আইপিএল ২০১৭ঃ ঘরের মাঠে কেআরের বিরুদ্ধে নামার আগে দেখে নেওয়া যাক দিল্লির সম্ভাব্য একাদশ 1
দিল্লি ডেয়ারডেভিলস

ইতিমধ্যেই আইপিএলের দশম সংস্করণের একটা সপ্তাহ কেটে গিয়েছে। এর মধ্যেই অনেক অপ্রত্যাশিত মুহুর্ত, যেমন একদিনে দুটি ম্যাচে হ্যাটট্রিক হওয়া, ১০ উইকেটে দারুণ জয় প্রভৃতি নানান চিত্র দেখেছি। প্রথম সপ্তাহে প্রতিটা দলই তাদের বেঞ্চে বসে থাকা খেলোয়ারদের মাঠে নামিয়ে দেখে নিয়েছে কার শক্তি কতটা। দ্বিতীয় সপ্তাহে আরও বেশকিছু ক্রিকেটার এসে যোগ দিয়েছে তাদের নিজ নিজ দলে।

দিল্লির বিরুদ্ধে কেকেআর-এর হয়ে নারিনের পরিবর্তে ওপেনিং করতে পারেন এই ইংলিশ ক্রিকেটারটি

আইপিএলের এই প্রথম পর্ব কাটার পর দিল্লি ডেয়ার ডেভিলস ও কলকাতা নাইট রাইডার্স নিজেদেরকে ইতিমধ্যেই প্রতিভাবান দল হিসেবে প্রমান করেছে। প্রথম ম্যাচে হারার পর পর পর দুটি ম্যাচে জয় পেয়েছে দিল্লি। তিন ম্যাচে চার পয়েন্ট পেয়ে দিল্লির এই ফ্রাঞ্চাইজি এখন তালিকার তৃ্তীয় স্থানে রয়েছে। রাইসিং পুনের বিরুদ্ধে ঐতিহাসিক জয় পেয়ে রান রেটের দিকেও সবার থেকে এগিয়ে আছে জাহির খানের দল। সোমবার দিন নিজেদের ঘরের মাঠে কেকেআরের বিরুদ্ধে এই আইপিএলে প্রথম মোকাবিলা করবে দিল্লি। এদিকে পয়েন্ট টেবিলের উপরে থাকা কেকেআর সদ্য সানরাইজার্সের মত শক্তিশালী দলকে হারিয়ে আত্মবিশ্বাসের চরমে। দিল্লিকে তাদের ঘরে মাঠে হারিয়ে নিজেদের জয়ের ধারা অব্যাহত রাখতে চাইছে নাইটরা।

এই মরশুমে জয় পরাজয়ের নীরিখে দুটি দলই সমানে সমানে টক্কর দিচ্ছে। তিনটে ম্যাচ খেলে দিল্লি মাত্র একটা হেরেছে। এদিকে কলকাতাও চারটের মধ্যে একটাতেই হেরেছে। তবে আইপিএলে ডেয়ারডেভিলসের বিরুদ্ধে কলকাতার ফল ভালই। অন্তত পরিসংখ্যান তাই বলছে। আইপিএলে দিল্লি ও কেকেআর মোট ১৭ বার মুখোমুখি হয়েছে। লিগ স্তরের এই ম্যাচে মোট ১০ বার কলকাতা ও দিল্লি ৭ বার জিতেছে। গত আইপিএলের মুখোমুখিতে দুজনেই একটি-একটি করে জয় পায়।

কলকাতার বিরুদ্ধে ঘরের মাঠে খেলতে নামার আগে একবার দেখে নেওয়া দিল্লির ইতিবাচক দিকগুলি। জাহির খান, অমিত মিশ্র, ক্রিস মরিস সম্বলিত দিল্লিতে বোলিং নিয়ে কোনও চিন্তা নেই। ব্যাটিংয়েও সঞ্জু স্যামসন, রিষভ পান্থদের শক্তিশালী ও আক্রমণাত্মক ব্যাটিং আলো দেখিয়েছে এই দলকে। ইতিমধ্যেই অসুস্থতা কাটিয়ে শ্রেয়াস আইয়ার নেটে ফিরেছে। শ্রেয়াসও একটা বড় শক্তি দিল্লির। ঘরোয়া ক্রিকেটের এই তরুণ তুর্কিরা দিল্লিতে কুইন্টন ডি কক ও জেপি দুমিনির ঘাটতি বুঝতে দেয়নি। এদিকে শ্রীলঙ্কা থেকে অলরাউন্ডার অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউসও যোগ দিয়েছে শিবিরে। তবে তাঁকে সত্ত্বর দলে আসতে গেলে কোরি অ্যান্ডরসন ও কার্লোস ব্রেথওয়েটের সঙ্গে লড়াই করতে হবে।

একবার দেখে নেওয়া যাক দিল্লির একাদশ কী হতে পারে –
স্যাম বিলিংস, সঞ্জু স্যামসন, শ্রেয়াস আইয়ার, করুণ নায়ার, রিষভ পান্থ, কোরি অ্যান্ডরসন, ক্রিস মরিস, প্যাট কামিন্স, অমিত মিশ্র, শাহবাজ নাদিম, জাহির খান।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *