এই সেই তিনটি কারণ যার কারণে বিরাট কোহলির ছেড়ে দেওয়া উচিত ওয়ানডে আর টি-২০র অধিনায়কত্ব

রোহিত শর্মা অধিনায়কত্বে ভারতীয় দল এশিয়া কাপ ২০১৮র উপর নিজেদের কব্জা করেছে। ভারত বিরাট কোহলির অনুপস্থিতিতেও দারুণ প্রদর্শন করে একটিও ম্যাচ হারে নি। আফগানিস্থানের বিরুদ্ধে ম্যাচ টাই অবশ্যই হয়েছে কিন্তু ওই ম্যাচে দলের বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় খেলেন নি। এশিয়াকাপ শুরু হওয়ার আগে বিরাটের অনুপস্থিতিতে দলকে কমজুরি মনে করা হচ্ছিল। রোহিত শর্মা না শুধু নিজের অধিনায়কত্বকে দারুণভাবে পালন করেছেন বরং ব্যাটিংয়েও দুর্দান্ত প্রদর্শন করেছেন। অন্যদিকে এখন তিনটি এমন কারণ সামনে এসেছে যাতে বিরাট কোহলিকে সীমিত ওভারের অধিনায়কত্ব ছেড়ে দেওয়া উচিত।

৩. আইপিএলে অধিনায়ক হিসেবে প্রদর্শনএই তিন কারণে বিরাট কোহলির ছেড়ে দেওয়া উচিত ওয়ানডে আর টি-২০র অধিনায়কত্ব 1
বিরাট কোহলি বিশ্বের এক দুর্দান্ত ব্যাটসম্যান যা নিয়ে কোনও ধরণের কোনও সন্দেহ নেই। কিন্তু আইপিএলে এখন অধিনায়ক হিসেবে তার প্রদশর্ন দেখা গেলে তা ভাল নয়। কোহলি ২০১৩ থেকে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর অধিনায়কত্ব সামলাচ্ছেন। এর মধ্যে আরসিবি একটিও আইপিএল খেতাব নিজের নামে করতে সফল হয়নি। যদিও দলে তারকা খেলোয়াড়দের কমতি নেই। কোহলির অধিনায়কত্বে দল দু’বার তো প্লে অফেও জায়গা করতে পারে নি।

২. ভারতের কাছে ভালো বিকল্প
এই তিন কারণে বিরাট কোহলির ছেড়ে দেওয়া উচিত ওয়ানডে আর টি-২০র অধিনায়কত্ব 2
ভারতের কাছে রোহিত শর্মার রূপে একটি ভালো বিকল্প মজুত রয়েছে। রোহিতের অধিনায়ক হিসেবে রেকর্ড যথেষ্ট ভালো। তার নেতৃত্বে দল কোনও ম্যাচ না হেরেই এশিয়া কাপে কব্জা করেছে। রোহিত দলের সামনে থেকে নেতৃত্ব করে দুর্দান্ত ব্যাটিংও করেছেন। এখন আইসিসি ওয়ানডে ব্যাটিং র্যাদঙ্কিয়েও ২ নম্বরে পৌঁছে গিয়েছেন। ভারতীয় দল এই বছরেই রোহিতের নেতৃত্বে নিদাহাস ট্রফিও জিতেছিল। রোহিতের অধিনায়কত্বের পরিসংখ্যান যদি আইপিএলেও দেখা যায় ত তার নেতৃত্বে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স তিনবার আইপিএল চ্যাম্পিয়ান হয়েছে। এই পরিসংখ্যান জানান দেয় যে রোহিত শর্মা সীমিত ওভারে বিরাটের চেয়ে ভালো অধিনায়ক।

১. গড়পড়তা অধিকায়কত্ব স্কিল
এই তিন কারণে বিরাট কোহলির ছেড়ে দেওয়া উচিত ওয়ানডে আর টি-২০র অধিনায়কত্ব 3
বিরাট কোহলির অধিনায়কত্ব বেশিরভাওই সমালোচনায় থেকেছে। কোহলির কাছে ফিল্ডিং পরিবর্তন আর বোলিং পরিবর্তনে স্পষ্ট পরিকল্পনার অভাব দেখা যায়। যদিও একজন অধিনায়কের কাছে এই স্কিল সবচেয়ে বেশি জরুরী। একজন ভালো অধিনায়ককে যে কোনও পরিস্থিতিতে শান্ত থাকতে হয়, কিন্তু কোহলির আক্রামণাত্মকতা তার অধিনায়কত্বের উপর নেগেটিভ প্রভাব ফেলে। যদিও তার এই আক্রামণাত্মকতা তার ব্যাটিংয়ে ভীষণই কাজে দেয়। কিন্তু অধিনায়কস হিসেবে এটা খুব একটা কারগার প্রমানিত হয়না।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *