অনুর্ধ্ব ১৬র সময় শ্রেয়স আইয়ারের বাবার মনে হয়েছিল যে তাদের ব্রেকআপ হয়ে গেছে, তারপর বের করলেন এই উপায়

ভারতীয় ক্রিকেট দলের তরুণ প্রতিভাবান ব্যাটসম্যান শ্রেয়স আইয়ার আজ ভারতীয় দলে নিজের বিশেষ জায়গা করে নিয়েছেন। ভারতীয় ক্রিকেট দলে শ্রেয়স আইয়ার প্রত্যাবর্তনের পর গত কিছু মাসে ভীষণই ভালো প্রদর্শন করেছেন। আইয়ার টি-২০ ক্রিকেটের পাশাপাশি ওয়ানডে ক্রিকেটে দুর্দান্ত ব্যাটিং করে নিজের জায়গা সুরক্ষিত করেছেন।

শ্রেয়স আইয়ার অনুর্ধ্ব ১৬র সময় চলে গিয়েছিলেন বিপথে

অনুর্ধ্ব ১৬র সময় শ্রেয়স আইয়ারের বাবার মনে হয়েছিল যে তাদের ব্রেকআপ হয়ে গেছে, তারপর বের করলেন এই উপায় 1

ভারতীয় দল গত প্রায় ৩ বছরের বেশি সময় ধরে চার নম্বর ব্যাটিং পজিশন নিয়ে লাগাতার সংঘর্ষ করছিল। এই ব্যাটিং পজিশনে বেশকিছু ব্যাটসম্যানকে পরীক্ষা করা হয় কিন্তু যে বিশ্বাস শ্রেয়স আইয়ার তৈরি করেছেন তা অন্য কোনো ব্যাটসম্যান তৈরি করতে পারেননি। আই আইয়ার এই জায়গা নিয়ে ভারতীয় দলের চিন্তা দূর করে দিয়েছেন। কিন্তু আজ যেভাবে ব্যাটিং করছেন আইয়ার তেমনটা অনুর্ধ্ব ১৬য় মুম্বাই দলে খেলার সময় প্রতিভা থাকা সত্ত্বেও করতে পারেননি তিনি। শ্রেয়স আইয়ার অনুর্ধ্ব ১৬র সময় হঠাত করেই বিপথে চলে গেছিলেন, যারপর তার বাবা তাকে এই খারাপ সময়ের থেকে তাকে টেনে বের করেন। শ্রেয়সের বাবা এটা নিয়ে খোলসা করেছেন।

শ্রেয়স আইয়ারের বাবা করলেন খোলসা

অনুর্ধ্ব ১৬র সময় শ্রেয়স আইয়ারের বাবার মনে হয়েছিল যে তাদের ব্রেকআপ হয়ে গেছে, তারপর বের করলেন এই উপায় 2

শ্রেয়স আইয়ারের বাবা সন্তোষ আইয়ার ক্রিকবাজের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে জানিয়েছেন যে,

“যখন শ্রেয়স চার বছরের ছিল, তখন আমরা বাড়িতে প্লাস্টিক বল দিয়ে ক্রিকেট খেলেছি। তাও ও বলকে এমনভাবে ক্যাচ করছিল যাতে আমার বিশ্বাস হচ্ছিল না যে ছেলের মধ্যে আসল প্রতিভা লুকিয়ে রয়েছে। এই কারণে আমরা এটা সুনিশ্চিত করার জন্য নিজেদের সাধ্যের মধ্যে সবকিছু দিয়েছি, যাতে ও নিজের ক্ষমতা পূর্ণ করতে পারে। যখন একজন কোচ আমাকে বলেন যে আপনার ছেলের মধ্যে প্রতিভা রয়েছে, কিন্তু ও রাস্তা থেকে মনোযোগ সরিয়ে ফেলেছে, তো আমি সামান্য চিন্তিত হয়ে পড়ি। আমার মনে হয়েছিল যে হয় ও প্রেমে পড়েছে নাহলে ভুল সঙ্গে পড়ে গিয়েছে”।

আইয়ারকে বোঝানোর বদলে নিয়ে গিয়েছিলেন মনোচিকিৎসকের কাছে

অনুর্ধ্ব ১৬র সময় শ্রেয়স আইয়ারের বাবার মনে হয়েছিল যে তাদের ব্রেকআপ হয়ে গেছে, তারপর বের করলেন এই উপায় 3

শ্রেয়স আইয়ারের ব্যাপারে এটা জানার পর তার বাবা নিজের ছেলের উপর প্র্যাকটিস করার চাপ দেন নি আর না তো বারবার জেদ করেন, বরং তিনি আলাদা উপায় বার করে শ্রেয়স আইয়ারকে একজন মনোচিকিৎসকের কাছে নিয়ে যান। সন্তোষ আইয়ার এরপর আগে বলেন,

“শেষমেশ ও আমাকে বলে যে আমি কিছু না করার জন্য চিন্তা করছিলাম। অধিকাংশ ক্রিকেটারদের মতো আইয়ার খালি কোনো না কোনো প্যাচের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছিল। নিশ্চিতভাবে এটা পর্যাপ্ত ছিল তারপর ও দ্রুতই নিজের ফর্ম হাসিল করে নেয় আর তারপর কখনো পেছনে ফিরে তাকায়নি”।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *