মহারাজ নিজেই জানালেন মায়ের প্রিয় খেলোয়ারের নাম 1

মহারাজ নিজেই জানালেন মায়ের প্রিয় খেলোয়ারের নাম 2

দেশের মহিলা ক্রিকেটের অন্যতম সেরা বিজ্ঞাপন ঝুলন গোস্বামী ।আরো অনেকের মতই প্রিন্স অফ কলকাতা খ্যাত সৌরভ গাঙ্গুলিও যে ঝুলনের খেলায় মুগ্ধ তা জানালেন সিএবি’র আয়োজনে ঝুলন গোস্বামীকে দেওয়া সম্মাননা অনুষ্ঠানে।ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত নারী বিশ্বকাপে ভারতকে ফাইনালে তোলার অন্যতম কারিগর তিনি।সেই ঝুলন গোস্বামী বিশ্বকাপ চলাকালীন জাতীয় দলের কোচকে অনুরোধ করেছিলেন তাঁকে দল থেকে বাদ দেওয়ার জন্য! ভারতীয় মহিলা ক্রিকেটারদের মধ্যে বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ উইকেটের মালকিন। ওয়ান ডে ক্রিকেটে সর্বোচ্চ সংখ্যক উইকেট। সমস্ত কিছুর মিলিত স্বীকৃতি।
সিএবি’র অনুষ্ঠানে মঞ্চে উঠে ঝুলন বললেন, ‘‘বিশ্বকাপের শুরুর দিকে নিজের ফর্ম নিয়ে নিজেই খুব চিন্তিত ছিলাম। বল হাতে ছন্দ পাচ্ছিলাম না। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ম্যাচের পর আমাদের কোচ তুষার আরোঠেকে বলেছিলাম, চাইলে আমাকে বাদও দিতে পারেন। উনি বুঝিয়েছিলেন যে, দলের তোমাকে প্রয়োজন।’’ তারপরই সেরা ফর্মে প্রত্যাবর্তন ঝুলনের। বিশ্বকাপে সেরা উইকেট কোনটা? সঞ্চালকের প্রশ্নে ঝুলন বললেন, ‘‘অস্ট্রেলিয়ার মেগ ল্যানিং।’’ শোনালেন মেগ-কে আউট করার জন্য কীভাবে প্রস্তুতি নিয়েছিলেন। ‘‘মেগ অফসাইডে খুব শক্তিশালী। নেটে আমি মিতালিকে অফসাইডে টানা বোলিং করতাম। তারপর ওর কাছে জানতে চাইতাম, কেমন বোলিং করছি। এভাবে প্রস্তুতি নেওয়ায় মেগ-কে বল করতে আমার সুবিধা হয়েছিল।’’ ঝুলনের কথা বলতে গিয়ে মুগ্ধ শোনাল সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের গলাও।
সিএবি প্রেসিডেন্ট বললেন, ‘‘আমার মা টিভিতে শেষ আমার খেলাই দেখেছেন। তারপর রবিবার ঝুলনদের বিশ্বকাপ ফাইনাল দেখেছিলেন। খেলা দেখার ফাঁকে মা বলছিলেন, ঝুলনরাই চ্যাম্পিয়ন হবে।’’ সৌরভ যোগ করলেন, ‘‘ঝুলনরা এবার হয়তো পারেনি। কিন্তু ওদের সামনে ফের সুযোগ আসবে। সামনেই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। সেখানেই ওরা চ্যাম্পিয়ন হতে পারে।’’
তিনি আরও বললেন, ‘‘ইডেনে যখন প্রথম ঝুলনকে প্র্যাক্টিস করতে দেখেছিলাম, আমি ভাবতাম ও এত লম্বা হল কী করে! ওর বয়স এখন ৩৪। এখনও অনায়াসে খেলা চালিয়ে যেতে পারে। এভাবেই খেলে চলো।’’ তবে ঝুলনকে সিএবি’র সাম্মানিক সদস্যপদ দেওয়ার কথা হলেও মঙ্গলবার তা দেওয়া হয়নি তাঁকে।
ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে ভারতীয় নারী দলের সর্বোচ্চ উইকেট সংগ্রাহক ঝুলন গোস্বামী বিশ্বকাপে মোট বারটি উইকেট লাভ করেন, যার মধ্যে সেমি ফাইনাল ও ফাইনালে ই নেন পাঁচটি উইকেট। এর মধ্যে সেমি ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে নেন ৩৫ রানে ২ উইকেট আর ফাইনালে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে পান ২৩ রানে ৩ উইকেট।
ভারতীয় নারী দলের কোচ তুষার আরোঠে জানান ওয়েস্ট ইন্ডিজ কে ৭ উইকেটে হারানো ম্যাচ শেষে ঝুলন তাকে জানান যে চাইলে তাকে বাদ দিতে পারেন, কারন সে তার বোলিং যে ধারা, সে ধারা ও ছন্দ খুজে পাচ্ছেন না। ইংল্যান্ড ও ওয়েস্ট উইন্ডিজের সাথে প্রথম দুই ম্যাচে ঝুলন যথাক্রমে ৩৭ ও ৩৫ রান দিলেও তার ছন্দ খুজে পান নি, উইকেট পাওয়ার সাফল্যও ছিল না। কোচ তুষার আরোঠে বলেন “আমি ঝুলনের কথা শুনে প্রথম খারাপ লাগলেও পরে এ ভেবে খুব খুশি হয়েছি যে সে নিজের কথা না ভেবে দলের কথা ভেবেছে। আমি তাকে বলেন সময় নেও সব ঠিক হয়ে যাবে।সব কৃতিত্ব তার নিজের।” এ সময় ভারতীয় মিতালী রাজও ঝুলনের পাশে ছিলেন বলে জানান তুষার আরাঠে, মিতালী বলেন ” ঝুলন কি করে নিজের ব্যাপারে এমন ভাবতে পারল। সে আমাদের সিনিয়র খেলোয়ার, আমি তাকে বাদ দিচ্ছি না”।

 

Nazmus Sajid

Sports Fanatic!

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *