোরি অ্য়ান্ডারসনের মতো বাঘাবাঘা ব্য়াটসম্য়ানকে প্যাভিলিয়নের পথ দেখিয়েছিলেন। আবার ভারত-অস্ট্রেলিয়ার একদিনের আন্তর্জাতিক সিরিজের চতুর্থ ম্য়াচেরই কথা, দলের স্পেশালিস্ট বোলারদের যখন দুই অজি ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার ও অ্য়ারন ফিঞ্চ নাকানি-চোবানি খাইয়ে ছাড়ছেন, সেইসময় কেদার যাদব এসে ওই জুটি ভাঙেন।

বোলার কেদার যাদবের বল করার ধরন নিয়েও অনেকে অনেক কথা বলছেন। সাইডআর্ম অ্য়াকশন নিয়ে বল করতে এলেই ঠিক সময়ে ব্রেক থ্রু পাইয়ে দিচ্ছেন দলকে। ঠিক কি কারণে এই সাফল্য়, তা কেউই ঠাওরাতে পাচ্ছেন না! মহারাষ্ট্রের এই উঠতি তারকা সম্প্রতি বিসিসিআই টিভিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে প্রাক্তন অজি অধিনায়ক মাইকেল ক্লার্ককে বলেন, বিশ্বাস করুন, আমি নিজেও জানি না, আমি কি করে উইকেট তুলে নিই বল করতে এলেই। তবে, অধিনায়ক আমার কাছ থেকে যেটা আশা করছে, সেটা করে দিতে পারায় এবং তা দলের কাজে লাগায়, আমি খুশি। আর আমার ব্য়াটিংয়েও কাজে লাগছে ব্য়াপারটা। কারণ, বোলিংয়ে সাফল্য় পাওয়ায়, আমি এখন আরও অনেক আত্মবিশ্বাসী ব্য়াটসম্য়ান হিসেবে।

তবে, সময়ের সঙ্গে সব মিস্ট্রি বোলারই চেনা হয়ে যান বা তাঁদের রহস্য় ভেদ হয়ে যায়, আন্তর্জাতিক ক্রিকেট মানেই তাই। তবে, ততদিনে বোলার কেদার যাদব তাঁর ঝুলিতে আরও অনেক উইকেট পুরে নেবেন। গত রবিবার নাগপুরে সিরিজের শেষ তথা পঞ্চম একদিনের ম্য়াচে অজি অধিনায়ক স্টিভ স্মিথকে প্য়াভিলিয়নে পাঠান তিনি। এখনও পর্যন্ত কেদার একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১৬টি উইকেট নিয়েছেন।

নিজের ব্য়াটিং সম্পর্কে কেদার বলেন, আমি সবসময় আমার স্বাভাবিক খেলাটা খেলার চেষ্টা করে যাই। আমার নেওয়া শটগুলির মধ্য়ে আপনারা যেটা দেখেন, তা আমার সহজাত ভঙ্গি। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেকের সময় থেকে একই রকমভাবে খেলে আসছি। ক্রিজে নামার পর ১০-১৫টা বল সামলে খেলে থিতু হয়ে নিই। তারপর আমার পছন্দসই শট খেলা শুরু করি।

  • SHARE
    A sports enthusiast and a critic. Journalism is all about being unbiased to create positive influence from negative angle.

    আরও পড়ুন

    বাবা হলেন এই ভারতীয় ক্রিকেটার

    বাবা হলেন ভারতীয় ক্রিকেটের মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান চেতেশ্বর পুজারা। এক কন্যা সন্তানের পিতা হলেন তিনি। আর সে...

    ত্রিদেশীয় সিরিজের জন্য ভারতীয় দল ঘোষণা!

    শ্রীলঙ্কায় অনুষ্ঠিত ট্রাই সিরিজ নিদাহাস ট্রফি জন্য ভারতীয় দল ঘোষণা করল বিসিসিআই। কেমন হল দল একবার দেখে...

    ধোনির দিন শেষ? কি বললেন সৌরভ

    ধোনির দিন শেষ? কি বললেন সৌরভ
    সেই কবেই নেভিল কার্ডাস বলে গেছেন ওয়ান ডে ক্রিকেটে পাজামা ক্রিকেট বলে। ওয়ান ডে ক্রিকেটের জামানায় টেস্ট...

    জয়ের সমস্ত কৃতিত্বই ওর : রোহিত শর্মা

    দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টি২০ সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে হারার পর ভারতীয় দল আরও দারুণভাবে ফিরে এসে সেঞ্চুরিয়ানের সুপার...

    বিরাটের কাছেই স্পিন খেলা শিখেছি: স্টিভ স্মিথ

    বিরাটের কাছেই স্পিন খেলা শিখেছি: স্টিভ স্মিথ
    বিশ্ব ক্রিকেটে এই মুহুর্তে তাদের মধ্যে চলছে শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই। তা সত্ত্বেও এই দুজনের মধ্যে একে অপরকে সম্মান...