আইপিএল ২০১৭ঃ রোহিতের পর ওয়াইড বল নিয়েই সরব হলেন অমিতাভ বচ্চন 1
অমিতাভ বচ্চন

সোমবারে রাইসিং পুনে সুপারজায়েন্ট ও মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের ম্যাচে ওয়াইড বল নিয়ে বিতর্ক কিছুতেই ধামাচাপা পড়ছে না। এদিনের এই ম্যাচ আইপিএলের অন্যতম সেরা ম্যাচ। মাত্র তিন রানে পুনের কাছে হারের জন্য এই একটা বলকে নিয়েই বিতর্ক দানা বেঁধেছে। রোহির শর্মা মাঠের মধ্যেই এই বিষয়ে আম্পায়ারের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়ায়, তাঁর ম্যাচ ফি ও কাটা গিয়েছে। কিন্তু তাও এই প্রসঙ্গ থেকে নজর সরছেই না ক্রিকেট প্রেমীদের। এবার খোদ বিগ বি টুইট করে আম্পায়ারকে একহাত নিলে এই বিষয়ে।

আইপিএল ২০১৭: পুণের বিরুদ্ধে ম্যাচে ফাইন হল মুম্বই অধিনায়ক রোহিত শর্মার

বলিউডের এই কিংবদন্তী অভিনেতা মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের একজন বিরাট ভক্ত। স্বাভাবিকভাবেই এদিনও মহারাষ্ট্রের এই ডার্বি ম্যাচ দেখেছেন চরম উৎসাহ নিয়ে। এদিনের ম্যাচে পুনের ১৬০ রান তাড়া করতে গিয়ে মুম্বইয়ের নিরন্তর উইকেট পড়লেও, শেষ ওভার পর্যন্ত তারা লড়াইতে ছিলেন। কারণ রোহিত শর্মা অর্ধশত রান করে দারুণ ফর্মে শেষ পর্যন্ত খেলে গিয়েছিলেন। ম্যাচের শেষ ওভারে মুম্বইয়ের দরকার ছিল ১৭ রান, যেখানে বল হাতে ছিলেন জয়দেব উনাদকট। প্রথম বলেই হার্দিক পান্ডিয়াকে আউট করে এই বাঁহাতি বোলার। এর পরের বলে রোহিতের কাছে একটা ওভার বাউন্ডারি খেলেও দমে যায় নি তরুণ এই বোলার। ঠিক তার পরের বলে রোহির অফ স্টাম্প ছেড়ে আরও অফের দিকে এগিয়ে আসছে দেখে সে একটু বাইরে বল করে। রোহিতও বলটি ওয়াইড হবে বলে ছেড়ে দেন। কিন্তু আম্পায়ার এস রবি বলটিকে বৈধ বলেই বিচার করেন। এই ঘটনায় মাঠের মধ্যেই রোহিত ও আম্পায়ারের মধ্যে বচসার সৃষ্টি হয়। অবশেষে ম্যাচটি মাত্র তিন রানে হারতে মুম্বইকে।

এই ম্যাচে ওই বলটি ওয়াইড দিলেই মুম্বই ম্যাচ জিততে পারত। এমনটাই মনে করেন বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা অমিতাভ বচ্চন। তিনি টুইট করে বলেন, “শেষ ওভারের ওই বলটা ওয়াইড ছিল। ওটাকে ওয়াইড না দেওয়ার জন্যই মুম্বই ইন্ডিয়ান্সকে মূল্য চোকাতে হল।

নিজের দলের জন্য আবেগ থাকবে এটাই খুব স্বাভাবিক। সেই কারণেই রোহিতের পথেই আম্পায়ারের বিপক্ষে হাঁটলেন কিংবদন্তী এই অভিনেতাও। তবে যাই হোক না কেন চাপের মুখে দাঁড়িয়ে আম্পায়ার এস রবির এই সিদ্ধান্ত, আম্পায়ারিংয়ের ইতিহাসের পাতায় লেখা থাকবে। তিনি এই সিদ্ধান্ত নিয়ে দেখিয়ে দিলেন, প্রভাবের সামনেও কখনও মচকায় না আম্পায়ারিয়ের দায়িত্ব।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *