দেশের বাহিরে সবচেয়ে খারাপ দল বাংলাদেশ! 1

বাংলাদেশ কি ইতিহাসের সবচেয়ে বাজে দল? এমন আলোচনা কয়েক বছর আগে খুব আলোচনা হয়ে চলছিল। বাংলাদেশ আদৌ হাঁটতে পারছে ক্রিকেটের কুলিন অথচ বড্ড পিচ্ছিল পথে? একের পর এক ব্যর্থতার পর প্রশ্নগুলো অনেক বড় হয়ে উঠেছিল। পরিসংখ্যানের দিক দিয়ে টেস্ট ইতিহাসে বাংলাদেশের অবস্থান এতটাই নিচে যে মাথা উঁচু করে বলার উপায় নেই, বাংলাদেশ একটি টেস্ট খেলুড়ে দেশ! শুনতে ভালো না লাগলেও, টেস্ট পরিসংখ্যানের দিক দিয়ে বাংলাদেশই সবচেয়ে বাজে দল। একশত চারটি টেস্ট খেলা দলটিতে ১০০ উইকেটের ফিগার ছুতে পেরেছেন কেবল দুজন বোলার। । পেস আক্রমণে প্রতি উইকেটের পেছনে বাংলাদেশের খরচ হয়েছে প্রায় ৬০ রানের মত । ভারতের অখ্যাত মিডিয়াম পেসাররা এর চেয়েও কম রানে উইকেট পান। পেসারদের মধ্যে সবচেয়ে সফল বলা হচ্ছে মাশরাফি বিন মুর্তজাকে। কিন্তু ডানহাতি পেসার ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই লড়ছেন চোটের সঙ্গে। দ্বিতীয় সেরা শাহাদাতের গড় ৫১.৯০ বলে দিচ্ছে পেস আক্রমণে কতটা শক্তিশালী বাংলাদেশ! বাংলাদেশের মূল শক্তি ধরা হয় স্পিন বোলিংয়ে। স্পিনাররা যে খুব সস্তায় প্রতিপক্ষের উইকেট তুলে নেন, তা নয়। প্রতি উইকেটের পেছনে স্পিনারদের খরচ প্রায় ৪৫ রান। উইকেটপ্রতি রান খরচের হিসাবে সবচেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশই। ঘরের মাটিতে ইদানিং চিত্র কিছুটা বদলালেও দেশের বাইরে বাংলাদেশের চেয়ে বাজে দল যে আর নেই! টেস্টে প্রতিপক্ষের মাঠে ৪৯ ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। এসব ম্যাচে ৪৬০ উইকেট পেয়েছে বাংলাদেশের বোলাররা। ম্যাচপ্রতি ১০- এরও কম। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ, এ উইকেটগুলো বাংলাদেশ পেয়েছে ৫৩.০৫ গড়ে। আর শুধু বোলারদের কথা মাথায় আনলে গড়টা বেড়ে ৫৫.০৮তে দাড়ায়। বোলিং গড়ে এমন করুণ দশা আর কোনো দলের নেই। বাংলাদেশের চেয়ে পয়েন্ট তালিকায় নিচে অবস্থান করা জিম্বাবুয়েও প্রতিপক্ষের মাঠে ৫১১ উইকেট পেয়েছে,সেটাও ৪৬ ম্যাচে ও ৪২.২৫ গড়ে। স্ট্রাইক রেটেও বাংলাদেশের অবস্থা অনেক খারাপ। প্রতি ৯২.৩ বলে এক উইকেট পান বাংলাদেশের বোলাররা। ব্লুমফন্টেইন টেস্টের প্রথম দিন ব্যাটিংয়ে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে দুইশত রান তোলেন দুই প্রোটিয়া ওপেনার ডিন এলগার এবং এইডেন মার্করাম। টাইগার বোলারদের রীতিমত তুলোধুনো করে দুইজনই দেখা পেয়েছেন ব্যক্তিগত শতকের। শেষ পর্যন্ত এই জুটি ভেঙ্গেছে ৫৩.৪ ওভারে অর্থাৎ ৩২২ বল পর! এই সময়ের মাঝে খুব একটা উইকেটের আশা জাগিয়ে তুলতে পারেননি বোলাররা। এটাই বাংলাদশের জন্য নিয়মিত চিত্র। যেখানে অন্যান্য দেশ গুলোকে উইকেট পেতে ৮০ বল পর্যন্তও অপেক্ষা করতে হয় না।

দেখে নিন টেস্টে প্রতিপক্ষের মাঠে বিভিন্ন দলের

পারফরম্যান্স :

দল ম্যাচ উইকেট

বাংলাদেশ ৪৯ ৪৬০

জিম্বাবুয়ে ৪৬ ৫১১

শ্রীলঙ্কা ১৩০ ১৬৬২

পাকিস্তান ২৬১ ২৪১২

ভারত ২৫৪ ২৩৪৬

নিউজিল্যান্ড ২১৮ ২০৩০

দ. আফ্রিকা ১৯৫ ১৮৯৪

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২৮৬ ২৭৮৮

অস্ট্রেলিয়া ৩৯৩ ৩৭৮৭

ইংল্যান্ড ৪৮২ ৭২৩৮

Nazmus Sajid

Sports Fanatic!

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *