চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির দলে গম্ভীরকে রাখার ব্যাপারে কোহলিকে ভাবতে বললেন এই প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটারটি 1

অফ ফর্ম এবং ওপেনিং স্লটে একাধিক নামকরা ক্রিকেটারদের ভিড়ের দোহায় দিয়ে বহুদিন নির্বাচকেরা জাতীয় দলের বাইরে রেখে দিয়েছেন দিল্লির বাঁ-হাতি ওপেনার ব্যাটসম্যান গৌতম গম্ভীরকে। অথচ চলতি আইপিএলে ধারাবাহিকভাবে নজরকাড়া ব্যাটিং করে নিজের ঝুলিতে বিশাল রান জমা করে কিছুদিন আগে পর্যন্ত ‘কমলা টুপি’র দখলকারীও ছিলেন গম্ভীর। পাশাপাশি তাঁর ধারাবাহিক পারফরম্যান্সের সুবাদে এখনও পর্যন্ত লিগ টেবিলের ওপরের দিকে রয়েছে টিম কেকেআর। আইপিএলে গম্ভীরের এই চমকপ্রদ পারফরম্যান্স দেখে এখন তাঁকে ফের জাতীয় দলে ফেরানোর আওয়াজ ক্রমে জোরালো হচ্ছে। এ ব্যাপারে টিম ইন্ডিয়ার প্রাক্তন টি ডি রবিশাস্ত্রীর সমর্থনও জোগাড় করে ফেলেছেন গৌতি। রবি শাস্ত্রীর পরিস্কার বক্তব্য, আসন্ন চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে ভারতীয় দলে গম্ভীরকে রাখার ব্যাপারে ভাবনা চিন্তা শুরু করে দিক জাতীয় দলের নির্বাচকদের পাশাপাশি অধিনায়ক বিরাট কোহলি।

অবশেষে সানরাইজার্সের কাছে হারের কারণ ব্যাখা করলেন খোদ নাইট নেতা গম্ভীর

এদিন সর্বভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যমকে এক প্রতিক্রিয়ায় ভারতের প্রাক্তন কিংবদন্তি ক্রিকেটার রবি শাস্ত্রী বলেন, “এবারের আইপিএলে যতগুলি দল খেলছে, সেই দলগুলির মধ্যে একমাত্র ওপেনার হিসেবে গৌতম গম্ভীরই ওপেনিং স্লটে ধারাবাহিকভাবে ভালো ব্যাটিং করে যাচ্ছে। ও প্রায় প্রতি ম্যাচে অসাধারণ ব্যাটিং করছে।পাশাপাশি প্রতিটা বল দেখেও খেলছে। ক্রিজে ওকে আটকানো যেন রীতিমতো কঠিনতম কাজ হয়ে দাঁড়িয়েছে বোলারদের কাছে। বর্তমান সময়ে গম্ভীর যেভাবে ব্যাটিং করে যাচ্ছে, তাতে ওর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কেরিয়ারের শুরুর দিনগুলির কথা মনে পড়ে যাচ্ছে।”

আসন্ন জুনে ইংল্যান্ডে আয়োজিত হতে চলেছে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি। সে দলে গম্ভীরের সুযোগ পাওয়া নিয়ে শাস্ত্রী আরও বলেন, “গম্ভীর নিশ্চিতভাবে সামনের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে ভারতীয় দলে নিজের জায়গা পাকা করে নিতে পারে। লোকেশ রাহুল চোট পেয়ে আপাতত জাতীয় দলের বাইরে। চলতি আইপিএলে রোহিত শর্মাও ওপেনিংয়ে খুব একটা ভালো পারফরম্যান্স করতে পারেনি। এই অবস্থায় আসন্ন সিরিজে ৩৪ বছর বয়সী গম্ভীরকে দলে রাখার কথা ভাবতে পারেন বর্তমান ভারতীয় দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলি।”

বিশেষ এই কারণে খেলায় মনোসংযোগ করতে অসুবিধা হচ্ছে নাইট নেতা গম্ভীরের!

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *