সম্প্রতি শেষ হওয়া নারী বিশ্বকাপ ক্রিকেটের ভারত কে তোলার অন্যতম কারিগর হলেন ঝুলন গোস্বামী। ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে ভারতীয় নারী দলের সর্বোচ্চ উইকেট সংগ্রাহক ঝুলন গোস্বামী বিশ্বকাপে মোট বারটি উইকেট লাভ করেন, যার মধ্যে সেমি ফাইনাল ও ফাইনালে ই নেন পাঁচটি উইকেট। এর মধ্যে সেমি ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে নেন ৩৫ রানে ২ উইকেট আর ফাইনালে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে পান ২৩ রানে ৩ উইকেট। ঝুলন গোস্বামীর এ সফলতার কথা সবাই জানলেও তিনি নিজেই যে বিশ্বকাপেরর মাঝ পথে তাকে দল থেকে বাদ দিতে বলেছিলেন তা হয়ত অনেকে ই জানেন না। ভারতীয় নারী দলের কোচ তুষার আরোঠে জানান ওয়েস্ট উইন্ডিজ কে ৭ উইকেটে হারানো ম্যাচ শেষে ঝুলন তাকে জানান যে চাইলে তাকে বাদ দিতে পারেন, কারন সে তার বোলিং যে ধারা, সে ধারা ও ছন্দ খুজে পাচ্ছেন না। ইংল্যান্ড ও ওয়েস্ট উইন্ডিজের সাথে প্রথম দুই ম্যাচে ঝুলন যথাক্রমে ৩৭ ও ৩৫ রান দিলেও তার ছন্দ খুজে পান নি, উইকেট পাওয়ার সাফল্যও ছিল না।

কোচ তুষার আরোঠে বলেন “আমি ঝুলনের কথা শুনে প্রথম খারাপ লাগলেও পরে এ ভেবে খুব খুশি হয়েছি যে সে নিজের কথা না ভেবে দলের কথা ভেবেছে।আমি তাকে বলেন সময় নেও সব ঠিক হয়ে যাবে।সব কৃতিত্ব তার নিজের। সে দলের একজন সিনিয়র খেলোয়ার এবং সিনিয়র খেলোয়ার হিসেবে সে নিজেই ভাল করে বুঝছিল সে কি বলছে।কিন্তু আমার পক্ষে কোন সিদ্ধান্ত নেওয়া খুব কঠিন ছিল। “

এ সময় ভারতীয় মিতালী রাজও ঝুলনের পাশে ছিলেন এবং তাকে বাদ না দেওয়ার কথা বলেছিলেন বলে জানান তুষার আরাঠে, মিতালী বলেন ” ঝুলন কি করে নিজের ব্যাপারে এমন ভাবতে পারল।সে আমাদের সিনিয়র খেলোয়ার, আমি তাকে বাদ দিচ্ছি না”। সে ভারতের তার অভিজ্ঞা দরকার ছিল এবং আমি ও মিতালী মিলে সিদ্ধান্ত নেই আমরা তাকে বাদ দিব না এবং আমরা তাকে মানসিকভাবে সমর্থন দিব যাতে সে স্বরূপে ফিরতে পারে। আমাদের তৃতীয় ম্যাচ ছিল পাকিস্তানের সাথে, আমরা ঝুলন কে বললাম সে যেন স্বাভাবিক থাকে এবং নিজের খেলাটা ই খেলেন। পাকিস্তানে বিরুদ্ধে সে পাঁচ ওভারে মাত্র ১২ রান দিয়ে ১টি গুরুত্বপূর্ণ উইকেট তুলে নেন। এরপর বাকি টুর্নামেন্টে সে কি করেছে তা তো সবার ই জানা!

তুষার আরোঠে আরো বলেন ” আমি জানি তাকে বুঝানো খুব কঠিন ছিল, কিন্তু তাকে বলি যে পরবর্তী চার পাঁচ দিন যেন একটু কঠোর পরিশ্রম করে। প্রথম ম্যাচগুলোতে তার সমস্যা গুলোর কারনে সে রান দিয়ে ফেলছিল কিন্তু সফলতা পাচ্ছিলেন আমি সে বিষয় গুলো নিয়ে কাজ করি এবং সেও কঠোর পরিশ্রম করেন ফলে দ্রুতই সফলতা দেখা দেয়। লর্ডে ফাইনাল ম্যাচের আগে সে প্রথমে নেটে ২৫ মিনিট বল করেন, এরপর সে যে পিচে খেলা হবে সে পিচে এক স্ট্যাম্পে বল করতে চায়। সে এক ঘন্টা মূল পিচের উভয় দিক থেকে বল করেন “!

  • SHARE
    A Cricket enthusiast who is pursuing his passion.

    আরও পড়ুন

    বাবা হলেন এই ভারতীয় ক্রিকেটার

    বাবা হলেন ভারতীয় ক্রিকেটের মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান চেতেশ্বর পুজারা। এক কন্যা সন্তানের পিতা হলেন তিনি। আর সে...

    ত্রিদেশীয় সিরিজের জন্য ভারতীয় দল ঘোষণা!

    শ্রীলঙ্কায় অনুষ্ঠিত ট্রাই সিরিজ নিদাহাস ট্রফি জন্য ভারতীয় দল ঘোষণা করল বিসিসিআই। কেমন হল দল একবার দেখে...

    ধোনির দিন শেষ? কি বললেন সৌরভ

    ধোনির দিন শেষ? কি বললেন সৌরভ
    সেই কবেই নেভিল কার্ডাস বলে গেছেন ওয়ান ডে ক্রিকেটে পাজামা ক্রিকেট বলে। ওয়ান ডে ক্রিকেটের জামানায় টেস্ট...

    জয়ের সমস্ত কৃতিত্বই ওর : রোহিত শর্মা

    দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টি২০ সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে হারার পর ভারতীয় দল আরও দারুণভাবে ফিরে এসে সেঞ্চুরিয়ানের সুপার...

    বিরাটের কাছেই স্পিন খেলা শিখেছি: স্টিভ স্মিথ

    বিরাটের কাছেই স্পিন খেলা শিখেছি: স্টিভ স্মিথ
    বিশ্ব ক্রিকেটে এই মুহুর্তে তাদের মধ্যে চলছে শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই। তা সত্ত্বেও এই দুজনের মধ্যে একে অপরকে সম্মান...