দলের কর্ণধারের বিপক্ষে হেঁটে ধোনিকে নিয়ে যা বললেন প্রধাণ কোচ, জানলে অবাক হবেন 1
স্টিফেন ফ্লেমিং

অবশেষে মহেন্দ্র সিংহ ধোনিকে নিয়ে মুখ খুললেন রাইসিং পুনে সুপারজায়ান্টসের কোচ স্টিফেন ফ্লেমিং। সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে নিজের স্বভারসিদ্ধ ভঙ্গিতে ফিরেছে মাহি। প্রবল চাপের মুখে শান্ত থেকে দলের জন্য জয় ছিনিয়ে এনেছেন। এবার এই কীর্তির জন্যই ধোনিকে প্রশংসায় ভরিয়ে দিলেন দলের প্রধাণ কোচ।

ধোনি এবং তাঁর ইনিংসটি অসাধারণ ছিল, ট্যুইটারে তা স্বীকার করলেন বিরাট কোহলি!

অসাধারণ এই ইনিংসের প্রশংসা করতে গিয়ে ফ্লেমিং বলেন, “এটা একটা ভিন্টেজ প্রদর্শন নয় কী! এই প্রদর্শন একজন শ্রেষ্ঠ ম্যাচ ফিনিসারের একটি যুগপোযোগী প্রদর্শণ।” এই ভাষায় ধোনির প্রশংসা করলেন ফ্লেমিং। এই আইপিএলের প্রথম কয়েকটা ম্যাচে খারাপ প্রদর্শণ করার জন্য ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে ধোনিকে। খোদ দলের মালিকেরই ভাই সরব হয়েছিলেন ধোনির নিন্দায়। কিন্তু মুখে কোনও জবাব না দিয়ে ব্যাটেই সেই জবাব দিলেন মাহি।

সানরাইজার্সের বিরুদ্ধে ধোনি যখন খেলতে নামে তখন কার্যত নিশ্চিত হারের মুখে দাঁড়িয়ে পুনে। সেখান থেকে জেতার আশা হয়ত দলের অধিনায়কই ছেড়ে দিয়েছিল। কিন্তু নিজের খোলস ছেড়ে বেরিয়ে সর্বকালের সেরা এই ম্যাচ ফিনিসার ধীরে ধীরে ম্যাচটিকে নিজেদের করায়ত্ব করেন। এমন ইনিংস ধোনি আগেও খেলেছেন বহুবার। কিন্তু বেশ কয়েকদিন হল ধোনির মধ্যে এই আগ্রাসন লক্ষ্য করা যায়নি। যার ফলেই সমালোচনার ঝড় উঠেছিল। অবশেষে সব ঝড় শান্ত করে ধোনি ফিরলেন নিজের মহিমায়।

পুনের কোচ আরও বলেন, “একটা গুঞ্জনের সৃষ্টি হয়েছিল ধোনি শেষ কবে এমন একটা ইনিংস খেলেছেন। অনেককেই কষ্ট করে মনে করতে হত সেটা। তবুও আমরা এটা ভেবে খুশি হতাম ও একজন গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়ার। অবশেষে ও প্রমাণ করল যে, ও যখন নিজের চেনা ফর্মে থাকে সেদিন কোনও বোলারকেই কঠিন লাগে না। ও এখনও একজন বিধ্বংসী ব্যাটসম্যানই রয়েছে।”

তিনি আরও যোগ করেন, “ম্যাচ শেষ করার দৃষ্টিকোণ থেকে অনেকেই তাঁর ফর্ম নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিল। আমি বলব যে আমরা বেশ ভাগ্যবান যে ওর এই ফর্ম কম দেখতে পাই। ধোনির এই ধরনের ফর্মের জন্য আমরা চেন্নাই সুপার কিংসে অনেকটা লাভবান হয়েছি। এই দুর্ধর্ষ ফর্মের জন্য অনেকেই ঈর্ষা করত। সমস্ত বড় খেলোয়ারদের মতই, ধোনিও ঠিক সময়ে এই ফর্ম উজার করে দিল দলের জন্য।”

৩৫ বছর বয়সী রাঁচির এই ক্রিকেটার ভারতের অন্যতম বিচক্ষণ ক্রিকেটার। যথেষ্ঠ অভিজ্ঞতাও তাঁর রয়েছে। তাই সানরাইজার্সের বিরুদ্ধে এই কঠিন ম্যাচে মাথা ঠান্ডা রেখে ঠিক ছিনিয়ে নিলেন দু’টি পয়েন্ট। এই অসাধারণ গুণের প্রশংসা করে কোচ বলেন, “কঠিন সময়ে এইভাবে মাথা ঠান্ডা করে খেলাটা সত্যিই বিশাল সম্পদ। এই ম্যাচে ভেবেছিলাম ধোনি হয়ত নামতে অনেক দেরি করে ফেলেছে। ওই রান চেজ করার মত আমরা প্রথম দিকে ভাল রানও করতে পারিনি। কিন্তু নিজের শক্তি ও পেশাদারিত্বের পরিচয় দিয়ে ধোনি প্রমান করলেন কোনও রান চেজ করাটা অসম্ভব কিছু নয়। এদিন ভুনেশ্বর কুমার ভাল বল করেছেন।”

মুখ খুললেন করিনা, জানিয়ে দিলেন তাঁর প্রিয় ক্রিকেটারের নাম!

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *