মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের জয়ের পর ক্ষুব্ধ এই বলিউড অভিনেতা, আইপিএলকে বললেন ফিক্সড

রবিবার রাতে জোরে বোলার জসপ্রীত বুমরাহের দুর্দান্ত বোলিংয়ের দমে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স আইপিএল ২০১৯এর ফাইনাল ম্যাচে চেন্নাই সুপার কিংসকে এক রানের ক্লোজ ব্যবধানে হারিয়ে দিয়েছিল। এই ম্যাচে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৪৯ রান করেছিল, কিন্তু এই লক্ষ্যের জবাবে চেন্নাই সুপার কিংস নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে মাত্র ১৪৮ রানই করতে পারে।

হেরে যাওয়া বাজি জেতে মুম্বাই

মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের জয়ের পর ক্ষুব্ধ এই বলিউড অভিনেতা, আইপিএলকে বললেন ফিক্সড 1

চেন্নাই সুপার কিংসের এই ফাইনাল ম্যাচে জেতার জন্য শেষ ওভারে মাত্র ৯ রান দরকার ছিল আর তাদের ৫ উইকেট বাকি ছিল। বল যেখানে লাসিথ মালিঙ্গার হাতে ছিল অন্যদিকে শেন ওয়াটসন আর রবীন্দ্র জাদেজার মত ব্যাটসম্যান ছিলনে ক্রিজে। সকলেরই মনে হচ্ছিল যে এই ম্যাচে সহজেই চেন্নাই সুপার কিংস নিজেদের নামে করে নেবে। কিন্তু শেষে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স এই ম্যাচকে ১ রানের ক্লোজ ব্যবধানে জিতে নেয়। শেষ ওভারেই শেন ওয়াটসন আউট হয়ে গিয়েছিলেন। অন্যদিকে সুরেশ রায়না, আম্বাতি রায়ডু আর এমএস ধোনিও যথেষ্ট ভুল সময়ে দায়িত্বজ্ঞানহীনের মত আউট হয়ে গিয়েছিলেন।

কামাল রশিদ খান আম্বানির উপর আনলেন ফিক্সিংয়ের অভিযোগ

মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের জয়ের পর ক্ষুব্ধ এই বলিউড অভিনেতা, আইপিএলকে বললেন ফিক্সড 2

আপনাদের জানিয়ে দিই যে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের জয়ের পর বলিউড অভিনেতা কামাল রশিদ খান নিজের আধিকারিক টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে একটি টুইট করেছেন। যেখানে তিনি মুকেশ আম্বানির উপর ফাইনাল ম্যাচকে ফিক্সড করার গুরুতর অভিযোগ এনেছেন। তিনি বলেছেন যে মুকেশ আম্বানি নিজের পয়সার দমে ফাইনাল ম্যাচ জিতেছে। কামাল রশিদ খান নিজের অফিসিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে টুইট করে লিখেছেন,

“ধোনি, রায়না রায়ডুর জবরদস্তিভাবে আউট হওয়া আর ফের শেষ ওভারে শেন ওয়াটসনের অনাবশ্যক রান আউট হওয়া এই কথার প্রমান যে আম্বানি ভারতে যা খুশি করতে পারেন আর পয়সা এই দুনিয়ায় যা খুশি করাতে পারে”।

এখানে দেখুন কামাল রশিদ খানের টুইট

মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের জয়ের পর ক্ষুব্ধ এই বলিউড অভিনেতা, আইপিএলকে বললেন ফিক্সড 3

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *