এখনও প্লেঅফে যাওয়ার সুযোগ রয়েছে কিংস ইলেভেনের, এমটাই মনে করেন পাঞ্জাবের এই ব্যাটসম্যান 1
হাসিম আমলা

২০১৬-র আইপিএলে লিগ তালিকার একদম শেষে ছিল কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। নেতৃ্ত্বদানের কিছু সমস্যার জন্য গত আইপিএলে একটা টালমাটাল অবস্থা চলছিল এই ফ্রাঞ্চাইজির। এই বছর সেই কারণেই অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যান ও এই দলের অন্যতম বিশেষ ক্রিকেটার গ্লেন ম্যাক্সওয়েলকে অধিনায়কের দায়িত্ব দেয় প্রীতি জিন্টার এই দল। কিন্তু এই বছরেও দুর্ভাগ্য পিছু নিল পাঞ্জাবের।

দুটি পরপর ম্যাচ জেতার পর এই মরশুমে কিংস ইলেভেনকে বেশ আত্মবিশ্বাসী ও অপ্রতিরোধ্য দেখাচ্ছিল। কিন্তু এরপর পরপর চারটি ম্যাচে হারের পর কোথাও যেন সিঁদুড়ে মেঘ দেখছে টিম ম্যানেজমেন্ট। ইন্দোরে শেষ ম্যাচে হাসিম আমলার দুরন্ত শতরানে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের সামনে বিশাল বড় রানের লক্ষ্যমাত্রা রাখে কিংস ইলেভেন। আমলার মাত্র ৬০ বলে ১০৪ রানের অপরাজিত ইনিংসের ফলে পাঞ্জাবের রান গিয়ে দাঁড়ায় ৪ উইকেটে ১৯৮। আপেক্ষিকভাবে এই লক্ষ্য মাত্রায় জয়ের আশা করাটাই স্বাভাবিক। কিন্তু মুম্বইয়ের ব্যাটসম্যানদের চোখ ধাঁধানো ব্যাটিংয়ে কার্যত দুরমুশ হয়ে গেল পাঞ্জাবের বোলিং আক্রমণ। মাত্র ১৫.৩ ওভারেই এই বিশাল লক্ষ্যমাত্রা পার করে দেয় মুম্বই।

http://bengali.sportzwiki.com/5375/cbi-framed-charges-against-two-ed-workers-over-betting-probe/

আমলার জীবনের অন্যতম সেরা এই ইনিংসটি খেলার পরও দল না জেতায় স্বাভাবিকভাবেই বিষন্ন হয়ে পড়েছেন তিনি। ম্যাচের শেষে তিনি বলেন, “মুম্বই অত্যন্ত ভাল খেলেছে। এই রান চেজ করার জন্য প্রথম পাওয়ার প্লের মধ্যেই ওরা যেভাবে ব্যাট করেছে, তার ফলেই এই বিশাল রান তাড়া করতে কোনও অসুবিধা হয়নি ওদের।”

নিজেদের বোলিং বিভাগকে সরাসরি কোনও দোষরোপ না করেই তিনি বলেন, “বোলিং সাইড হিসেবে শুধু এটাই বলব মুম্বই খুবই ভাল খেলেছে। ওই কম সময়ের মধ্যে আমাদের বিশেষ কিছু করার ছিলনা। আমাদের বোলিং ও ব্যাটিং বিভাগকে পুণরায় মূল্যায়ন করতে হবে। কোথায় কি খামতি আছে তা দ্রুত মিটিয়ে নিতে হবে। এভাবেই গোটা দলের খেলায় উন্নতি সম্ভব।”

আইপিএলে এই প্রথম শতরান এল আমলার ব্যাট দিয়ে। দক্ষিণ আফ্রিকার এই ওপেনার ব্যাটসম্যান স্বভাবে বেশ শান্ত। তবুও এদিন নিজের দুর্দান্ত খেলার পর দল না জেতায় কিছুটা হলেও মর্মাহত হয়েছেন তিনি। তিনি আরও বলেন, “আমি নিজে বেশকিছুটা রান করতে পেরে খুবই খুশি। এটা ব্যাটিংয়ের জন্য খুব ভাল উইকেট ছিল। এছাড়া মাঠটাও ছোট ছিল। তবে পরপর এভাবে হেরে যাওয়া একেবারেই সুখকর নয়। আশাকরি সামনের ম্যাচগুলিতে আমরা ঘুরে দাঁড়াতে পারব।”

বেন স্টোকসের পর আমলাও ভারতীয় সমর্থকদের প্রশংসা করলেন। এখানকার মানুষের ক্রিকেট নিয়ে যে উচ্ছ্বাস উদ্দীপনা রয়েছে, তা আর কোনও দেশেই দেখতে পাওয়া যায় ন। আমলা বলেন, “দর্শকে ঠাসা এমন একটা আবহে খেলতে খুই ভাললাগে। এছাড়া এই পিচও খুব ভাল ছিল। খুবই ব্যাটিং সহায়ক। আগের দু’টো ম্যাচে খুব বেশি রান হয়নি, কারণ পিচ বোলিং সহায়ক ছিল। কিন্তু আজকের দিনটা ব্যাটিংয়ের জন্য দারুণ ছিল।”

কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব আরও একটা ম্যাচ হারলে কী করবে জিজ্ঞাসা করায়, ৩৪ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যান বলেন, “এই সাংবাদিক বৈঠকের পর দলের সবার সঙ্গে আলোচনা করা হবে যে ভবিষ্যতের ম্যাচগুলির জন্য কী ধরনের রণনীতির সঙ্গে আমরা এগোবো। আরও ৮টি ম্যাচ বাকি রয়েছে। এর মধ্যে অন্তত পাঁচটি ম্যাচ তো জিততেই হবে। সামনের ম্যাচগুলিতে যতটা সম্ভব আক্রমণাত্মক রূপ ধারণ করার চেষ্টা করব। আরও পিছিয়ে পড়ার আগে আমাদের যেকোনও ভাবেই এই লড়াইয়ে ফিরতে হবে।”

ছ’টি ম্যাচের মধ্যে পরপর চারটি ম্যাচ হেরে গেলেও আমলা মনে করেন তাঁর দল এখনও প্লে অফে পৌছতে পারে। তিনি বলেন, “অবশ্যই আমাদের প্লে অফে যাওয়ার সুযোগ আছে এখনও। বাকি ম্যাচগুলিতে পরপর জিততে পারলেই পুরো সমীকরণটাই বদলে যেতে পারে। এখন প্রতিটা দলের পক্ষেই একটা সুযোগ রয়েছে প্লে অফে যাওয়ার। এখনই বলা যাবেনা, কয়েকদিন পর কী হতে চলেছে।”

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *