অবশেষে সানরাইজার্সের কাছে হারের কারণ ব্যাখা করলেন খোদ নাইট নেতা গম্ভীর 1

 

প্রথম ইনিংসে উপ্পলে শক্তিশালী প্রতিপক্ষ সানরাইজার্স হায়দরাবাদ পাহাড়প্রমাণ ২০৯ রানের স্কোর চাপিয়ে দেয় কলকাতা নাইট রাইডার্সের ঘাড়ে।এবারের আইপিএলে ধারাবাহিকভাবে ম্যাচ জিততে থাকা টিম কেকেআর-এর কাছে অবশ্য ওই বিশাল রানটা চেজ করা রীতিমতো কঠিন হয়ে দাঁড়ায়।কারণ, গুজরাট লায়ন্সের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক ব্যাটিং করে দলকে বড় জয় উপহার দেওয়ার নায়ক ক্রিস লিন চোট পেয়ে এখনও দলের বাইরে।তার ওপর টি-২০ ক্রিকেটে পাল্টা ইনিংস খেলতে নেমে ২০০-র বেশি রান চেজ করাটা যেকোনও দলের পক্ষে খুবই কঠিন।যে কাজটা করতে রীতিমতো ব্যর্থ হল এবারের আইপিএলের লিগ টেবিলের মগডালে থাকা দলটিও।২১০ রান চেজ করতে নেমে ১৬১ তে থেমে যায়।৪৮ রানে ম্যাচ হেরে নাইট নেতা অবশ্য সব দোষ চাপিয়ে দিলেন দলের দূর্বল ফিল্ডিং বিভাগের ওপর।

এবার বলিউড কুইন সানি লিওনের সঙ্গে জুটি বাঁধতে চলেছেন এই ভারতীয় ক্রিকেটার!

 

প্রায় প্রতি ম্যাচে অসাধারণ শুরু করা টিম কেকেআর হায়দরাবাদে ভালো শুরু করতে পারলো না। মাত্র ১২ রানের মধ্যে দুই ওপেনার সুনীল নারিন এবং অধিনায়ক গৌতম গম্ভীরকে হারিয়ে ফেলে।দলের দুই গুরুত্বপূর্ণ উইকেট এত কমরানের মাথায় পড়ে যাওয়ায় রীতিমতো চাপে পড়ে যায় কলকাতার দলটি।যদিও পরবর্তী সময়ে রবিন উথাপ্পা এবং মনীশ পান্ডে জুটি ক্রিজে ব্যাটে ঝড় তোলায় আশার আলো ফুটতে থাকে নাইট শিবিরে।যদিও সে আলোর ঝলকানি দীর্ঘস্থায়ী হয়নি।তৃতীয় উইকেটে ৭৮ রানের পার্টনারশিপ খেলে মনীশ পান্ডে ৩৯ এবং তার কিছুক্ষণ পর উথাপ্পা ৫৩ রান করে সাজঘরে ফিরে যান।এরপর নাইটদের আর কোনও ব্যাটসম্যান স্কোরবোর্ডে ঝড় তুলতে পারেননি। যার ফলে এবারের আইপিএলে সবচেয়ে ধারাবাহিক দলকে বিনা যুদ্ধে অস্ত্র সমর্পন করে যুদ্ধ ময়দান ত্যাগ করতে দেখা গেল।

 

ধোনির সঙ্গে নিজের তুলনা পছন্দ নয় দিল্লি ডেয়ারডেভিলসের এই ক্রিকেটারটির

হায়দরাবাদে কেকেআর-এর এমন আত্মসমর্পনের পিছনে অবশ্য দলের বোলারদের ব্যর্থতা চূড়ান্তভাবে প্রকট হচ্ছে।যদিও নাইট নেতা গম্ভীর দলের বোলিং ব্যর্থতার চেয়ে অনেকবেশি দুষছেন নিজের ফিল্ডিং বিভাগকে।ম্যাচ শেষে এক প্রতিক্রিয়ায় নিজের মনের কোণে লুকিয়ে থাকা ক্ষোভ প্রকাশ করে সরাসরি বলে দেন, ‘আমার মনে হয়, আমাদের দলের ফিল্ডিং বিভাগে অনেক উন্নতির প্রয়োজন আছে।এই মরশুমে আমরা সত্যি ভালো ফিল্ডিং করতে পারিনি।যদি প্রতিযোগিতায় ভালো ফলাফল করতে হয়, তাহলে নিশ্চিতভাবে ফিল্ডিং বিভাগে উন্নতি করতে হবে।’ একটু থেমে, ‘ক্যাচ ধরেই ম্যাচ জেতা যায়।আপনি যদি ডেভিড ওয়ার্নারের মতো ব্যাটসম্যানের ক্যাচ মিস করে দেন, তাহলে তার ফল তো আপনাকে ভোগ করতেই হবে।ওয়ার্নার হয়তো এত দূরে পৌঁছাতে পারতো না, যদি আমরা পাওয়া সুযোগকে কাজে লাগাতে পারতাম।এখন ঘরের মাঠে আমরা আরও দুটি ম্যাচ খেলবো।আমার বিশ্বাস, সেখানে আমরা অসাধারণ ক্রিকেট খেলতে পারবো।’

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *