প্রায় ঊনিশ বছরের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কেরিয়ারে ভারতীয় দলের বাঁ-হাতি পেস বোলার আশিস নেহরা যেভাবে চোট-আঘাতে ভুগেছেন এবং তারপর এখনও খেলা চালিয়ে যাচ্ছেন, তাতে অবাক হতে হয়। ১৯৯৯ সালে কলম্বোয় শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে মহম্মদ আজহারউদ্দিনের জমানায় আন্তর্জাতিক মঞ্চে অভিষেক টেস্টে মার্ভান আতাপাত্তুর উইকেট তুলে নেওয়ার পর থেকে আন্তর্জাতিক কেরিয়ারে অনেক কিছু দেখেছেন দিল্লির এই ক্রিকেটারটি। বিগ ম্য়াচ বোলার হয়েও, পরিসংখ্য়ানের দিকে নজর রাখলে বড়ই ম্য়াড়ম্য়াড়ে লাগে। এত বছরের ক্রিকেট কেরিয়ারে স্বল্প সংখ্য়ক ম্য়াচ খেলেছেন। বারবার চোট-আঘাত তাঁকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে দূরে ঠেলে দিয়েছে। নেহরা নিজেও বলছেন, চোট-আঘাতের কারণে ভারতের হয়ে বিগত ঊনিশ বছরে প্রচুর ম্য়াচ মিস করেছেন তিনি।

অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে গত শনিবার (সাত অক্টোবর) শুরু হওয়া তিন ম্য়াচের সিরিজের প্রথম টি-২০ ম্য়াচ খেলা হয়েছে। আটত্রিশ বছর বয়সে দলে কামব্য়াক করেছেন নেহরা। বছরের শুরুতে ইংল্য়ান্ডের বিরুদ্ধে টি-২০ সিরিজে খেলার পর দশম আইপিএলে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে খেলতে নেমে চোট পেয়ে ছিটকে গিয়েছিলেন। এর মধ্য়ে বারোবার তাঁকে অস্ত্রোপচার করাতে হয়েছে সুস্থ হয়ে উঠতে। নেহরা বলছেন, আর বড়জোর দুবছর খেলা চালিয়ে যাবেন তিনি। কারণ, আটত্রিশ বছর বয়সের পরও খেলা চালিয়ে যাওয়া একজন ফাস্ট বোলারের পক্ষে চ্য়ালেঞ্জের ব্য়াপার।

রাঁচিতে খেলতে নামার আগে ক্রিকেট সংক্রান্ত খবর দেওয়া একটি বিদেশি ওয়েবসাইটকে নেহরা বলেন, আমি খেলতে চাই, কিন্তু আমার শরীর সায় দিতে চায় না। এটাতে আমি খুশি নই। আমি আর দুবছরের মতো খেলা চালিয়ে যেতে পারব। আটত্রিশ-ঊনচল্লিশ বছর বয়সে একজন ফাস্টবোলারের পক্ষে খেলা চালিয়ে যাওয়া সহজ ব্য়াপার নয়। বিশেষ করে আমার শরীরের যা অবস্থা। তবুও, আমি আমার সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করে যাচ্ছি।

নেহরা এরপর বলেন, কখনও কখনও এমন হয়, সকলে ঘুম থেকে ওঠার পর হাঁটু অসাড় হয়ে থাকে। বিশেষ করে দিল্লির ঠান্ডাতে। ঘুম থেকে উঠে পড়লেও আধঘণ্টা শুয়ে থাকতে হয় বিছানা ছাড়ার আগে। তারপর আস্তে আস্তে হাঁটতে পারি। গোড়ালিতে চারবার অস্ত্রোপচার করাতে হয়েছে। হাঁটুতে সবসময় ব্য়াথা রয়েছে। ওই আধঘণ্টা নিজেকে বোঝাই, আমাকে করতেই হবে। কারণ, আমি এমন মানুষ, আমি যদি ঠিক করি ওটা করব, তাহলে আমি করবই। তিনি এরপর বলেন, এটা রকেট সায়েন্স নয়, যে বুঝতে অসুবিধে হবে। দিনে নিজের শরীরের পেছনে তিন থেক চারঘণ্টা সময় দিলে, ভালো ফল তুমি পাবেই। কারও হয়ত পেতে সময় লাগে। কিন্তু, পাবেই।

চোট-আঘাতের কারণে কেরিয়ারের বেশিরভাগ সময়টা মাঠের বাইরে কাটানো প্রসঙ্গে নেহরা বলেন, অল্প বয়সে এটা বোঝা যায় না। ভারতীয় দলের হয়ে খেলা কত বড় ব্য়াপার এটা অনেকেই বুঝতে পারে না অল্প বয়সে। গত সাত-আট বছরে আমি অনেক ম্য়াচ মিস করেছি। হয়ত, এখন সেই খামতি যতটা সম্ভব মেটানের চেষ্টা করছি। চার-পাঁচ বছর আগে আমি ফিরে যেতে পারব না। ফলে, নিজের শরীরের পেছনে বেশি করে খাটছি, আর তার ফলও পাচ্ছি। আমার শরীর আমার সঙ্গে দেয়নি গোটা কেরিয়ারে। মাঝেমঝ্যে আক্ষেপ হয়। তবে, আমি বিশ্বাসী মানুষ। নিজেকে বোঝাই, আমি এখনও খেলতে পারব। দলের হয়ে অবদান রাখতে পারব। তাই নিজের শরীর নিয়ে সবসময় সতর্ক থাকি।

এই বয়সেই ভারতীয় দলে কামব্য়াক করার অনত্যম কারণ হিসেবে নেহরা তাঁর শরীরকে ফিট রাখতে কঠোর পরিশ্রমের কথা উল্লেখ করে বলেন, আমি সবসময় নিজেকে তৈরি রাখতে ভালোবাসি। মাঠে যদি কেউ নাও থাকে, আমি একাই অনুশীলন করে যাব। শুধু একজন উইকেটকিপার দরকার যে আমার করা বল ক্য়াচ ধরে আবার ছুঁড়ে দেবে আমার দিকে। বেশিরভাগ সময়ই একটা স্টাম্পকে সামনে রেখে বল করে যাই। বোলিং অনুশীলনের পর ফিল্ডিং অনুশীলন করি। লম্বা লম্বা প্র্য়াক্টিস সেশন নয়, দেড়-দুই ঘণ্টার সেশন করে অনুশীলন করি। কিন্তু, শরীরে যতই ব্য়থা থাক, ম্য়াচের সময় মাঠে নামলে সেসব উধাও হয়ে যায়।

SHARE

আরও পড়ুন

অ্যারণ ফিঞ্চ ভারত আসার আগে দিলেন হুঙ্কার, বললেন এই পরিকল্পনার অন্তর্গত ভারতকে তাদের মাটিতেই দেব মাত

গত রবিবারই অস্ট্রেলিয়ার সীমিত ওভারের অধিনায়ক অ্যারণ ফিঞ্চের নেতৃত্বে মেলোবর্ন রেনেগেডসের দল বিগব্যাশ লীগের খেতাব জিতেছিল। এখন...

এই বোলারের বিরুদ্ধে নন স্ট্রাইকার এন্ডে থাকা পছন্দ করেন বিরাট কোহলি, স্বয়ং করলেন খোলসা

ভারতীয় দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলির জন্য এখনো পর্যন্ত ক্রিকেটের কেরিয়ার দুর্দান্ত থেকেছে। অধিনায়ক বিরাট কোহলি এখনো পর্যন্ত...

অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে সিরিজের আগে যুবরাজ সিংহের সঙ্গে ফুটবল খেলতে দেখা গেল মহেন্দ্র সিং ধোনিকে, ভিডিয়ো ভাইরাল

অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে সিরিজের আগে যুবরাজ সিংহের সঙ্গে ফুটবল খেলতে দেখা গেল মহেন্দ্র সিং ধোনিকে, ভিডিয়ো ভাইরাল
ভারতীয় দলকে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে দুটি টি-২০ আর তারপর ২ মার্চ থেকে পাঁচটি ওয়ানডে ম্যাচের...

সেহবাগ,ধবনের পর শহিদদের পরিজনদের সাহায্যের জন্য এগিয়ে এলেন মহম্মদ শামি

সেহবাগ, ফজল আর ধবনের পর শহিদদের পরিজনদের সাহায্যের জন্য এগিয়ে এলেন মহম্মা শামি
পুলওয়ামতে ১৪ ফেব্রুয়ারি সিআরপিএফদের জওয়ানদের উপর সন্ত্রাসী হামলা হয়েছিল। এতে ৪০ এরও বেশি জওয়ান শহিদ হয়েছেন। এটা...

জঙ্গি হামলা নিয়ে গম্ভীরের মন্তব্যের পাল্টা জবাব দিলেন আফ্রিদি !

জম্মু ও কাশ্মীরের পুলওয়ামা হামলায় ৪২ জন জওয়ান শহীদ হয়েছেন । আহত হয়েছেন অনেকেই, যারা এখন চিকিৎসাধিন...