সন্ত্রাসে জর্জড়িত পাকিস্থান থেকে নিজেকে সরিয়ে নিল গেইল 1
ক্রিস গেইল

অশান্ত পাকিস্থানের কালো ছায়া পড়ল পাকিস্থান ক্রিকেটের উপরও। চলতি মাসের ১৩ তারিখ লাহোরে আত্মঘাতী বোমা বিষ্ফোরনের পর পাকিস্থান সুপার লিগ থেকে নিজেদের নাম তুলে নিলেন ‘দ্য ক্যারিবিয়ান স্ট্রম’ ক্রিস গেইল।ক্যারিবিয়ান তারকার আচমকা এই সিদ্ধান্তে পাকিস্থান ক্রিকেট বোর্ড মহা সমস্যায় পড়েছে।শুধু ক্রিস গেইল-ই নয়, এই অশান্তির জন্য পিএসএল থেকে নিজেদের নাম সরিয়ে নিয়েছেন শ্রীলঙ্কান দুই কিংবন্তী মাহেলা জয়বর্ধনে ও কুমার সাঙ্গাকারা। গেইল,জয়বর্ধনে ও সাঙ্গাকারা তিনজনেই পিএসএল ফ্রাঞ্চাইসি করাচি কিংসের হয়ে খেলছিলেন।
বিদেশি তারকা খেলয়ারদের নিয়ে পিএসএল জমে উঠেছিল ভালই। কিন্তু হঠাৎই ঘটল ছন্দপতন। ১৩ ফেব্রয়ারির রক্তাক্ত ঘটনার পর বিদেশি ক্রিকেটারদের মধ্যে এক ভীতির সঞ্চার ঘটেছিল। অনেকেই পাকিস্থানে গিয়ে আর খেলতে চায়ছিলেন না। এমত অবস্থায় গেইলের এই ঘোষনা পিএসএল এর তীরে এসে তরি ডোবাল। ঘরোয়া লিগের মূল আকর্ষণই হল বিদেশি খেলোয়ারদের চমক চেখে দেখা। আর শেষ পাতে এসে এভাবে সেই রাজভোগ না পাওয়ায় যে ক্ষোভ চরমে উঠবে তা বলাই যায়। আর তাই যেন তেন প্রকারেণ পিএসএল কর্তারা চাইছিলেন, ৫ মার্চের ফাইনাল লাহোরে না অনুষ্ঠিত করে যদি দেশের বাইরে কোথাও অনুষ্ঠিত করা যায়।
এই বিষয়ে আলোচনা করার জন্য সোমবার দুবাইতে এক বৈঠকে বসেন পিএসএল চেয়ারম্যান নাজিম শেঠি ও পাঁচ ফ্রাঞ্চাইসি। দীর্ঘক্ষন বৈঠকের পর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, লাহোরেই হবে ফাইনাল। যদি বিদেশি খেলোয়াররা না আসতে চায়, তাঁদেরকে বাদ দিয়েই হবে। তবে সব ফ্রাঞ্চাইসিই বেশকিছু নামী বিদেশি ক্রিকেটার নিয়ে মাঠে নামে। সেক্ষেত্রে হঠাৎ এই খেলোয়ার চলে যাওয়ার ফলে সমস্যার কথা মাথায় রেখে পিএসএল লিগের তরফে জানানো হয়েছে, দরকারে ফ্রাঞ্চাইসিগুলি নতুন খেলোয়ার নিযুক্ত করতে পারে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *