দিন্দার গতিতে বেলাইন রেল, জয় পেল বাংলা 1

ধরমশালা, ৩০ অক্টোবর: খোদ বোর্ড প্রেসি৮ডেন্ট অনুরাগ ঠাকুরের এলাকাতেই দাদার ছেলেদের দাদাগিরি। ধরমশালায় উত্থান ঘটল বাংলা ক্রিকেটের। প্রতিপক্ষে অবশ্য হিমাচল প্রদেশের বদলে ছিল রেলওয়েজ। রেলের হয়েই অবশ্য বাংলাকে লড়াইয়ের মুখে ফেলে দিয়েছিলেন বঙ্গসন্তান অরিন্দম ঘোষ। তবে তিনি আউট হয়ে যাওয়ার পরও প্রশ্ন ছিল, এই ম্যাচ তেকে ঠিক কতটা পয়েন্ট তুলে নিতে পারবে বাংলা? তিন পয়েন্ট নাকি গোটা ছয় পয়েন্ট? শেষ পর্যন্ত রেলকে বেলাইন করে পুরো ছয় পয়েন্ট নিয়েই ধরমসালা ছাড়ছে বাংলার ক্রিকেট দল। রঞ্জিতে বাংলার পয়েন্ট এখন ১৫। তিন ম্যাচের মধ্যে দুটিতে জয় এবং একটি ড্র। । সব মিলিয়ে গুজরাটের সঙ্গে গ্রুপ টেবিলের মগডালে উঠে গেল মনোজ তেওয়ারির দল।

এ দিনের বাংলার নায়ক অবশ্যই ‘নৈছনপুর এক্সপ্রেস’ অশোক দিন্দা। ভারতীয় টেস্ট দলে ঋদ্ধিমান সাহার জায়গাটা পাকা হয়ে গিয়েছে। কিন্তু দিন্দা? তাঁকে নিয়ে কেউই তেমন ভাবছিলেন না। এবার নির্বাচকদের তাঁকে নিয়ে ভাবতে বাধ্য করলেন বাংলার এই তারকা পেসার। রেলের টার্গেট ছিল ৩১৫ রান। কিন্তু ৯৩.২ ওভার ২৭১ রান তুলে শেষ হয়ে যায় রেলের ব্যাটিং লাইনআপ। দিন্দার ঝোড়ো বোলিংকে সামলাতেই পারলেন না রেলের নামজাদা ব্যাটসম্যানরা। করণ শর্মা ও করণ ঠাকুর শেষ মুহূর্তে রেল দলকে বাঁচানোর চেষ্টা করলেও, দিন্দার আগুনে গতি তাঁদের ট্র্যাকে থাকতে দেয়নি।

এ দিনের এই দুরন্ত জয়ের ফলে শীর্ষ উঠে এল বাংলা দল। দিল্লিতে পরের ম্যাচে গুজরাতের বিরুদ্ধে নামার আগে অনেকটাই আত্মবিশ্বাস অর্জন করে নিল বাংলা। জাতীয় নির্বাচকরা এবার টেস্টের জন্য অশোক দিন্দাকে ভাবতেই পারেন। বিশেষ করে ঘরের মাঠে যেখানে ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে টেস্ট রয়েছে। কারণ রঞ্জি পারফরমেন্সের ওপর বিচার করেই জাতীয় দলের ক্রিকেটার বেছে নেওয়া হয়। সেক্ষেত্রে শেষ দুটি ম্যাচে বাংলার হয়ে দিন্দার দুর্দান্ত বোলিং যেভাবে বাংলাকে সমৃদ্ধ করেছে, সেটা যদি দিল্লিতেও বজায় রাখতে পারনে তাহলে ফের জাতীয় দলের দরজায় কড়া নাড়বেন তিনি।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *