রঞ্জি চ্যাম্পিয়নদের বিরুদ্ধে লড়বে পুজারার অবশিষ্ট ভারত 1

শনিবার ইন্দোরে অধিনায়ক পার্থিব প্যাটেলের কাঁধে চড়ে ৪১ বারের রঞ্জি চ্যাম্পিয়ন মুম্বইকে হারিয়ে প্রথমবারের মতো ভারতের সর্বোচ্চ ঘরোয়া ক্রিকেট লিগের শিরোপা জিতলো টিম গুজরাট। এবারের রঞ্জি ট্রফিতে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সুবাদে সামনের ২০ থেকে ২৪ জানুয়ারির মধ্যে হতে চলা ইরানি কাপে অংশগ্রহণ করবে গুজরাট। তাদের প্রতিপক্ষ ভারতের অবশিষ্ট একাদশ। যে দলের নেতার ভুমিকায় দেখা যাবে সৌরাষ্ট্রের তারকা ব্যাটসম্যান চেতেশ্বর পুজারাকে।

মোট ১৫ সদস্যের দলকে নেতৃত্ব দেবেন পুজারা। ওই দলে খেলতে দেখা যাবে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ভারতের হয়ে টেস্টে অসাধারণ পারফরম্যান্স করা করুন নায়ারকেও, যিনি চেন্নাই টেস্টে ভারতীয় দলের হয়ে ব্রিটিশদের বিরুদ্ধে ত্রিশতরান হাঁকাতে সমর্থ হয়েছিলেন। নির্বাচকেরা এই দলে তামিলনাড়ুর ওপেনার ব্যাটসম্যান অভিনব মুকুন্দ, ঝাড়খন্ডের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান ঈশান কিষান এবং সদ্য শেষ হয়ে যাওয়া রঞ্জিতে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি শাহবাজ নাদিমকে (৫৬ উইকেট)রেখেছেন। যদিও ওই ম্যাচে উইকেটের পিছনে থাকার সম্ভাবনা সবচেয়ে উজ্জ্বল ভারতের টেস্ট উইকেটরক্ষক বাংলার ঋদ্ধিমান সাহার।

ইরানি কাপের ওই ম্যাচটা নিশ্চিতভাবে চ্যালেঞ্জের হতে চলেছে গুজরাট অধিনায়ক পার্থিব প্যাটেলের কাছে।ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে চোট পাওয়া ঋদ্ধিমান সাহার পরিবর্তে ভারতীয় দলে সুযোগ পেয়ে দারুণ পারফরম্যান্স করেছেন পার্থিব। তার রেশ বজায় ছিল সদ্য শেষ হয়ে যাওয়া রঞ্জিতেও। বাংলার অধিনায়ক মনোজ তেওয়ারিও (রঞ্জিতে তাঁর সংগ্রহ ৬৪৩) অবশিষ্ট ভারতের বাজি হতে পারেন। মুম্বই দলের তরুণ ক্রিকেটার পৃথ্বী শ’য়ের পরিবর্তে এই দলে সুযোগ পাচ্ছেন মুম্বইয়ের আরও এক পোড়খাওয়া ব্যাটসম্যান অখিল হোলকার। এই ক্রিকেটারটি রঞ্জিতে সর্বমোট ৪৬৭ রান তুলতে সক্ষম হয়েছিলেন। রঞ্জিতে তৃতীয় সর্বোচ্চ স্কোরার হিমাচল প্রদেশের প্রশান্ত চোপড়াও (৯৭৮) অবশিষ্ট ভারতীয় দলের ওপরের দিকে ব্যাট করতে নামতে পারেন। মুম্বইয়ের শারদুল ঠাকুর, তামিলনাড়ুর কৃষ্ণমূর্তি ভিগনেস এবং পঞ্জাবের সিদ্ধার্থ কাউলরা থাকছেন পুজারার দলের বোলিং বিভাগের দায়িত্বে।

ভারতীয় অবশিষ্ট দল – অভিনব মুকুন্দ, অখিল হোলকার, চেতেশ্বর পূজারা (অধিনায়ক), করুন নায়ার, মনোজ তেওয়ারি, ঋদ্ধিমান সাহা, কুলদীপ যাদব, শাহবাজ নাদিম, পঙ্কজ সিং, কে ভিগনেস, সিদ্ধার্থ কাউল, শারদুল ঠাকুর, অক্ষয় ওয়াখাড়ে, ঈশান কিষান এবং প্রশান্ত চোপড়া।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *