২০০৩ বিশ্বকাপে ধোনি দলে থাকলে ফলাফল অন্যরকম হত: সৌরভ

 

একসময় মনে করা হত প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভের অবসরের পেছনে হাত ছিল ধোনির। সৌরভ এবং ধোনির মধ্যেকার সম্পর্ক নাকি শীতল। কিন্তু এমনটা মনে করেন না সৌরভ স্বয়ং কিন্তু তা মনে করে না। তারা দু’জনেই যে পরস্পরের শুভাকাঙ্খী তা সাম্প্রতিকতম ঘটনাপ্রবাহেই প্রমানিত। কিছুদিন আগেই সৌরভ ধোনির হয়ে ব্যাট ধরেছিলেন। জানিয়ে দিয়েছিলেন যে ধোনির এখনও ভারতীয় ক্রিকেটকে অনেক কিছু দেওয়ার রয়েছে। এবার আরও একবার প্রকাশ্যে মুখ খুললেন সৌরভ। সেই সঙ্গে জানিয়েদিলেন তার আক্ষেপও। সৌরভের আক্ষেপ যদি ২০০৩ এর বিশ্বকাপ ফাইনালে ধোনির তার দলে থাকত তাহলে ফলাফল অন্যতকম হতে পারত। এবং এই আক্ষেপ সৌরভ জানিয়েছেন তার সম্প্রতি প্রকাশিত আত্মজীবনী ‘আ সেঞ্চুরি ইস নট এনাফ”। সৌরভের এই আত্মজীবনী ইতিমধ্যেই দেশের ক্রিকেট মহলে ঝড় তুলেছে। ২০০৩ এর বিশ্বকাপে সৌরভের ওই স্বপ্নের দল ঘিরে আমজনতার প্রত্যাশার পারদ চড়েছিল উত্তেজনার শিখরে। ফলে সেই স্বপ্ন ভঙ্গের বেদনা আম জনতার পাশাপাশি রয়েছে সৌরভের বুকেও। ফলে স্বাভাবিকভাবেই সৌরভ তার আত্মজীবনীর এক অধ্যায়ে এই আক্ষেপ কে তুলে ধরেছেন।

২০০৩ বিশ্বকাপে ধোনি দলে থাকলে ফলাফল অন্যরকম হত: সৌরভ 1

আত্মীজীবনীর এক অধ্যায়ে সৌরভ লিখেছেন, “ বহু বছর ধরেই আমি এমন এক ক্রিকেটারকে খুঁজছিলাম যে চাপের মুখেও মাথা ঠান্ডা রেখে ম্যাচ বের করে আনতে পারে”। সৌরভ আরও লেখেন, “ ধোনি আমার নজরে পড়ে ২০০৪ এ”। ওর মধ্যে আমার সেই ভাবনা চিন্তার ছায়া আমি দেখেছিলাম। প্রথম দিন থেকেই আমি ওর প্রতি মুগ্ধ ছিলাম। ইশ যদি ধোনিকে ২০০৩ এর বিশ্বকাপে দলে পেতাম। আমি শুনেছি যখন আমরা বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলেছিলাম তখন ধোনি রেলের টিকিট চেকার ছিল, যা অবিশ্বাস্য”। ধোনির প্রশংসা করতে ক্লান্ত হন নি মহারাজ। তিনি তার আত্মজীবনিতে আরও লিখেছেন, “ ধোনি নিজেকে যে জায়গায় তুলে এনেছেন তাতে আমি ভীষণ খুশি যে আমার সেদিনকার বিচার ভুল ছিল না। নিজেকে যে উচ্চতায় তুলেছে ধোনি সেটা সত্যিই এক চমকপ্রদ ব্যাপার”। ঐ অধ্যায়ে সৌরভ ধোনির সঙ্গে তার সম্পর্কের অনেক গোপন বিষয়ও সামনে এনেছেন। সৌরভকে তার শেষে টেস্টে অধিনায়কত্বের প্রস্তাব দিয়েছিলেন ধোনি। কিন্তু তা প্রত্যাখ্যান করেন সৌরভ।

২০০৩ বিশ্বকাপে ধোনি দলে থাকলে ফলাফল অন্যরকম হত: সৌরভ 2

এ ব্যাপারে আত্মজীবনীতে তিনি লেখেন, “ ওই ম্যাচে শুরু ঠিকে হঠাৎই ধোনি আমাকে বলেছিল দলকে নেতৃত্ব দিতে। প্রথমে সেই প্রস্তাব আমি না মানলেও দ্বিতীয়বার বলাতে আর না করতে পারি নি আমি। ২০০৮এ নাগপুরে সেই টেস্টে অস্ট্রেলিয়াকে ১৭২ রানে হারিয়ে দিয়েছিল ভারত। ঠিক আট বছর আগেই সেই টেস্টের দিনেই সৌরভের অধিনায়কত্বের কেরিয়ার শুরু হয়েছিল। ফলে যথেষ্ট আবেগী হয়ে পড়ছিলেন সৌরভ। ফলে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে নেতৃত্ব দিতে গিয়ে ফোকাসড করতে পারছিলেন না তিনি। সৌরভ আত্মজীবনীতে লিখেছে যে এরপরই তিনি নেতৃত্বের ভার ধোনির হাতে তুলে দিয়ে বলেন, “ এমএস এটা তোমার দায়িত্ব তুমিই সামলাও”।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *