সতীর্থ খেলোয়াড়ের গার্লফ্রেন্ডকে রেপ করা এই অস্ট্রেলিয়ান খেলোয়াড়ের আবারও হলো সাজা 1

ক্রিকেটের সঙ্গে যুক্ত মানুষরা এই বিষয়ে ভীষণই লজ্জিত হন যে অস্ট্রেলিয়াতে জন্মানো এক তরুণ ক্রিকেটার অ্যালেক্স হেপবার্ন গত এক বছর ধরে ধর্ষণের শাস্তি ভোগ করছেন। তিনি এখন এক বছর পর নিজের সাজার বিরুদ্ধে অ্যাপিল করেছিলেন। যা নিয়ে এখন রায় বেরিয়েছে। যা অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার অ্যালেক্স হেপবার্নের মুশকিল আরো বেশি বাড়িয়ে দিয়েছে।

অ্যালেক্স হেপবার্ন সাজার বিরুদ্ধে করেছিলেন অ্যাপিল

সতীর্থ খেলোয়াড়ের গার্লফ্রেন্ডকে রেপ করা এই অস্ট্রেলিয়ান খেলোয়াড়ের আবারও হলো সাজা 2

২০১৩য় অস্ট্রেলিয়ায় জন্মানো হেপবার্ন ইংল্যান্ডে চলে গিয়েছিলেন, যার কারণ হলো তিনি সেখানে খেলতে চেয়েছিলেন। অ্যালেক্স হেপবার্ন কাউন্টি ক্রিকেটে বুস্টারশায়ারের দলের হয়ে খেলতেন। ২০১৭য় তার বিরুদ্ধে এক মহিলা ধর্ষণের অভিযোগ করেন। ওই মহিলা জানিয়েছিলেন যে হেপবার্ন নিজের সতীর্থ খেলোয়াড়ের রুমে ঢুকে তাকে ধর্ষণ করেছিলেন। সেই কেসে গত বছর কোর্ট হেপবার্নকে ৫ বছরের সাজা শুনিয়েছিল। যার বিরুদ্ধে তিনি কোর্টে অ্যাপিল করেন। যা নিয়ে এখন রায় বেরিয়েছে। এই মামলার শুনানি লর্ড চিফ জাস্টিস বার্নেট দ্বারা নেওয়া হয়েছে। যেখানে এই খেলোয়াড়কে আরো একবার দোষী পাওয়া গিয়েছে যে কারণে তার উপর লাগা ৫ বছরের সাজা বজায় থাকবে।

এমন ছিল অ্যালেক্স হেপবার্নের কেস

সতীর্থ খেলোয়াড়ের গার্লফ্রেন্ডকে রেপ করা এই অস্ট্রেলিয়ান খেলোয়াড়ের আবারও হলো সাজা 3

ওই মহিলা জুরির সামনে জানিয়েছিলেন যে ইংল্যান্ডের খেলোয়াড় জো ক্লার্কের সঙ্গে তার আলাপ একটি পাবে হয়। তাদের বন্ধুত্ব হয় আর তিনি কিছু সময় পরে তার রুমে ছিলেন। কিছু সময় পর সেখানে অন্ধকার হয়ে যায়। তিনি বলেন যে অন্ধকারের কারণে তার মনে হয়েছিল যে তিনি জো ক্লার্কের সঙ্গে শুয়ে আছে, কিন্তু সেই সময় রুমে অ্যালেক্স হেপবার্ন ছিলেন। তিনি আরো জানান যে অস্ট্রেলিয়ার ভাষার ব্যবহার আর যেভাবে অ্যালেক্স তার চুল ছুঁয়েছিলেন তাতে বোঝা গিয়েছিল যে তিনিই হেপবার্ন। হেপবার্ন তার প্রশংসা করছিলেন আর তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক গড়ার জন্য মানাচ্ছিলেন। যখন তিনি তাতে রাজি না হন তো অ্যালেক্স তাকে ধর্ষণ করেন।

অল্প বয়সে শেষ হয়ে গিয়েছে হেপবার্নের ক্রিকেট কেরিয়ার

সতীর্থ খেলোয়াড়ের গার্লফ্রেন্ডকে রেপ করা এই অস্ট্রেলিয়ান খেলোয়াড়ের আবারও হলো সাজা 4

ওই মহিলার দ্বারা আনা সমস্ত অভিযোগকে সঠিক মনে করা হয়নি, কিন্তু ধর্ষণের কথা প্রমানিত হয়। যে কারণেই তার ৫ বছরের সাজা হয়। কাউন্টি ক্রিকেটেও তার কেরিয়ারে প্রভাব পড়ে। এখন তার উপর সারা জীবন বড়ো স্তরে ক্রিকেট খেলার ব্যান লাগানো হয়েছে। এই ঘটনার সময় অ্যালেক্স হেপবার্নের বয়স ছিল মাত্র ২৩ বছর। যে কারণে বলা যেতে পারে যে ছোট বয়সে তার কেরিয়ার শেষ হয়ে গিয়েছে।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *