হার্দিকে মজেছেন গ্রেট গাভাস্কার, কি বলছেন দেখে নিন! 1

অস্ট্রেলিয়ার ডেভিড ওয়ার্নার যেভাবে টি-২০ ক্রিকেটার হয়ে শুরু করার পর সব ধরণের ক্রিকেটে নিজেকে গড়পিটে নিয়েছেন, ভারতের তরুণ ক্রিকেটার হার্দিক পান্ডিয়ার মধ্য়েও সেই গুন রয়েছে বলে মনে করেন শচীন তেন্ডুলকরের পূর্বসরি ও ভারতের ব্য়াটিং লেজেন্ড সুনীল গাভাস্কার। সানি বলেন, ”হার্দিক সবে জাতীয় দলে খেলা শুরু করেছে, ফলে ওর হাতে এখনও অনেক সময় পড়ে রয়েছে নিজেকে জানান দেওয়ার। কিন্তু, টেস্টে ক্রিকেটে সফল হওয়ার মতো রসদ যে ওর মধ্য়ে রয়েছে, তা শ্রীলঙ্কায় টেস্ট সিরিজে দেখিয়ে দিয়েছে ও। হার্দিক ডেভিড ওয়ার্নারের মতো। আমার মনে হয়, ওয়ার্নারের পথ অনুসরণ করে ভবিষ্য়তে ওর কেরিয়ার গড়বে হার্দিক। তিন ধরনের ক্রিকেটেই সফল ক্রিকেটার হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করবে।”
শ্রীলঙ্কায় টেস্টের আসরে অভিষেক সিরিজে সবাইকে মুগ্ধ করেছে হার্দিকের পারফরমেন্স। একটি শতরান ও একটি অর্ধশতরান সহ ১৭৮ রান করেছেন ব্য়াট হাতে। তেইশ বছরের এই ক্রিকেটারটি পাল্লেকেলে টেস্টে ভারতের ঐতিহাসিক জয়ে বড় ভূমিকা নেওয়ায়, তাঁকে ম্য়ান অফ দ্য় ম্য়াচ বেছে নেওয়া হয়। এখানে বলে রাখা ভাল, তিন টেস্টের সিরিজে শ্রীলঙ্কা হোয়াইটওয়াশ করেছে ভারত। এই প্রথম শ্রীলঙ্কার মাটিতে কোনও ভারতীয় দল তাদের হোয়াইটওয়াশ করল। টেস্টে সিরিজে বল হাতেও হার্দিক মোক্ষম সময়ে ভারতকে উইকেট পাইয়ে দিয়েছেন।
শ্রীলঙ্কাকে ভারত যেভাবে তাদের মাটিতে উড়িয়ে দিয়েছে, তাতে বেজায় খুশি ভারতের প্রথম লিটল মাস্টার। ভারত অধিনানয়ক বিরাট কোহলির আক্রমণাত্মক মনোভাবের প্রশংসা করে সানি বলেন, ”সবচেয়ে বড় কথা হল, ভারতীয় ক্রিকেট দল একবারের জন্য়ও তাদের ফোকাস থেকে নড়েনি। জেতাই এই দলটার মূল উদ্দেশ্য় ছিল। শেষ দু’টি টেস্টে শ্রীলঙ্কাকে ফলো-অন করিয়ে বড় ব্য়বধানে জিতেছে ভারত। এখান থেকেই বোঝা যাচ্ছে, দলটা কতটা দাপুটে ক্রিকেট খেলছে। অনেকে বলছেন, এই শ্রীলঙ্কান টিমটা একেবারে দুর্বল। তাই ভারত সহজে জিতল। আমি বলব, তাতে কিছু এসে যায় না। ভারতীয় দল দাপটে জিতেছে, এটা কেউ অস্বীকার করতে পারবে না। বিরাট এই ভারতীয় দলটাতে অদম্য় মনোভাব এনে দিয়েছে।”
শ্রীলঙ্কায় টেস্টে সিরিজে হার্দিক পান্ডিয়া ছাড়াও ওপেনার শিখর ধওয়ন রান পেয়েছেন। ৩৫৮ রান করে ম্য়ান অব দ্য় সিরিজ হয়েছেন তিনি। ভারতের প্রাক্তন অধিনায়কের মতে চোট পেয়ে দল থেকে ছিটকে যাওয়া মুরলি বিজয়ের জন্য় এবার দলে ফেরা অনেকটাই মুশকিল হয়ে যাবে, শিখরের এই পারফরমেন্সের পর।
আগামী ২০ অগস্ট থেকে একদিনের সিরিজ শুর হবে। তারপর একটি টি-২০ ম্য়াচ। সে সম্পর্কে গাভাস্কার বলেন, ”ভারতের জেতা উচিত। কিন্তু, কাজটা অতটা সহজ হবে না। ভুলে গেলে চলবে না শ্রীলঙ্কা আইসিসি চ্য়াম্পিয়ন্স ট্রফিতে ভারতকে হারিয়েছিল। ফলে, বিরাটদের সতর্ক থাকতে হবে।”

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *