আর্টিকেল ৩৭০ নিয়ে পাকিস্তানের অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ দিলেন ভারতের বিরুদ্ধে এই বিতর্কিত বয়ান

ভারত সরকার গত ৫ আগস্ট জম্মু কাশ্মীরে বহু বছর ধরে চলে আসা আর্টকেল ৩৭০কে সরিয়ে দিয়েছে। যে কারণে পাকিস্তানের সরকার আর সেখানকার মানুষ কাশ্মীর বিষয়ে বিতর্কিত বয়া দিতে শুরু করে দিয়েছে। এই দৌড়ে পাকিস্তান ক্রিকেট দলের ক্রিকেটাররাও পেছিয়ে নেই। শাহিদ আফ্রিদির পর এখন পাকিস্তান ক্রিকেট দলের অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ কাশ্মীরের উপর একটি বয়ান দিয়েছেন।

সরফরাজ আহমেদ কাশ্মীর নিয়ে দিলেন বির্তকিত বয়ান

আর্টিকেল ৩৭০ নিয়ে পাকিস্তানের অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ দিলেন ভারতের বিরুদ্ধে এই বিতর্কিত বয়ান 1

যখন থেকে জম্মু আর কাশ্মীর থেকে ভারত সরকার আর্টিকে ৩৭০ সরিয়েছে তার পর থেকে পাকিস্তানের হইচই পড়ে গিয়েছে। এখন এই আর্টকেল ৩৭০ নিয়ে বলতে গিয়ে পাকিস্তান দলের অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ বলেছেন যে,

“আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করি যে তিনি মুশকিলের এই সময় থেকে কাশ্মীরি ভাইদের দ্রুত নিজাত দিন। আমরা কাশ্মীরিদের কষ্টে তাদের সঙ্গে সমানভাবে শরিক হয়েছি। পুরো পাকিস্তান জাতি কাশ্মীরি ভাইদের পাশে দাঁড়িয়েছে”।

কাশ্মীর বিষয়ে পাকিস্তান সরকারকে তিরস্কার সহ্য করতে হয়েছে কারণ কোনো দেশই পাকিস্তানকে সমর্থন করেনি আর জম্মু আর কাশ্মীর থেকে আর্টিকেল ৩৭০ সরানো ভারতের আভ্যন্তরিন বিষয় বলে অভিহিত করেছে।

প্রাক্তন পাকিস্তানী ক্রিকেটার শাহিদ আফ্রিদিও বলেছিলেন কাশ্মীর নিয়ে

আর্টিকেল ৩৭০ নিয়ে পাকিস্তানের অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ দিলেন ভারতের বিরুদ্ধে এই বিতর্কিত বয়ান 2

এমনটা নয় যে সরফরাজ আহমেদ প্রথম পাকিস্তানী ক্রিকেটার যিনি জম্মু কাশ্মীর থেকে আর্টিকে ৩৭০ সরানোর পর এই ধরণের বয়ান দিয়েছেন। এর আগে প্রাক্তন পাকিস্তানী অলরাউণ্ডার শাহিদ আফ্রিদিও এই বিষয়ে টুইট করে বলছিলেন যে

“কাশ্মীরীদের সংযুক্তি রাষ্ট্রের প্রস্তাবের আধারেই তাদের অধিকার দেওয়া উচিত। স্বাধীনতার অধিকার যা আমাদের সকলের রয়েছে। সংযুক্ত রাষ্ট্রের গঠন কেন করা হয়েছে আর সেটা কেনই বা ঘুমিয়ে আছে?”

যার জবাব প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার আর বিজেপির সাসংদ গৌতম গম্ভীর দিয়েছিলেন। তিনি আফ্রিদিকে নিজের দেশের ব্যাপারে ভাবার জন্য বলেছিলেন।

কাশ্মীরের রয়েছে শান্তির পরিবেশ

আর্টিকেল ৩৭০ নিয়ে পাকিস্তানের অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ দিলেন ভারতের বিরুদ্ধে এই বিতর্কিত বয়ান 3

আর্টিকে ৩৭০ সারানোর পর সেখানে কার্ফু লাগানো হয়েছিল। যা বকরি ঈদের একদিন আগে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। কার্ফু সরানোর পর এখনো পর্যন্ত কাশ্মীরের পরিবেশ খুবই শান্ত। যাতে জানা যায় যে কাশ্মীরের মানুষও এই সিদ্ধান্তে সহমতি প্রকাশ করেছেন। কাশ্মীর এখন কেন্দ্রশাসিত রাজ্য হয়ে গিয়েছে।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *