৫জন তারকা যারা যতটা সম্মানের দাবীদার ছিলেন পাননি ততটা, তালিকায় শামিল ভারতীয়ও

ক্রিকেটের দুনিয়ায় কিছু খেলোয়াড়রা অনেক বেশি সম্মান পেয়ে যান। যারা দাবীদারও সম্ভবত তারা কখনো কখনো হন না। কিন্তু কিছু খেলোয়াড়দের সঙ্গে এমনও হয় যে তারা যতটা সম্মান পাওয়ার দাবীদার হন তা তারা কেরিয়ার শেষ হওয়ার পরও পাননা। মাত্র কিছু খেলোয়াড়ের সঙ্গেই এমনটা হয় না। প্রায় ক্রিকেট খেলা সমস্ত দেশে কোনো না কোনো একজন খেলোয়াড়ের সঙ্গে এমন ভুল ব্যবহার হতে দেখা যায়। যে কারণে কখনো কখনো তাদের যতটা আলোচনা হওয়া উচিৎ ছিল ততটা আলোচনা হতে দেখা যায় না। আজ আমরা আপনাদের এমনই ৫জন খেলোয়াড়ের ব্যাপারে জানাব যারা অনেকবেশি সম্মানের অধিকারী ছিলেন কিন্তু যখন তারা নিজের খেলা শেষ করেন তো তারা সেই সম্মান পাননি যা তাদের প্রদর্শনে দেখা গিয়েছিল। এই তালিকায় একজন ভারতীয়ও রয়েছেন।

৫. পল কলিংউড

৫জন তারকা যারা যতটা সম্মানের দাবীদার ছিলেন পাননি ততটা, তালিকায় শামিল ভারতীয়ও 1

ইংল্যান্ডের মিডল অর্ডার খেলোয়াড় পল কলিংউডও যতদিন খেলেছেন নিজের দল ইংল্যান্ডের জন্য একজন ম্যাচ উইনার খেলোয়াড় হিসেবেই তাকে দেখা যেত। ব্যাট হাতে তো কলিংউড ভালো প্রদর্শন করতেনই, সেই সঙ্গে বল হাতেও দরকার পড়লে তিনি সাহায্য করতেন। পল কলিংউড ইংল্যান্ডের হয়ে ৬৮টি টেস্ট ম্যাচে ৪২৫৯ রান করেছেন আর ১৭টি উইকেট নিয়েছেন। একদিনের কেরিয়ারে তিনি ১৯৭টি ম্যাচে ৫০৯২ রান করেছেন আর ১১১টি উইকেটও নিয়েছেন। ইংল্যান্ডের হয়ে ৩৬টি টি-২০ ম্যাচে তিনি ৫৮৩ রান করেছেন আর ১৬টি উইকেটও নিয়েছেন। কলিংউডের ব্যাটিং বোলিং ছেড়ে দিলেও ফিল্ডিংয়েও তিনি ব্যবধান তৈরি করে দিতেন। কিন্তু অলরাউন্ডার হিসেবে তিনি যে প্রদর্শন করেছেন তারপরও তাকে তারকাদের তালিকায় শামিলও করা হয়নি। সম্প্রতিই তিনি দলের হয়ে সহকারী কোচের ভূমিকাও পালন করেছিলেন।

৪. মহম্মদ ইউসুফ

৫জন তারকা যারা যতটা সম্মানের দাবীদার ছিলেন পাননি ততটা, তালিকায় শামিল ভারতীয়ও 2

পাকিস্তান দলের প্রাক্তন অধিনায়ক আর তারকা ব্যাটসম্যান মহম্মদ ইউসুফের নামও এই তালিকায় দেখা যায়। তিনিও নিজের ব্যাটিংয়ে বেশকিছু ম্যাচে পাকিস্তানকে জয় এনে দিয়েছেন। মিডল অর্ডারের তাকে দলের ব্যাটিং সামলাতেই দেখা যেত। মহম্মদ ইউসুফ পাকিস্তানের দলের হয়ে ৯০টি টেস্ট ম্যাচ খেলেছেন। যেখানে তিনি ৫২.২৯ গড়ে ৭৫৩০ রান করেছেন। ২৮৮টি একদিনের ম্যাচে তিনি ৪১.৭২ গড়ে ৯৭২০ রান করেছেন। পাকিস্তানের হয়ে তিনি ৩টি টি-২০ ম্যাচও খেলেছেন যেখানে তিনি ৫০ রান করেছিলেন। অধিনায়ক হিসেবেও তিনি বড়ো পার্থক্য এনেছিলেন। তবে আজ তাকে পাকিস্তান ক্রিকেট সেই সম্মান দেয় না যার তিনি অনেকবেশি অধিকারী। তার চেয়ে কম সফল ব্যাটসম্যানকে পিসিবি কাজ দিয়েছে কিন্তু এই তারকা ব্যাটসম্যানকে নিয়মিত উপেক্ষাই করা হয়েছে।

৩. ড্যামিয়েন মার্টিন

৫জন তারকা যারা যতটা সম্মানের দাবীদার ছিলেন পাননি ততটা, তালিকায় শামিল ভারতীয়ও 3

অস্ট্রেলিয়ার দল বেশকিছু তারকা খেলোয়াড় বিশ্বকে দিয়েছে। তাদের মধ্যে একজন হলেন ড্যামিয়েন মার্টিন, যিনি মিডল অর্ডারে নিজের দলের হয়ে নিয়মিত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন। যে কারণে তার দল দীর্ঘদিন পর্যন্ত ক্রিকেটকে শাসন করেও দেখিয়েছিল। তাতে মার্টিনের যোগদান গুরুত্বপূর্ণ ছিল। ড্যামিয়েন মার্টিন অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ৬৭টি টেস্ট ম্যাচ খেলেছিলেন। যেখানে তিনি ৪৬.৩৮ গড়ে ৪৪০৬ রান করেছলেন। এছাড়াও ২০৮টি একদিনের ম্যাচে তিনি ৪০.৮১ গড়ে ৫৩৪৬ রান করেছেন। তিনি অস্ট্রেলিয়া দলের হয়ে ৪টি টি-২০ ম্যাচে ৩০ গড়ে এবং ১৬২টি স্ট্রাইকরেটে ১২০ রানও করেন। মার্টিন দরকার পড়লে নিজের দলের হয়ে কিছু ওভার বোলিংও করতেন। ড্যামিয়েন মার্টিন সেই খেলোয়াড়দের মধ্যে একজন যাকে দলের অধিনায়ক যে দায়িত্ব দেন তার তিনি ভালোভাবে পালন করেন। তারপর তিনি যতটা সম্মানের দাবীদার ছিলেন ততটা তিনি পাননি।

২. অজিত আগরকার

৫জন তারকা যারা যতটা সম্মানের দাবীদার ছিলেন পাননি ততটা, তালিকায় শামিল ভারতীয়ও 4

ভারতীয় দলের জোরে বোলার অজিত আগরকারের নামও এই তালিকায় দেখা যায়। একদিনের ফর্ম্যাটে তিনি নিজের গতি আর সুইংয়ে ব্যাটসম্যানদের দীর্ঘদিন পর্যন্ত সমস্যায় ফেলেছিলেন। শেষদিকে তাকে ব্যাট হাতেও দলের হয়ে যোগদান দিতে দেখা যেত যখনই দলের দরকার পড়ত। অজিত আগরকার ভারতীয় দলের গয়ে ২৬টি টেস্ট ম্যাচে ৫৮টি উইকেট নিয়েছেন। সেই সঙ্গে তিনি ১৯১টি একদিনের ম্যাচে ২৭.৮৫ গড়ে ২৮৮টি উইকেট নিয়েছেন। সেই সঙ্গে তিনি ১২৬৯ রানও করেন। টি-২০ ফর্ম্যাটে তিনি ৪টি ম্যাচে ৩টি উইকেট নেন। আগরকার একদিনের ফর্ম্যাটে যে কৃতিত্ব নিজের বোলিংয়ে দেখিয়েছেন তা অনেক কম ভারতীয় বোলারই করতে পেরেছেন। কিন্তু তারপরও তিনি যে সম্মানের দাবীদার ছিল তা কখন ভারতীয় ক্রিকেট থেকে তিনি পাননি। তাকে সবসময়ই পেছনে থাকতে দেখা যায়।

১. শিবনারায়ণ চন্দ্রপল

৫জন তারকা যারা যতটা সম্মানের দাবীদার ছিলেন পাননি ততটা, তালিকায় শামিল ভারতীয়ও 5

ওয়েস্টইন্ডিজ দলের দীর্ঘসময় পর্যন্ত সফলতার গুরুত্বপূর্ণ কারণ থাকা শিবনারায়ণ চন্দ্রপলের সঙ্গেও এমনই হয়েছে। তিনি ওয়েস্টইন্ডিজ দলের হয়ে যা করেছেন তা করতে অনেক কম মানুষই সফল হন। কিন্তু তারপরও তাকে পেছনের সারিতে দেখা যায়। শিবনারায়ণ চন্দ্রপল ওয়েস্টইন্ডিজ দলের হয়ে টেস্ট ফর্ম্যাটে ১৬৪টি ম্যাচ খেলেছেন, যেখানে তিনি ৫১.৩৭ গড়ে ১১৮৬৭ রান করেছেন। অন্যদিকে তিনি ২৬৮টি একদিনের ম্যাচে ৮৭৭৮ রানও করেছেন। শেষে ২২টি টি-২০ ম্যাচ খেলে তিনি ৩৪৩ রানও করেছেন। চন্দ্রপল যেমনটা কৃতিত্ব দেখিয়েছেন ততটা বড়ো পরিসংখ্যান ওয়েস্টইন্ডিজ দলের খুব কমই ব্যাটসম্যান দেখাতে পেরেছেন। কিন্তু তারপরও তাকে সেই সম্মান পেতে দেখা যায়নি, যার তিনি অনেকবেশি দাবীদার ছিলেন। তার চেয়ে বেশি টি-২০র খেলোয়াড়দের এগিয়ে রাখা হয়।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *