হায়দরাবাদের সঙ্গে পরাজয়ের পর প্রশ্নের মুখে ধোনির ব্যাটিং 1
মহেন্দ্র সিংহ ধোনি

মহেন্দ্র সিঙঘ ধোনি। ক্রিকেটে ভারতীয় দলকে এক গৌরবময় অধ্যায় দিয়েছেন প্রাক্তন এই অধিনায়ক। বিশ্বকাপ, টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি কী আসেনি ধোনির হাত ধরে ভারতের ঝুলিতে। কিন্তু মাত্র একটা ম্যাচের অসফলতা নিজের রাজ্যের দলের কাছে খলনায়ক করে রাখল ধোনিকে।

ক্রিকেটের নন্দনকাননে সিংহের রূপে ধোনির আর্বিভাব


ঠিক কী হয়েছিল? শুক্রবার বিজয় হাজারে ট্রফির গ্রুপ-ডি এর ম্যাচ ছিল ঝাড়খণ্ড ও হায়দরাবাদের। সেখানেই হায়দরাবাদের কাছে ২১ রানে সোচনীয় পরাজয় হয় ধোনির ঝাড়খণ্ডের। এই হারের কারণ হিসেবে ধোনির শ্লথ গতিতে রান বানানোকেই দায়ী করেছে ঝাড়খণ্ড টিম ম্যানেমেন্ট। এদিন ধোনি ৪৭ বলে মাত্র ২৮ রান করে হায়দরাবাদের অনামী স্পিনার মেহেদি হাসানের বলে আউট হয়ে যান। ঝাড়খণ্ড স্কোয়াডে একমাত্র লড়াই করে সৌরভ তিওয়ারি। তিনি ১০৪ বলে অসাধারণ ১০২ রান করেন। সৌরভ ছাড়া ঝাড়খণ্ড দলে আর কেউই রান পাননি। ফলে হায়দ্রাবাদের ২০৩ রান তাড়া করতে নেমে মাত্র ১৮২ রানে শেষ হয়ে যায় ঝাড়খণ্ডের ইনিংস। হায়দরাবাদের স্পিনার মেহেদি হাসান দূর্দান্ত বল করে ৩টি উইকেট নেন। এছাড়া রবি কিরণ ও চামা মিলিন্দ ২টি করে উইকেট নেন। ঝাড়খণ্ডের ব্যাটিং দুর্গে প্রথম ধস নামায় এই দুই সীমারই। পরে সেই যজ্ঞে ঘি ঢালেন মেহেদি।

আমি যখন খেলতাম, তখন রবি শাস্ত্রী খেলা দেখেননি : সৌরভ


ঝাড়খণ্ডের এই হারের পর বিজয় হাজারে ট্রফিতে কার্যত যাত্রা শেষ ধোনি ব্রিগেডের। কারণ, গ্রুপ টেবিলে কর্নাটক ও হায়দরাবাদের কাছে হেরে ঝাড়কণ্ডের দাঁড়িয়ে মাত্র ১২ পয়েন্টে। এদিকে হায়দরাবাদ ও কর্নাটক দু’জনেই আছে ১৬ পয়েন্টে। কাজেই ঝাড়খণ্ডকে পরের রাউন্ডে যেতে হলে জম্মু কাস্মীরকে বড় ব্যবধানে হারাতে হবে। সোমবার কল্যাণীতে ঝাড়খণ্ড ও জম্মু কাস্মীর মুখোমুখি হবে বাইশগজে। দুনিয়ার অন্যতম শ্রেষ্ঠ ফিনিশার, বিজয় হাজারে ট্রফিতেও কঠিন সময়ে দলকে টেনে তুলতে পারে কী না সেটাই এখন দেখার।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *