অজি অধিনায়কের সর্বকালের সেরা দলে ক্রিকেট গডের সঙ্গী ভাজ্জি 1

বুধবার বিকেল বেলায় একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এসে অজি অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ ‘অধিনায়কত্ব’ করা নিয়ে দু-চার কথা বললেন। স্মিথ বলছেন, ”অধিনায়ক ব্য়াপারটা বেশ চ্য়ালেঞ্জের। আমি যখন দলে এসেছিলাম, সেই সময় স্পিন বোলার হিসেবে দলে ঢুকেছিলাম। তারপর ব্য়াটসম্য়ান হিসেবে নিজেকে তৈরি করেছি। ধাপে ধাপে ওপরের দিকে উঠতে উঠতে অধিনায়ক হয়েছি।” অজি অধিনায়ককে এরপর প্রশ্ন করা হয়, ধরুন আপনাকে সর্বকালের সেরা একাদশ তৈরি করতে বলা হলো, সেই দলে অস্ট্রেলিয়া ও ভারত থেকে দু’জন ক্রিকেটার বেছে নিতে হলে কাদের দলে নেবেন? স্মিথের উত্তর, ”অস্ট্রেলিয়ার থেকে আমার দলে শেন ওয়ার্ন ও ডন ব্রাডম্য়ানকে রাখবই। ভারত থেকে শচীন তেন্ডুলকর ও হরভজন সিং’কে আমার দলে রাখতে চাই।”

ইডেনে গার্ডেন্সে বৃহস্পতিবার ক্রিকেটার হিসেবে তাঁর কেরিয়ারের একশোতম ওয়ান-ডে ম্য়াচ খেলতে চলেছেন অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক। সিএবি’র ইন্ডোরে অনুশীলনের পর সাংবাদিক সম্মলনে সে প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে ভারতের বিরুদ্ধে খেলা তাঁর সবচেয়ে স্মরণীয় ম্য়াচের কথা জানান তিনি। অজি অধিনায়ক বলেন, ”২০১৫ সালে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ভারতের বিরুদ্ধে ১০৫ রান করেছিলাম। ওটাই আমার কাছে সবচেয়ে স্মরণীয়।” বিশ্বকাপে মাইকেল ক্লার্কের নেতৃত্বে অস্ট্রেলিয়া বিশ্ব চ্য়াম্পিয়ন হয়েছিল। তিনি এখন অবসর নিয়েছেন। তাঁর হাত থেকেই নেতৃত্বের দায়ভার নিয়েছেন স্মিথ। ব্য়াটসম্য়ান স্মিথকে বিরাটের চেয়ে এগিয়ে রাখলেও, নেতা স্মিথ ইডেনের মুখে চ্য়ালেঞ্জের সামনে বলেছেন ক্লার্ক। সে প্রসঙ্গে অজি অধিনায়ক বলেন, ”আমি কোনওরকম চাপে নেই। রেজাল্ট ঠিকমতো না এলেও, আমি কিন্তু চেষ্টার কোনওরকম গাফিলতি রাখছি না।” চেন্নাই ম্য়াচেও বৃষ্টি ভুগিয়েছে, কলকাতা ম্য়াচেও বৃষ্টির থাবা বসার আশঙ্কা। মাঠে তো অনুশীলন করাই গেলো না পরপর দু’দিন। এপ্রসঙ্গে স্মিথ বলেন, ”আবহাওয়া তো আমার হাতে নেই। কি করব? আমি সবসময় চাই পঞ্চাশ ওভারে সব ম্য়াচ হোক।”
চেন্নাইতে ভারতের অর্ধেক ব্য়াটিং লাইন-আপকে ৮৭ রানে প্য়াভিলিয়নে পাঠিয়ে দিলেও ম্য়াচ হেরে সিরিজে ১-০ ব্য়বধানে পিছিয়ে পড়ে কলকাতায় এসেছেন স্মিথরা। অনেকে বলছেন, মহেন্দ্র সিং ধোনি ও হার্দিক পান্ডিয়াকে ওই সময় আরও চেপে ধরা উচিত ছিল অজি দলনায়কের। স্মিথের আমলে অস্ট্রেলিয়া দল আগ্রাসী হলেও, পুরনো অস্ট্রেলিয়ান টিমের সেই ঝাঁঝটা ঠিকমতো দেখা যাচ্ছে না। কোথাও যেন একটা কমতি রয়ে যাচ্ছে। সে প্রসঙ্গে স্মিথ বললেন, ”আমি কিন্তু সেদিন ম্য়াচে কোনও চেষ্টাই বাকি রাখিনি। (ন্য়াথান) কল্টার-নাইল’কে এনে বলও করিয়েছিলাম। কিন্তু, জুটি ভাঙতে পারিনি। পরিকল্পনা সবই ছিল। শুধু তা ক্লিক করেনি।”
চেন্নাইতে অস্ট্রেলিয়ান টিমের খেলা দেখে কথা উঠেছে, স্পিন খেলতে অসুবিধে হচ্ছে স্মিথের দলের। ব্য়াপারটা কতটা সত্য়ি? অজি অধিনায়ক তা একেবারেই মেনে নিতে নারাজ। বললেন, ”কথাটা একেবারেই ঠিক নয়। আমরা ওয়ান-ডে ক্রিকেটে স্পিন বোলিং খুব একটা খারাপ খেলি না। শুধু চেন্নাই ম্য়াচ দেখে আমাদের পারফরম্য়ান্স নিয়ে বিচার করবেন না।”

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *