হরভজন সিংয়ের প্রশংসায় ভাসছেন কুলদীপ যাদব 1

ভারতের এত বড় ক্রিকেট ইতিহাসে ওয়ানডেতে তাদের হ্যাটট্রিকের রেকর্ড সংখ্যা ছিল মাত্র দুই। প্রায় ২৬ বছর পর সেই সংখ্যাকে দুই থেকে তিন’এ নিয়ে এলেন বাঁ-হাতি তরুণ স্পিনার কুলদীপ যাদব। ১৯৮৭ সালের বিশ্বকাপে নাগপুরে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম ভারতীয় হিসেবে ওয়ানডে ক্রিকেটে হ্যাটট্রিক করেন চেতন শর্মা। চার বছর পরেই ১৯৯১ সালে কলকাতা ইডেন গার্ডেনসে শ্রীলংকার বিরুদ্ধে হ্যাটট্রিক করেছিলেন কপিল দেব আর বৃহস্পতিবার নিজের মাত্র নবম ওয়ানডে তে, কপিল দেবের পর কলকাতার ইডেন গার্ডেনসে ভারতীয় তৃতীয় বোলার হিসেবে এই ইতিহাস গড়েন কানপুরের ছেলে কুলদীপ যাদব। মজার ব্যাপার হল ভারতের ওয়ানডে ক্রিকেটে যে তিনটি হ্যাটট্রিক হয়েছে সব কয়টিই তাদের ঘরের মাঠে।

বৃহস্পতিবার অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে, পাঁচ ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে ইনিংসের ৩৩ তম ওভারে বল হাতে আসেন কুলদীপ আসেন কুলদীপ যাদব। ওভারের দ্বিতীয় বলে ম্যাথু ওয়েড কে সরাসরি বোল্ড করেন, পরের বলে নতুন ব্যাটসম্যান এস্টন এগার কে এলভি ডাব্লিউ এর মাধ্যমে সাজঘরে পাঠান, ওভারের চতুর্থ বলটিই ছিল ইনিংসের সেরা বল অসাধারণ এক গুগলি দিলেন বল কামিন্সের ব্যাটে ছুঁয়ে মাহেন্দ সিং ধোনির বিশ্বস্ত গ্লাভসে আশ্রয় নেয় ব্যা কুলদীপ যাদবের ইতিহাস গড়াও হয়ে গেল, তিনি সহ পুরো ইডেন গার্ডেনস তখন মেতে উঠে বুনো উল্লাসে।আর উল্লাসে মেতে উঠাই ছিল স্বাভাবিক কারণ কুলদীপ ভারতের তৃতীয় বোলার হিসেবে এই কৃতিত্ব দেখিয়েছেন তাও আবার অস্ট্রেলিয়ার মতো দলের সাথে। ম্যাচ শেষে সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে কুলদীপ যাদব বলেন, এটা আমার কাছে স্পেশাল। এটা ম্যাচের রুপ বদলে দিয়েছিল। এটা আমার কাছে গর্বের মুহূর্ত।

ম্যাচ শেষেই মিডিয়া ও লিজেন্ডদের প্রশংসায় ভাসেন কুলদীপ যাদব, ভারতীয় স্পিন লিজেন্ড হরভাজন সিং ও প্রশংসায় ভাসিয়েছেন এই তরুণ স্পিনার কুলদীপ যাদবকে। তিনি তার ব্যক্তিগত টুইটার একাউন্টে পোস্ট দিয়ে বলেন ” ইডেন গার্ডেনসে তোমার ভয়ংকর কৃতিত্ব দেখানোর জন্য ধন্যবাদ কুলদীপ যাদব, স্পেশাল ভেন্যুতে সব অফার সবসময় স্পেশাল কিছুই হয়” কুলদীপ যাদব ও ধন্যবাদ জানিয় রিপ্লাই দিয়েছেন। উল্লেখ্য হরভজন সিং ভারতীয় ক্রিকেট দলের অন্যতম লিজেন্ড, তিনি এখন পর্যন্ত ভারতের হয়ে ওয়ানডে, টি-২০, ও টেস্ট মিলিয়ে ৭১৭টি উইকেট শিকার করেছেন, রানের খাতার হিসাবও খারাপ না সব ফরমেট মিলিয়ে ৩৫৭০ রান করেছেন। এ রকম লিজেন্ডের প্রশংসা পেয়ে খুশি হওয়ারই কথা যাদবের এবং সামনের ম্যাচে অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করবে।

Nazmus Sajid

Sports Fanatic!

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *