ইউএই তে যেতে হলে এই ৩ ফ্রেঞ্চাইজিকে একজন খেলোয়াড়কে করতে হবে ড্রপ

করোনা ভাইরাসের কারণ দীর্ঘ সময় ধরে স্থগিত থাকা আইপিএল ২০২০ শেষমেশ ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে ১০ নভেম্বর পর্যন্ত খেলা হবে। এই লীগের করোনার মধ্যে খেলা হবে, এই কারণে বোর্ড খেলোয়াড়দের সুরক্ষাকে মাথায় রেখে এসওপি জারি করে নিয়মের বিবরণ দিয়েছে। এতে জানানো হয়েছে যে একটি ফ্রেঞ্চাইজি ২৪জন খেলোয়াড়কেই নিজেদের দলে রাখতে পারে। এই কারণে এখন বর্তমান ৩টি ফ্রেঞ্চাইজিকে নিজের দলের একজন খেলোয়াড়কে বাদ দিতে হবে।

প্রত্যেক ফ্রেঞ্চাইজিতে থাকতে পারবেন ২৪জন খেলোয়াড়

ইউএই তে যেতে হলে এই ৩ ফ্রেঞ্চাইজিকে একজন খেলোয়াড়কে করতে হবে ড্রপ 1

করোনার মধ্যে আইপিএল ২০২০র আয়োজন ইউএইতে করা হচ্ছে। এই লীগের আয়োজনের জন্য বিসিসিআই ২ আগষ্ট হওয়া আইপিএল গর্ভনিং কাউন্সিলের মিটিংয়ের পর এসওপি প্রকাশ করেছে। এতে সুরক্ষার কারণে বেশকিছু নিয়ম করা হছে, যার অনুযায়ী ইউএই তে খেলা হতে চলা আইপিএলের ত্রয়োজধ মরশুমে প্রত্যেক ফ্রেঞ্চাইজি মোট সবচেয়ে বেশি ২৪জন খেলোয়াড়কেই দলে রাখতে পারবে। এই অবস্থায় প্রশ্ন ওঠে যে, যে খেলোয়াড়দের কাছে ২৪জনের বেশি খেলোয়াড় রয়েছে তারা কী করবে? আসলে বর্তমান সময়ে ৩টি ফ্রেঞ্চাইজি রাজস্তান রয়্যালস, কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব এবং সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ দলের কাছে ২৫ জন খেলোয়াড় রয়েছে। এই অবস্থায় তাদের একজন করে খেলোয়াড়কে বাদ দিতে হবে।

৫ বার করা হবে কোভিড টেস্ট

ইউএই তে যেতে হলে এই ৩ ফ্রেঞ্চাইজিকে একজন খেলোয়াড়কে করতে হবে ড্রপ 2

করোনা ভাইরাসের মধ্যে আইপিএল লীগের আয়োজন ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে ১০ নভেম্বরের মধ্যে করা হবে। কোভিড ১৯ মহামারীকে মাথায় রেখে, খেলোয়াড়দের সুরক্ষার পাশাপাশি সহায়ক কর্মচারীদের সুরক্ষাও সুনিশ্চিত করার জন্য আইপিএলকে শক্ত নিয়মের অধীনে খেলা হবে। ইউএই-র মাঠে নামার আগে খেলোয়াড়দের কম সে কম পাঁচবার করোনা ভাইরাসের টেস্ট করানোর আশা রয়েছে। বিসিসিআইয়ের এক আধিকারিক সম্প্রতিই খোলসা করেছিলেন যে সমস্ত ভারতীয় খেলোয়াড়দের আর সহায়ক কর্মচারীদের নিজের দলে শামিল হওয়ার এক সপ্তাহ আগে, এবং ২৪ ঘন্টা আগে দুটি কোভিড ১৯ আরটি-পিসিআর টেস্টের মধ্যে দিয়ে যেতে হবে, যেখানে তারা ১৪দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকবেন।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *