সৌরভ গাঙ্গুলী টসের সময় বিরোধী অধিনায়কদের কেনো করাতেন অপেক্ষা, ইরফান করলেন খোলসা

ভারতীয় ক্রিকেটের ছবি বদলে দেওয়া অধিনায়ক হিসেবে মনে করা প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলী কত বড়ো অধিনায়ক ছিলেন এটা তো পুরো ক্রিকেট জগত দেখেছে। ২০০০ সালে ম্যাচ ফিক্সিং কান্ডের পর বিতর্কে ফেঁসে যাওয়া ভারতীয় ক্রিকেট দলের নেতৃত্ব সৌরভ গাঙ্গুলীর হাতে আসে, যার পর তিনি দলকে জোশ, প্যাশন, শৈলি সবকিছুই বদলে দেন।

সৌরভ গাঙ্গুলীর অধিনায়কত্বে দেখা গিয়েছে আক্রামণত্মকতা

সৌরভ গাঙ্গুলী টসের সময় বিরোধী অধিনায়কদের কেনো করাতেন অপেক্ষা, ইরফান করলেন খোলসা 1

সৌরভ গাঙ্গুলী ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক হওয়ার পর একদম নতুনভাবে দল তৈরি করেন। এই দলে জোশ, আর হুঁশ দুটিকেই কায়েম রেখে তিনি এমন এক দল গঠন করেন যা বিপক্ষ দলকে তাদেরই মাটিতে চোখে চোখ রেখে জবাব দেওয়া শেখে। দাদার এই দলে একটা আলাদা রকমেরই আক্রামকতা দেখা গিয়েছে যা আগে ছিল না আর এটাই ভারতীয় দলের মানসিকতা বদলে দিয়ে তৈরি করেছিল সেই বিশ্বাস যে আমরা এশিয়ার বাইরে গিয়েও এই প্যাশনের সঙ্গে জিততে পারি।

সৌরভ গাঙ্গুলী প্রায়ই করাতেন বিরোধী দলকে টসের জন্য অপেক্ষা

সৌরভ গাঙ্গুলী টসের সময় বিরোধী অধিনায়কদের কেনো করাতেন অপেক্ষা, ইরফান করলেন খোলসা 2

টসের ব্যাপারে বিরোধী দলের অধিনায়ককে অপেক্ষা করানোর কথা তো স্বয়ং সৌরভ গাঙ্গুলীও মেনে নিয়েছেন, যিনি এটা নিয়ে আগেই কথা বলেছেন। তো তার এই স্বভাবের উল্লেখ স্টিভ ওয়া আর নাসের হুসেনের মতো অধিনায়কও করেছেন। সৌরভ গাঙ্গুলীর আক্রামণাত্মকতার একটি বিষয় যা সবসময়ই শিরোনামে থাকত সেটা হলো তার দ্বারা টসের সময় দেরীতে পৌঁছনোর বিষয়টি। গাঙ্গুলী এমনটা বেশকয়েকবার করেছেন যখন তিনি টসের সময় বিপক্ষ দলের অধিনায়ককে অপেক্ষা করাতে বা দেরীতে পৌঁছতেন। দাদার দেরী করে টসে পৌঁছনোর বিষয় নিয়ে নাসির হুসেন সম্প্রতিই নিজের প্রতিক্রিয়া দিয়েছিলেন।

গাঙ্গুলীর দেরী করে টসে পৌঁছনো নিয়ে ইরফান পাঠানের খোলসা

সৌরভ গাঙ্গুলী টসের সময় বিরোধী অধিনায়কদের কেনো করাতেন অপেক্ষা, ইরফান করলেন খোলসা 3

সৌরভ গাঙ্গুলীর এই অভ্যেস নিয়ে ভারতীয় দলে তার অধিনায়কত্বে খেলা প্রাক্তন অলরাউন্ডার ইরফান পাঠান বড়ো খোলসা করেছেন। ইরফান পাঠান স্টার স্পোর্টসের ক্রিকেট কানেক্টেড শোতে অস্ট্রেলিয়ায় স্টিভ ওয়াকে টসের জন্য অপেক্ষা করানোর বিষয় নিয়ে বলেন যে,

“আমি সেই সময় ড্রেসিং রুমে ছিলাম। ম্যানেজার ওনাকে টসের কথা মনে করিয়ে দেন। কিন্তু তারপরও দাদা সময়ে যাননি। সিডনি টেস্ট চলাকালীন শচীন পাজিও বলেছিলেন যে দাদা তোমার যাওয়া উচিৎ টসের সময় হয়ে গিয়েছে। কিন্তু দাদা নিজের জুতো, সোয়েটার, টুপিকে ঠিক করে সময় নষ্ট করতে থাকেন। যখ কোনো ব্যক্তি দেরী করেন তো চাপ তার চোখেমুখে দেখা যেতে থাকে। কিন্তু সাদা কখনও ব্যস্ত হতেন না”।

সৌরভ গাঙ্গুলী সম্প্রতিই অস্ট্রেলিয়া সফরে একটি ম্যাচে স্টিভ ওয়াকে অপেক্ষা করানো নিয়ে বলেছিলেন যে তিনি ইচ্ছাকৃতভাবে করেননি। তিনি ড্রেসিংরুমে নিজের সোয়েটার ভুলে গিয়েছিলেন। অধিনায়ক হিসেবে এটা তার প্রথম বড়ো সিরিজ ছিল আর তিনি নার্ভাস ছিলেন।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *