দেশভক্তি হোক কিংবা নারী স্বশক্তিকরণ – এসব নিয়ে জনজাগরণ আনতে সবার আগে তাঁকেই দেখা যায়। সাচ্চা দেশভক্ত যাকে বলে একেবারে তাই। অক্ষয় কুমার। নামটা বলার পর, মানুষটা সম্বন্ধে আর নতুন করে পরিচয় করিয়ে দিতে লাগবে না। হ্য়াঁ, বলিউডের সেল্ফ-মেড ম্য়ানদের মধ্য়ে একজন। তারচেয়েও বেশি পরিচিত, তিন বড় খানের রাজত্বের মধ্য়েও নিজের দমে টিকে রয়েছেন এখনও, সেই একই সময় থেকে। নিজের একটা আলাদা ঘরানাও সৃষ্টি করে নিয়েছেন হিন্দি সিনেমার জগতে। অক্ষয়ের সিনেমায় আলাদা মেসেজ থাকে। বেবি, স্পেশাল ছব্বিশ, এয়ারলিফ্ট, রুস্তমের মতো আরও কত ছবি – তাঁর সিনেমা দেখতে বসলে দেশভক্তি ভেতর থেকে এমনিই বেরিয়ে আসে। নারী স্বশক্তিকরণ নিয়ে যখন কথা বলেন, শোনার পর ভেতরের নিখোঁজ হয়ে যাওয়া ভালো মানুষটা যেন আপনা থেকেই চাড়া দিয়ে ওঠে কোথা থেকে।

মহিলারা সবার সামনে উদাহরণ রাখার মতো কিছু করলেই সবার আগে ছুটে যাওয়ার চেষ্টা করেন – কুর্নিশ জানাতে, অভিনন্দন জানাতে, উৎসাহ দিতে। গত রবিবার লর্ডসে আইসিসি মহিলা ক্রিকেট বিশ্বকাপের ফাইনাল ছিল। এবার ভারতের মহিলা দল দুর্দান্ত পারফরমেন্স দেখিয়েছে। ভারতীয়দের মধ্য়েও একটা অজানা উৎসাহ তৈরি হয়েছিল মেয়েদের কৃতিত্বে। শচীনদের এতদিন যেমন চিয়ার করে এসেছে বা বিরাটদের এখন যেমন চিয়ার করে ভারতীয় ক্রিকেটপ্রেমীরা, মিতালিদেরও একইরকমভাবে চিয়ার করছিল সবাই। উৎসাহ ছিল ফাইনাল ম্য়াটা দেখার। বিশ্বকাপ জেতার জন্য়, যাকে বলে এনথু দেওয়ার।

আর পাঁচটা ভারতীয়ের মতো অক্ষয়ও মহিলা বিশ্বকাপের ফাইনাল নিয়ে উইসাহিত ছিলেন। বলিউডের হিরো, পকেটে টাকারও অভাব নেই, আর শ্য়ুটিংয়ের কারণে বিদেশ যাওয়া তো হামেশাই হয়। তো ফাইনাল দেখতো সোজা হাজির লর্ডসেই। কিন্তু, উৎসাহের বশে এমন করে বসলেন যে আর কিছু বলার নেই। যা একেবারেই অক্ষয়সুলভ আচরণ নয়।

লর্ডসে খেলা দেখতে যাওয়ার জন্য় ট্রেন ধরেন। যেতে যেতেই চলছিল ট্য়ুইট। একটি ভিডিও পোস্ট করেন আবার। সেখানে বলছিলেন, ‘আমি খুব উত্তেজিত। এরম উত্তেজনা এর আগে কখনও অনুভব করিনি। খালি পায়ে ট্রেন ধরতে দৌঁড়েছি।’ ম্য়াচ অবশ্য় প্রথম থেকে দেখা হয়নি অক্ষয়ের। ভারতের ব্য়াটিংটা অবশ্য় পুরে দেখেছেন। ট্য়ুইটও করেছেন একনাগাড়ে। আর তখনই ঘটান সেই বিপত্তি। ভারতীয় মহিলা দলকে উৎসাহ দেওয়ার উত্তেজনার চোটে খেয়ালই ছিল না একেবারে। পতাকা নেড়ে চলেছেন। ব্য়াস, টেলিভিশন ক্য়ামেরায় ধরাও পড়ল।

বলিউডের হিরো মাঠে খেলা দেখতে হাজির আর ক্য়ামেরার নজর যাবে না – এ হতে পারে না। সবারও নজরও চলে গেল অক্ষের দিকে। দেখা গেল প্রবল উইসাহে ভারতের তেরঙা ওড়াচ্ছেন আক্কি। দিকবিদিগ জ্ঞান নেই যে পতাকাটা উল্টো ধরে আছেন। ব্র্য়ান্ড ইন্ডিয়ার সাচ্চা দেশভক্ত হওয়া তো পরের কথা, জাতীয় পতাকা এভাবে উল্টো করে ধরা একজন ভারতীয়ের পক্ষে অত্য়ন্ত লজ্জাজনক। আর উৎসাহের চোটে সেটাই খেয়াল রইল না। জাতীয় পতাকাকে অজান্তেই অপমান করে বসলেন আক্কি। তা দেখার পর তৎক্ষণাত ভারতীয় সমর্থকরা তেমন প্রতিক্রিয়া না জানালেও, ভারত ফাইনাল ম্য়াচটি হেরে যাওয়ার পর অনেকেই অক্ষয়ের ওইভাবে উল্টো করে ভারতের জাতীয় পতাকা ওড়ানো নিয়ে সরব হন।

SHARE

আরও পড়ুন

মহেন্দ্র সিং ধোনির সবচেয়ে বড়ো সমালোচক মাইকেল ভনও হলেন তার ভক্ত, সোশ্যাল মিডিয়ায় দিলেন এই উপাধি

অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে মেলবোর্ন ওয়ানডে জেতার জন্য ভারত ২৩১ রানের লক্ষ্য পায়। ভারত টস জিতে প্রথমে বল করে...

আট বছর পর অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ম্যান অফ দ্য সিরিজ হতেই মহেন্দ্র সিং ধোনি হাসিল করলেন এই কৃতিত্ব

আট বছর পর অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ম্যান অফ দ্য সিরিজ হতেই মহেন্দ্র সিং ধোনি হাসিল করলেন এই কৃতিত্ব
ভারত আর অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে ওয়ানডে সিরিজ শেষ হয়ে গিয়েছে। ভারত শেষ ম্যাচ জিতে সিরিজে জয় হাসিল করে।...

ভারতের প্রথমবার অস্ট্রলিয়ায় সিরিজ জেতার পর এই বিশেষ ক্লাবে শামিল হলেন ধোনি, রিকি পন্টিংকে ফেললেন পেছনে

ভারতের প্রথমবার অস্ট্রলিয়ায় সিরিজ জেতার পর এই বিশেষ ক্লাবে শামিল হলেন ধোনি, রিকি পন্টিংকে ফেললেন পেছনে
অস্ট্রেলিয়া আর ভারতের মধ্যে চলতি তৃতীয় ওয়ানডে ম্যাচে ভারত জেতার জন্য ২৩১ রানের লক্ষ্য পেয়েছিল। ভারত এই...

মহেন্দ্র সিং ধোনি আর চহেলকে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া দিল ৫০০ ডলার পুরস্কার, ক্ষুব্ধ হলেন সুনীল গাভাস্কার

মহেন্দ্র সিং ধোনি আর চহেলকে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া দিল ৫০০ ডলার পুরস্কার, ক্ষুব্ধ হলেন সুনীল গাভাস্কার
ভারত আর অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে হওয়া ওয়ানডে সিরিজকে ভারতীয় দল ২-১ ফলাফলে নিজেদের নামে করেছে। মেলবোর্নে হওয়া নির্নায়ক...

ভারত বনাম অস্ট্রেলিয়া: বিরাট কোহলি বললেন, কেনো চার নম্বরে ব্যাটিং করতে এসেছিলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি

ভারত বনাম অস্ট্রেলিয়া: বিরাট কোহলি বললেন, কেনো চার নম্বরে ব্যাটিং করতে এসেছিলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি
ভারত তৃতীয় ওয়ানডেতে অস্ট্রেলিয়াকে ৭ উইকেটে হারিয়ে দিয়েছে। এই জয়ের সঙ্গেই ভারত এই সিরিজ ২-১ ফলাফলে নিজের...