লকডাউনের মধ্যেই আইন ভেঙে ফাইনের কবলে পড়লেন ভারতীয় দলের এই তারকা

করোনা ভাইরাসের কারণে এই সময় পুরো বিশ্ব বাড়িতে বন্দী। বিশ্বজুড়ে হাজারো মানুষকে নিজের শিকার বানিয়ে ফেলা এই মহামারী বহু মানুষের প্রাণ নিয়েছে। সম্পূর্ণ ভারতে লকডাউন সত্ত্বেও পরিস্থিতি দিন প্রতিদিন গুরুতর হয়ে উঠছে, কারণ কিছু মানুষ লকডাউন নিয়ম মানছেন না। এর মধ্যেই খবর আসছে যে টিম ইন্ডিয়ার হয়ে খেলা ঋষভ ধবন কার্ফুর নিয়ম ভেঙে বাইরে বেরিয়েছিলেন।

ঋষি ধবনের হলো জরিমানা

লকডাউনের মধ্যেই আইন ভেঙে ফাইনের কবলে পড়লেন ভারতীয় দলের এই তারকা 1

করোনা ভাইরাসের গুরুত্ব বুঝে ভারতে ২১ দিনের সম্পূর্ণ লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। এর মধ্যে টিম ইন্ডিয়ার হয়ে খেলা অলরাউন্ডার ঋষি ধবন কার্ফুর নিয়মকে উলঙ্ঘন করেছেন। কোভিড -১৯ মহামারীর বৃদ্ধির মধ্যে মন্ডি এলাকায় কার্ফু জারি করা হয়েছিল। এই অবস্থায় ঋষি পুলিশের অনুমতি ছাড়াই যাতায়াত করছিলেন, যে কারণে তাকে জরিমানা করা হয়েছে। পুলিশ সুপারিন্টেন্ডট গুরুদেব চন্দ শর্মা মিডিয়াকে জানিয়েছেন যে ধবন জরিমানার টাকা দিয়েছেন। মন্ডির গান্ধী চকে যখন ধবন পৌঁছন তো পুলিশ তাকে আটকায়, তার কাছে গাড়ি নিয়ে বেরোনোর অনুমতি ছিল না। ডিএমের আদেশের মোতাবেক মন্ডিতে কোনো ব্যক্তিই অনুমতি ছাড়া গাড়ি নিয়ে বেরতে পারবেন না। খবরের মোতাবেক তাকে ৫০০ টাকা জরিমানা দিতে হয়েছে।

ভারতের হয়ে খেলেছেন ধবন

লকডাউনের মধ্যেই আইন ভেঙে ফাইনের কবলে পড়লেন ভারতীয় দলের এই তারকা 2

অলরাউন্ডার ঋষি ধবন ভারতীয় ক্রিকেট দলের হয়ে ২০১৬য় খেলার সুযোগ পেয়েছিলেন। কিন্তু অলরাউন্ডার ঋষি ধবন এই সুযোগের ফায়দা নিতে পারেননি আর দীর্ঘ সময় পর্যন্ত দলে টিকে থাকতে পারেননি। ধবন ভারতের হয়ে মোট ৩টি একদিনের ম্যাচ খেলছিলেন, যেখানে তিনি ১টি উইকেট নেন আর মাত্র ১২ রানই করতে পারে। সেই সঙ্গে ভারতের হয়ে একটি টি-২০আই ম্যাচে ধবন ১ রান করে আর মাত্র ১টি উইকেট হাসিল করেন। এছাড়াও এই অলরাউন্ডার আইপিএলে কলকাতা নাইট রাইডার্স, কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব, মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের হয়ে খেলেছেন।

ভারতের পরিস্থিতি নিরাশাজনক

লকডাউনের মধ্যেই আইন ভেঙে ফাইনের কবলে পড়লেন ভারতীয় দলের এই তারকা 3

ব্রিটেন, আমেরিকা, ব্রাজিল, ইতালির মতো বড়ো বড়ো দেশগুলিতে হাজার হাজার মানুষের প্রাণ নেওয়া করোনা ভাইরাস ভারতের নিজের প্রসার ঘটিয়েছে। ভারতে করোনা ভাইরাসের হট স্পট হয়ে যাওয়া এলাকাগুলিকে ভারত সরকার সম্পূর্ণ সিল করে দিয়েছে। এখনো পর্যন্ত ভারতে মোট সাড়ে ছয় হাজার মানুষ এই মহামারীতে সংক্রামিত হয়েছে অন্যদিকে ২০০ মানুষ নিজের প্রাণ হারিয়েছেন। দিন প্রতিদিন ভারতে করোনা গুরুতর হয়ে উঠছে। রিপোর্টসের কথা মানা হলে যদি একবার করোনা কমিউনিটি স্টেজে পৌঁছে যায় তো ভারতে মৃত্যুর ধারা আটকানো মুশকিল হয়ে যাবে। এখনো পর্যন্ত এই মহামারীর ভ্যাকসিন তৈরি হয়নি, এই কারণে বাড়িতে থাকাই এর একমাত্র বাঁচার উপায়।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *