স্লেজিংয়ে কোন দোষ নেই, এমনটাই মত গৌতম গম্ভীরের 1
গৌতম গম্ভীর

পুনেতে অস্ট্রেলিয়ান বোলার স্টিভ ও’কিফের দূর্দান্ত বোলিং। বেঙ্গালুরুতে নাটকীয় ভাবে ভারতের সিরিজের সমতা ফেরানো। রাঁচিতে ক্রিজে দাঁত কামড়ে পড়ে থেকে পুজারার দ্বি-শতরান। খবরের দুনিয়ায় শিরোনাম হওয়ার কম কিছু রসদ জোগায়নি বর্ডার-গাভাস্কার ট্রফি। কিন্তু তবুও ডিআরএস বিতর্ক, ক্রিকেটারদের একে অপরের প্রতি বিদ্রুপ শিরোনাম হয়ে উঠে এসেছে এই সিরিজ ঘিরে। ভারত অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে খেলায় উত্তেজনা থাকবে এটাই স্বাভাবিক। তাই এই স্লেজিংকে কোনও অপরাধ বলেই মনে করেন না, ভারতের অন্যতম সেরা ওপেনার গৌতম গম্ভীর।

স্টিভ স্মিথের প্রশংসা করেই ভারতীয় বোলারদের র্ভৎসনায় ভরালেন ইয়ান চ্যাপেল

সাম্প্রতিককালে বর্ডার গাওস্কার ট্রফিতে বেশকিছু বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে। বিশেষ করে বেঙ্গালুরু টেস্টে স্লেজিং তীব্র মাত্রা নেয়। যা নিয়ে রীতিমত দুই দেশের প্রাক্তণ ক্রিকেটাররা, একে অন্যের সমালোচনায় মুখর হন। কিন্তু এই সমস্ত সমালোচানার পথে পা রাখলেন না গৌতম গম্ভীর। বরং, স্লেজিং কোনও খারপ বিষয় নয় এমনটাই বললেন তিনি। গম্ভীর বলেন, “খেলার মাঠে ভাল খেলার পাশাপাশি প্রতিপক্ষকে বিদ্রূপ করাটাও রণনীতির একটা ভাগ। যতক্ষণ না এটা কেউ ব্যক্তিগতভাবে নিচ্ছে, ততক্ষ্ণ এতে কোনও দোষ নেই।”

স্লেজিংয়ে দোষ তো দেখলেনই না, বরং খেলার জনপ্রিয়তা বাড়ানো দাওয়াই হিসেবে আখ্যা দিলেন প্রাক্তন ভারতীয় ওপেনার। তিনি বলেন, “স্লেজিং মাঝেমধ্যে খেলাকে আরও আকর্ষনীয় করে তোলে। এটা মাথায় রাখতে হবে রোবটরা মাঠে নেমে খেলছে না। সবাই সবার দেশের জন্য প্রতিনিধিত্ব করতে নেমেছে। তাই আবেগটা, বাস্তবিকতাকে ছাড়িয়ে যায় অনেকসময়ই।”

স্লেজিংকে সমর্থন করার পাশাপাশি নব্য অস্ট্রেলিয়ান দলের প্রদর্শণ নিয়েও বেশ মুগ্ধ গম্ভীর। অস্ট্রেলিয়ার এই দল প্রথম বার ভারতে এসে বেশ ভাল প্রদর্শন করেছে, এমনটাই মত পোষন করলেন প্রাক্তন এই তারকা ক্রিকেটার। গম্ভীর বলেন, “ভারত অবশ্যই সবার প্রিয় দল। তবে অস্ট্রেলিয়ার এই দল বেশ ভাল প্রদর্শন করেছে। হরভজন সিং, সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের মত বেশিরভাগ খেলোয়ারই ভবিষ্যতবানী করেছিলেন অস্ট্রেলিয়া হোয়াইট ওয়াশ হবে। সেই জায়গায় দাঁড়িয়ে বেশ ভাল খেলেছে তারা।”

গম্ভীর মনে করেন বিরাট কোহলির দল অস্ট্রেলিয়াকে বড্ড হালকাভাবে ধরে নিয়েছিল। এতেই তারা নিজেদের বিপদ নিজেরাই ডেকেছে। তবে ধর্মশালায় ম্যাচ জিতে ভারতই বর্ডার-গাওস্কার ট্রফি পাবে বলেই মনে করছেন এই প্রাক্তনী।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *