দলীপ ট্রফিতে অংশ নিতে যাওয়ার পথে দুর্ঘটনার কবলে রায়নার গাড়ি, দেখুন তারপর কি হলো 1

সময়টা একেবারেই ভালো যাচ্ছে না ভারতীয় দল থেকে বাদ পড়া ক্রিকেটার সুরেশ রায়নার জন্য়। হাজার চেষ্টা করেও দলে ফিরতে পারছেন না। এদিকে, আবার মেয়ের বাবা হওয়ায়, তাঁর ওপর এখন আরও বেশি করে দায়িত্ব। সব সামলে এখন ফের ক্রিকেটে মন দিয়েছেন। কিন্তু, দুঃসময় যেন কিছুতেই সঙ্গ ছাড়তে চাইছে না। মঙ্গলবার (১২ সেপ্টেম্বর) ভোররাতে কোনওরকমে দুর্ঘটনার হাত থেকে বাঁচলেন এই ভারতীয় ক্রিকেটার। সেই সময় নিজস্ব রেঞ্জ রোভার এসইউভি গাড়িটি চালিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন রায়না। উত্তরপ্রদেশের এটাওয়ার কাছে তাঁর গাড়ির সামনের একটি চাকার টায়ার ফেটে যায়। পুলিশ জানিয়েছে, রায়না তখন ওই অঞ্চলের ফ্রেন্ডস কলোনির সামনে গাড়ি গতির নিয়ন্ত্রেণে রেখে চালিয়ে যাচ্ছিলেন। ফলে টায়ার ফাটার সঙ্গে সঙ্গে গাড়িটিকে নিয়ন্ত্রণে আনতে সমস্য়ায় পড়তে হয়নি। পুলিশের বক্তব্য়, গাড়িটি গতি জোরে থাকলে, রায়নাকে বড়সড় দুর্ঘটনা কবলে পড়তে হতো।

জানা গিয়েছে, গাড়িটি সেই সময় রায়না নিজেই চালাচ্ছিলেন। গাজিয়াবাদ থেকে গাড়ি চালিয়ে কানপুর যাচ্ছিলেন উত্তরপ্রদেশের এই স্টার অলরাউন্ডার। দলীপ ট্রফিতে এবার তাঁকে দলে রেখেছেন জাতীয় নির্বাচকরা। এই টুর্নামেন্টে ইন্ডিয়া ব্লু টিমকে তিনি নেতৃত্ব দেবেন ইন্ডিয়া রেড ও ইন্ডিয়া গ্রিন টিমের বিরুদ্ধে। টুর্নামেন্টে অংশ নিতেই রায়না ওই সময় গাড়ি চালিয়ে কানপুরের উদ্দেশ্য়ে যাচ্ছিলেন। মাঝরাস্তায় টায়ার ফেটে যাওয়ার পর পুলিশকে খবর দেন। কারণ, টায়ার বদলানোর জন্য় তাঁর কাছে অতিরিক্ত টায়ার ছিল না। পুলিশ আসা পর্যন্ত রাস্তাতেই অপেক্ষা করতে হয় তাঁকে। পুলিশ আসার পর তাঁকে অন্য় একটি গাড়িতে করে কানপুর পাঠানোর বন্দোবস্ত করে। রায়না কানপুর পৌঁছে একটি ট্য়ুইটও করেছেন দলীপ ট্রফিতে খেলতে নামা নিয়ে। তার আগের দিন রায়না একটি ট্য়ুইট করেছিলেন, কঠিন সময় সবসময় সঙ্গে চলে না। তবে, কঠিন দল সবসময় দাঁড়িয়ে থাকে যে কোনও পরিস্থিতিতে।

উল্লেখ্য়, ভারতের হয়ে রায়না শেষ একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে মাঠে নেমেছেন ২০১৫ সালে মুম্বইতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে। নিউজিল্য়ান্ডের যখন ভারত সফরে এসেছিল, সেইসময় একদিনের সিরিজে প্রথম তিনটি ম্য়াচে ডাক পেলেও, ভাইরাল ফিভারের কারণে টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে যান।  এরপর আর জাতীয় দলে ডাক পাননি। যদিও, ইংল্য়ান্ডের বিরুদ্ধে টি-২০ সিরিজে দলে ডাক পেয়েছিলেন। ওই সিরিজে তিনটি ম্য়াচে ১০৪ রান করেন রায়না। ভারতীয় ব্য়াটসম্য়ানদের মধ্য়ে সিরিজে তিনিই সবচেয়ে বেশি রান সংগ্রহ করেন। কোহলি-শাস্ত্রীর ভারতীয় দলে ফেরার জন্য় এখন দলীপ ট্রফি শেষ ভরসা উত্তরপ্রদেশের এই ক্রিকেটারের।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *