MIvsDC: ম্যাচ হারার পর সরাসরি একে দায়ী করলেন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স অধিনায়ক রোহিত শর্মা

আইপিএল ২০১৯ এর তৃতীয় ম্যাচ মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স আর দিল্লি ক্যাপিটালসের মধ্যে খেলা হচ্ছে। মুম্বাইয়ের অধিনায়ক টস জিতে প্রথমে বোলিং করার সিদ্ধান্ত নেন। মুম্বাই এই ম্যাচে কায়রণ পোলার্ড আর বেন কাটিং দুজনকেই প্লেয়িং ইলেভেনে সুযোগ দিয়েছে। এই ম্যাচ মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে খেলা হয়েছে।

দিল্লির দুর্দান্ত ব্যাটিং
MIvsDC: ম্যাচ হারার পর সরাসরি একে দায়ী করলেন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স অধিনায়ক রোহিত শর্মা 1
প্রথমে ব্যাটিং করতে নামা দিল্লি ক্যাপিটালসের শুরুটা খারা হয় আর দল প্রথম পাওয়ার প্লেতেই দুটি গুরুত্বপূর্ণ উইকেট হারিয়ে ফেলে। এরপর কলিন্স ইনগ্রাম আর শিখর ধবন দলকে মুশকিল পরিস্থিতি থেকে টেনে তোলেন। এরপর মুম্বাইতে ঋষভ পন্থ নামের বিধ্বংসী ঝড় আসে আর তিনি মুম্বাইয়ের সমস্ত বোলারদের নির্দয় প্রহার করেন। পঞ্চম বলে খাতা খোলা পন্থ ২৭ বলে ৭৮ রানের ইনিংস খেলেন। দিল্লি ২০ ওভারে ২১৩ রানের পাহাড় প্রমান স্কোর দাঁড় করায়।

মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স হাসিল করতে পারেনি লক্ষ্য
MIvsDC: ম্যাচ হারার পর সরাসরি একে দায়ী করলেন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স অধিনায়ক রোহিত শর্মা 2
জবাবে ব্যাট করতে নেমে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের শুরুটা ভালো হয়নি। আর প্রথম পাওয়ার প্লের মধ্যেই তারা ৪৩ রানে দলের তিন প্রধান ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে ফেলে। মুম্বাইয়ের অধিনায়ক তথা ওপেনার রোহিত শর্মাকে ছন্দে দেখালেও তিনি ১৩ বলে মাত্র ১৪ রান করে ঈশান্ত শর্মার বলে আউট হন। এরপর কুইন্টন ডি’ককও ১৬ বলে ২৭ রান করে ফিরে যান। দ্রুত রান আউট হন সূর্য কুমার যাদবও (২)। এরপরই মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের ইনিংসের হাল ধরেন যুবরাজ সিং এবং কায়রণ পোলার্ড। এই দুজনে মিলে দলের রানকে ১০ ওভারে ৯৫ রান পর্যন্ত নিয়ে যান। কিন্তু তাকে পোলার্ডকে ফিরিয়ে দিয়ে এই জুটি ভাঙেন কিমো পল। পোলারড ১৩ বলে ২টি চার এবং একটি ছক্কার সাহায্যে ৩২ রান করেন।

যুবরাজ-ক্রুণাল পাণ্ডিয়ার ব্যর্থ চেষ্টা
MIvsDC: ম্যাচ হারার পর সরাসরি একে দায়ী করলেন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স অধিনায়ক রোহিত শর্মা 3
এরপরই যুবরাজ সিং এবং ক্রুণাল পাণ্ডিয়া দলের হাল ধরে। এই দুজনে বেশ কিছু দুর্দান্ত শট খেলে মুম্বাইকে ম্যাচে ফিরিয়ে আনেন। কিন্তু ক্রুণালকে ফিরিয়ে দেন ট্রেন্ট বোল্ট। তিনি ১৫ বলে ৫টি চার এবং একটি ছক্কার সাহায্যে ৩২ রান করেন। এরপর যুবরাজ কিছুটা চেষ্টা করেন। এই ম্যাচে তাকে পুরোনো ছন্দেই দেখা যায়। কিন্তু তিনিও ৩৫ বলে ৩টি ছক্কা এবং ৫টি চারের সাহায্যে ৫৩ রান করে আউট হন। এরপর মুম্বাইয়ের উইকেট নিয়মিত অন্তরালে পড়তে থাকে। শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হন মিচেল ম্যাক্লেনাঘণ। আহত হওয়ায় ব্যাট করতে নামেননি জসপ্রীত বুমরাহ। আর মুম্বাই এই ম্যাচ ৩৭ রানে জিতে যায়।

ম্যাচ শেষে যা বললেন মুম্বাই অধিনায়ক রোহিত শর্মা
MIvsDC: ম্যাচ হারার পর সরাসরি একে দায়ী করলেন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স অধিনায়ক রোহিত শর্মা 4
ম্যাচ শেষে মুম্বাই অধিনায়ক রোহিত শর্মা বলেন,

“প্রত্যেকটা দলের জন্যই প্রথম ম্যাচ সবসময়ই চ্যালেঞ্জিং হয়। কারণ দলে প্রচুর নতুন প্লেয়ার রয়েছে। আমরা আজ প্রচুর ভুল করেছি যে কারণে এই ম্যাচ আমাদের হারতে হয়েছে। আমরা প্রথম দশ ওভার বল করার সময় ভীষণইভাবে ম্যাচের মধ্যে ছিলাম। কিন্তু যেভাবে ঋষভ পন্থ আজ ব্যাট করেছে তাতে ওকে আমাদের কৃতিত্ব দিতেই হবে। আমরা আমাদের লেংথ হারিয়ে ফেলেছিলাম এবং আমাদের পরিকল্পনা কার্যকর করতেও ব্যর্থ হয়েছি। কিন্তু এটা হতেই তাহকে কারণ প্রচুর নতুন ছেলে দলে রয়েছে এবং বোঝাপড়া হতে সামান্য সময় লাগবে। কিন্তু আমরা সকলেই পেশাদার খেলোয়াড় এবং আমাদের যত দ্রুত সম্ভব আমাদের ভুলগুলি থেকে শিক্ষা নিতে হবে। আজ আমাদের হাতে ৬জন বোলারের অপশন ছিল”।

MIvsDC: ম্যাচ হারার পর সরাসরি একে দায়ী করলেন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স অধিনায়ক রোহিত শর্মা 5
এই ম্যাচে একজন অতিরিক্ত স্পিনার না খেলানো নিয়ে রোহিত আগে বলেন,

“আমরা একজন অতিরিক্ত স্পিনার খেলাইনি কারণ আমি ভেবেছিলাম এই পিচ থেকে জোরে বোলাররা সাহায্য পেতে পারে। ওদের দলে প্রচুর বাঁহাতি প্লেয়ার ছিল তাই আমি নিশ্চিত ছিলাম না যে লেগ স্পিনার খেলালে সে পুরো চার ওভার বল করতে পারবে কিনা। আমরা কিভাবে ম্যাচ এগিয়ে নিয়ে যাব সে ব্যাপার একদম পরিস্কার ছিলাম। টিম কম্বিনেশন সম্ভবত পরের ম্যাচে পরিবর্তন হতে পারে, এবং তা নির্ভর করবে বিপক্ষের উপর। আমি ভেবেছিলাম পিচ খুব ভাল। বল খুব ভালভাবে ব্যাটে আসছিল। এবং আমরাও ম্যাচ ১৮০ পর্যন্ত নিয়ে গিয়ছি। কিন্তু আমাদের ব্যাটসম্যানরা কেউই বড়ো স্কোর করতে পারেনি। যুবি দুর্দান্ত ব্যাট করেছে। যদি শীর্ষ চার ব্যাটসম্যানের মধ্যে কেউ ৭০+ স্কোর করে দিত তাহলে হয় ম্যাচের ফলাফল অন্যরকম হতে পারত”।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *