ক্রিকেট মাঠে ব্রেট লি-শচীন তেন্ডুলকর দ্বৈরথ উপভোগ করেননি এমন ক্রিকেট ফ্য়ান হয়ত বা খুঁজলে পাওয়া যাবে। ভারত-অস্ট্রেলিয়া সিরিজ এই কারণে আলাদা আকর্ষণ নিয়ে অপেক্ষা করত। লির আগুনে পেস বোলিংয়ের বিরুদ্ধে শচীনের ব্য়াটের ঠ্য়াঙানি, গত দশকের সবচেয়ে নজর কাড়া মুহূর্তগুলির মধ্য়ে জায়গা করে নিয়েছে। ভুলে গেলে চলবে না শচীন-ম্য়াকগ্রা দ্বৈরথও। বিশ্ব ক্রিকেটে মাস্টার ব্লাস্টারই সম্ভবত একমাত্র ব্য়ক্তি, যাঁর সঙ্গে প্রায় সব টিমের কোনও না কোনও বোলারের দ্বৈরথ গড়ে উঠেছিল। আর অস্ট্রেলিয়া টিমের তো দুই পেস বোলারকে এক পর্বে সামলেছিলেন তেন্ডলা। ম্য়াকগ্রা যেমন তাঁর নিখুঁত লাইন ও লেন্থের জন্য় প্রসিদ্ধ ছিলেন, ব্রেট তেমনই তাঁর গতির জন্য়। দুই লেজেন্ডই এখন প্রাক্তন ক্রিকেটার। অবসর নিয়েছেন অনেকদিন হতে চলল। ক্রিকেট মাঠে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ভারত কেন, দুনিয়ার সবচেয়ে সফল ব্য়াটসম্য়ান যদি কেউ থেকে থাকেন, তো সেই ব্য়ক্তি শচীন ছাড়া আর কেউ নন।

বাইশ গজে দুরন্ত গতির ব্রেট এক্সপ্রেসের ইয়র্কার কোনওদিনও শচীনের ব্য়াটকে ঠকিয়ে প্য়াভিলিয়নে পাঠাতে পারেনি। হাজার চেষ্টা করেও অবসরের আগে এটাই খেদ রয়ে গিয়েছিল লির। আবার শচীনকে নিয়ে এটাই আমাদের গর্ব। এমনি এমনি কি আর তেন্ডুলকরকে লোকজন ক্রিকেটের ঈশ্বর নামে চেনেন। তবে, ক্রিকেট মাঠে প্রবল প্রতিদ্বন্দ্বী হলেও মাঠের বাইরে চিরকাল দুজনে বেশ ভালো বন্ধু ছিলেন। আর সেই বন্ধুত্বটা এখনও আছে। শচীনকে একসময় লি কথা দিয়েছিলেন, তিনি মাস্টার ব্লাস্টার সবচয়ে বড় ফ্য়ান খুঁজে আনবেনই। আর তিনি তা রেখেছেন।

গত কদিন ধরে ট্য়ুইটার এই নিয়েই গরমাগরম। কর্নাটক প্রিমিয়ার লিগ (কেপিএল) উপলক্ষ্য়ে ব্রেট লি এখন দক্ষিণ ভারতে। সেখানে তিনি ধারাভাষ্য়কারের কাজ সামলাচ্ছেন। ঘটনার সূত্রপাত ব্রেটের একটি ট্য়ুইটকে কেন্দ্র করে। সেখানে একটি ছবি পোস্ট করেছেন লি। মাঠে কেপিএলের কোনও একটি ম্য়াচ দেখতে এসেছিলেন এক ব্য়ক্তি। তাঁর হাতে শটীনের ছবি ট্য়াটু করানো। ট্য়াটু সমেত ওই ব্য়ক্তির ছবিটি তোলার পর তা পোস্ট করেছে লি। আর তাতে শচীনের ভক্তদের মুখের হাসি আরও চওড়া হয়ে গিয়েছে। ছবিটির ক্য়াপশনে লি ট্য়ুইট করেছেন, দেখো শচীন। আমার মনে হয়, আমি তোমার সবচেয়ে বড় ফ্য়ানকে খুঁজে পেয়েছি। আমি বলেছিলাম, তোমায় আমি দেখাব। এই দেখো। ট্য়ুইট দেখার পর শচীনও বেশ খোশ মেজাজে জবাব দিয়েছেন, ধন্য়বাদ বিঙ্গা (ব্রেট লির ডাকনাম)। অবশেষে তুমি আমাকে এখানে ইয়র্কারে আউট করলে। ওই ফ্য়ানকে আমার অশেষ ধন্য়বাদ আমায় সমর্থন করার জন্য়।

উল্লেখ্য়, ব্রেট লি সর্বকালের সেরা পেস বোলারদের মধ্য়ে একজন। ক্রিকেট কেরিয়ারে ভারতের বিরুদ্ধে তিনি বেশ সফল ছিলেন। ভারতের বিরুদ্ধে টেস্টের আসরে অস্ট্রেলিয়ার ব্য়াগি গ্রিন ক্য়াপ তাঁর মাথায় উঠেছিল। ১২টি টেস্ট ম্য়াচে ভারতের বিরুদ্ধে ৫৩টি উইকেট নিয়েছিলেন লি। একদিনের ক্রিকেটে তাঁর সংগ্রহ ৫৫টি উইকেট ৩২টি ম্য়াচে।

অন্য়দিকে, শচীন তাঁর ক্রিকেট কেরিয়ারে যে দলের বিরুদ্ধে সবচেয়ে বেশি রান করেছেন, তার নাম অস্ট্রেলিয়া। ৩৯টি টেস্টে মাস্টার-ব্লাস্টার ৩৬৩০ রান করেছিলেন। গড় ৫৫.০০, শতরান ও অর্ধ-শতরানের সংখ্য়া ১১ ও ১৬টি। ৭১টি একদিনের আন্তর্জাতিক ম্য়াচে শচীন ৩০৭৭ রান করেছিলেন। এর মধ্য়ে নটি শতরানের ইনিংস রয়েছে।

  • SHARE
    A sports enthusiast and a critic. Journalism is all about being unbiased to create positive influence from negative angle.

    আরও পড়ুন

    বিশ্বকাপে ভারতীয় স্পিন বিভাগে কারা খেলবেন মুখ খুলনে নির্বাচক প্রধান

    বিশ্বকাপে ভারতীয় স্পিন বিভাগে কারা খেলবেন মুখ খুলনে নির্বাচক প্রধান
    ২০১৯ বিশ্বকাপের বাকি আর মাত্র দেড় বছর। তার আগে গত ২ বছর ধরেই দুরন্ত ফর্মে রয়েছে ভারতীয়...

    অনুষ্কাকে যাবতীয় কৃতিত্ব দিয়ে অবসর নিয়ে মুখ খুললেন কোহলি

    অনুষ্কাকে যাবতীয় কৃতিত্ব দিয়ে অবসর নিয়ে মুখ খুললেন কোহলি
    তার ব্যাটিং প্রতিভা নিয়ে সন্দেহ নেই কারও। সকলেই একবাক্যে স্বীকার করে নিয়েছেন যে তিনি ব্যাটিংয়ের জিনিয়াস। তামাম...

    প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে সদ্য সমাপ্ত একদিনের সিরিজে যে যে রেকর্ড গড়লেন ভারত অধিনায়ক বিরাট

    তার শ্রেষ্ঠত্ব মেনে নিয়েছে ক্রিকেট বিশ্বের সকলেই। বিশ্বের সর্বকালের সেরা একদিনের ক্রিকেটার হিসেবে তাকে মেনেও নিয়েছেন সকলে।...

    আইপিএলের প্রথম ম্যাচে খেলতে পারবেন না এই দুই অস্ট্রেলীয়

    আর মাত্র দেড় মাস বাকি আইপিএল শুরুর। এই মুহুর্তে স্ট্রাটেজি বানাতে শুরু করে দিয়েছে সমস্ত ফ্রেঞ্চাইজিই। কিন্তু...

    পিএনবি কান্ডে পরোক্ষে নাম জড়ালো বিরাটের, পিএনবির সঙ্গে গাঁটছড়া ছিন্ন করার কথা ভাবছেন তিনি

    পিএনবি কান্ডে পরোক্ষে নাম জড়ালো বিরাটের, পিএনবির সঙ্গে গাঁটছড়া ছিন্ন করার কথা ভাবছেন তিনি
    এই মুহুর্তে পাঞ্জাব ন্যাশানাল ব্যাঙ্কের দুর্নীতিতে গোটা দেশই নড়ে গিয়েছে। ১১ হাজার কোটি টাকার দুর্নীতি এই মুহুর্তে...