আইপিএল দশের ফাইনাল ফিক্সড, ট্যুইটারে প্রমাণ দিয়ে জানিয়ে দিল এই ব্যাক্তিটি! 1

এতে কোনও সন্দেহ নেই, আইপিএলে বিশ্বের অন্যতম সেরা ক্রিকেট লিগ। আর এই বিনোদনমূলক ক্রিকেট টুর্নামেন্টটি প্রথম থেকেই বিতর্কের সঙ্গেই জড়িয়ে রয়েছে। ২০০৮ সাল থেকে চালু হওয়া এই কুড়ি-বিশের প্রতিযোগিতাটির গায়ে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের কালো দাগ লেগে যাওয়ায় মধ্যিখানে কিছুটা হলেও জৌলুস হারিয়েছিল। এবারেও তার উল্টোটা ঘটলো না। দূর্ভাগ্যক্রমে এবারের আইপিএলকে ঘিরে দেশজুড়ে চললো অবাধ বেটিং। পাশাপাশি পুলিশের জালে ধরা পড়েছে বড়সড় বেটিং চক্রের হোতারা।

আইপিএল ২০১৭ঃ ফাইনালে দেশজুড়ে অবাধ বেটিং, পুলিশের জালে আটক একাধিক বড় বেটিং চক্র !

কিছুদিন আগেই কানপুর থেকে তিনজন বুকিকে গ্রেফতার করেছিল উত্তরপ্রদেশ পুলিশ। গুজরাট লায়ন্স যে হোটেলে উঠেছিল, সেই হোটেলেই তিনজন ঘাঁটি গেড়েছিল। বেটিং চক্রের হোতা বাণ্টির খোঁজে এখনও তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ। তার মধ্যিখানে গত ৩রা মে একজন অজ্ঞাতপরিচয় টুইটার ব্যবহারকারী আইপিএল দশ প্রতিযোগিতার পুরোটাই ফিক্সড বলে টুইট করে সর্বত্রে সাড়া ফেলে দেন। জনৈক ব্যাক্তির নাম উদয় শেঠী। পরবর্তী সময়ে ৩ মে থেকে ২০ তারিখ পর্যন্ত তিনি আইপিএল নিয়ে যে সমস্ত ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন, তা সব অক্ষরে অক্ষরে মিলে গেছে। উদয় শেঠী নামের ওই ক্রিকেট সমর্থকের দাবি ছিল, হায়দরাবাদের ফাইনালে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সকে উড়িয়ে দিয়ে প্রথমবার আইপিএল চ্যাম্পিয়ন হবে রাইজিং পুণে সুপারজায়েন্ট। বাস্তবে রুদ্ধশ্বাস ফাইনালে পুণেকে মাত্র ১ রানে হারিয়ে টিম মুম্বই তৃতীয়বারের মতো আইপিএল ট্রফি জিতে নেওয়ায় সেই জনৈক ব্যাক্তির ভবিষ্যতবাণী নিয়ে প্রশ্ন উঠে যায়।

জনৈক ট্যুইটার ব্যবহারকারি ফিক্সিং’র অভিযোগ ছুঁড়ে দিলেন আইপিএলের দিকে!

এত সবের মধ্যেই সেই ট্যুইটারের মাধ্যমে ফের জোরালো হল আইপিএলে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের সম্ভাবনা। উদয় শেঠি নামক ব্যক্তিটি আইপিএল ফাইনাল বাদ দিয়ে ট্যুইটারে নিজের সব ভবিষ্যতবাণী মিলিয়ে দিতে পারলেও, নতুন আরও এক ব্যক্তির ট্যুইট সবকিছুকে রীতিমতো ছাপিয়ে গেল। আইপিএল ফাইনালকে নিয়ে তাঁর ভবিষ্যতবাণী দেখে একযোগে সবাই তাজ্জব। পাশাপাশি সবার মনে এখন যেন ঢুকেই পড়েছে যে, আইপিএল দশের ফাইনাল নিশ্চিতভাবে ফিক্সড ছিল। ২১ মে হায়দরাবাদের উপ্পলে আয়োজিত হল আইপিএল দশের ফাইনাল। মুম্বই ইন্ডিয়ান্স এবং রাইজিং পুণে সুপার জায়েন্টের মধ্যে হওয়া হাই ভোল্টেজ ফাইনালের সকালে ‘ক্রিকেট ইনসাইডার’ নামের এক অ্যাকাউন্টে জনৈক এক ব্যাক্তি ধারাবাহিকভাবে ট্যুইট করে গোটা ক্রিকেট দুনিয়ার নজর নিজের দিকে টেনে নেয়। ম্যাচে রোহিত শর্মা টস জিতে প্রথম ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন। যদিও সেই ব্যাক্তিটি সকালেই ট্যুইট করে আগেই বলে দেয়, “কে টস জিতবে, তাতে কিছু যায় আসে না। রাইজিং পুণে সুপার জায়েন্ট আগে বোলিং করবে। পুণে টসে জিতলে বোলিং নেবে এবং মুম্বই টসে জিতলে প্রথম ব্যাট করবে।” বাস্তবে অবশ্য সেটাই ঘটলো।

সময় যত গড়িয়েছে, ততই সত্যি হয়েছে ‘ক্রিকেট ইনসাইডার’-এর ট্যুইটগুলি। পরের ট্যুইটে সে লেখে, “কায়রন পোলার্ড মাত্র একটা ছয় মারবে।” ম্যাচে দেখা গেল পোলার্ড একটা ছক্কা হাঁকানোর পর মাত্র ৭ রান করে প্যাভিলিয়নে ফিরে যান।

তার তৃতীয় ট্যুইট ছিল, “এই ম্যাচে কোনও নো বল হবে না।” এত বড় ফাইনালে না মুম্বই, না পুণে সত্যি কেউই একটা নো বল করলো না।

চতুর্থ ট্যুইটে লেখেন, “এই ম্যাচে মুম্বই প্রথম ব্যাট করে ১২০ থেকে ১৩০ রান তুলবে। এবং ফাইনাল ম্যাচটা তারাই জিতবে।” এই বিষয়টি আপাতত সবার কাছে অজানা নয়।

তার পরের ট্যুইটটি ছিল, “পার্থিব প্যাটেল ১০ রানের বেশি তুলতে পারবে না।” ওই ম্যাচে পার্থিব ওপেনিং করতে নেমে মাত্র ৪ রান করে আউট হয়ে যান।

পরবর্তী ট্যুইটে সে বলে, “রাহুল ত্রিপাঠি ১০ রানের আগেই আউট হয়ে যাবেন।” গোটা মরশুমে পুণের হয়ে ভালো ব্যাটিং করা রাহুল ত্রিপাঠি ফাইনালে মাত্র ৩ রান করেন।

পরের ট্যুইটে লেখে, “স্টিভ স্মিথ ১০০ স্ট্রাইক রেটের মধ্যে ব্যাটিং করবে।” বাস্তবে দেখা যায় পুণে অধিনায়ক ৫১ বলে ৫০ রান করে স্ট্রাইক রেট মিলিয়ে দেন।

আবার ট্যুইট করে জানায়, “এ ম্যাচে স্মিথ সবচেয়ে বেশি রান করবেন।” সেটাই ঘটলো ফাইনাল ম্যাচে।

এবং সর্বশেষ ট্যুইটে সবার গায়ে কাঁটা দিয়ে সে বলে দেয়, “মুম্বই শেষ ওভারে ফাইনাল ম্যাচটা জিতে নেবে।” এই ঘটনাটিরও অন্যথা ঘটেনি। ম্যাচের শেষ বলে চার রান নিতে পুণের ব্যাটসম্যান ড্যানিয়েল ব্যর্থ হওয়ায় ১ রানে ফাইনাল জিতে নেয় রোহিতের মুম্বই ইন্ডিয়ান্স।

 

Leave a comment

Your email address will not be published.