ক্রিকেটার এবং সাপোর্ট স্টাফদের পুরস্কার মুল্য কম হওয়ায় বিসিসিআইয়ের তাকে দেওয়া আর্থিক পুরস্কার ফেরালেন রাহুল দ্রাবিড়

তিনি পরিচিত ভারতীয় ক্রিকেটের দ্য ওয়াল নামে। চির শান্ত নির্বিবাদী ভদ্রোলোক হিসেবেই তাকে চেনে গোটা ক্রিকেট বিশ্ব। তিনি রাহুল শরদ দ্রাবিড়। অনুর্ধ্ব ১৯ ভারতীয় দলের কোচ। আবারও তিনি পরিচয় দিলেন নিজের সুপার কুল মনোভাবের। ফিরিয়ে দিলে বিসিসিআইয়ের পুরস্কার মূল্য। সম্প্রতি অনুর্ধ্ব ১৯ দলে নিউজিল্যাল্ডে অনুষ্ঠিত যুব বিশ্বকাপে দ্রাবিড়ের কোচিংয়েই চতুর্থবারের জন্য চ্যাম্পিয়ন হয় ভারত। এরপরই ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড প্লেয়ার এবং সাপোর্ট স্টাফদের জন্য ২০ লক্ষ টাকা এবং রাহুলের জন্য ৫০ লক্ষ টাকা পুরস্কার মূল্য ঘোষণা করে। প্লেয়ার এবং সাপোর্ট স্টাফদের পুরস্কার মূল্য তার তুলনায় কম কেন? এই প্রশ্ন তুলে বিসিসিআইয়ের দেওয়া সেই অর্থ নিতে অস্বীকার করলেন রাহুল দ্রাবিড়। যদিও ভারতীয় ক্রিকেট জগতের অনেকেই প্রশ্ন তুলেছিলেন যে গুরু দ্রাবিড়ের পুরস্কার এত কম হওয়ায় দ্রাবিড়কেই অস্মমান করা হয়েছে। কিন্তু দ্রাবিড় নিজে তা মনে করেন না।

সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত একটি খবর অনুযায়ী দ্রাবিড় বোর্ডের দেওয়া এই টাকায় খুব একটা খুশি নন, কিন্তু তার কারণ এই নয় যে বোর্ড তাকে কম অর্থ দিচ্ছে, বরং দ্রাবিড় অসোন্তুষ্ট কারণ দলের জয়ের প্রধান কারিগরদের পুরস্কার মূল্য তার তুলনায় অনেকটাই কম বলে। ওই সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত রিপোর্টে বলা হয়েছে যে দ্রাবিড় প্রকাশ্যেই সকলের সামনে বলছেন যে পুরো ভারতীয় দলের সাপোর্ট স্টাফরা একটা ইউনিট হিসেবে কাজ করেছে। তার দাবী যে দল সাফল্য পাওয়ার পেছনে এই সাপোর্ট স্টাফরাই মুখ্য ভূমিকা নিয়েছে। এমনকী দ্রাবিড় ঘনিষ্ঠ মহলে ইঙ্গিত দিয়েছেন যে তিনি যে টাকা পাচ্ছেন তা অন্যান্যদের তুলনায় অনেকটাই বেশি।

ফাইনালে পৃথ্বী শ’রা অস্ট্রেলিয়াকে ধ্বংস করে দেওয়ার পর অভিভূত দ্রাবিড় বলেছিলেন, “ হেযেতু আমি এই দলের কোচ তাই আমাকে নিয়ে এত আলোচনা হচ্ছে। সকলেই আমাকে একাই ক্রেডিট দিচ্ছেন। কিন্তু আমাদের দলের সাফল্যের মূলে আমাদের অসাধারণ সাপোর্ট স্টাফ। এত দিন ধরে ওরা যে কাজটা করে এসেছে তা এক কথায় অসাধারণ এবং অবিশ্বাস্য”। প্রসঙ্গত ভারতীয় অনুর্ধ্ব ১৯ দলের কোচিং করানোর জন্য বিসিসিআইয়ের সঙ্গে তিন বছরের জন্য চুক্তি হয়েছে রাহুলের। আপাতত তার বার্ষিক স্যালারি ৩ কোটি টাকা। তবে অনেকেই মনে করছেন দ্রাবিড়ের এই পুরস্কার মূল্য ফিরিয়ে দেওয়ার পিছনে রয়েছে আসলে দ্রাবিড়ের ব্যক্তিগত মানবিক দিক। যা তাকে অন্য সকলের তুলনায় আলাদা করেছে।

  • SHARE
    সাংবাদিক, আদ্যন্ত ক্রীড়াপ্রেমী। দ্বিতীয় ডিভিসনে দীর্ঘদিন ক্রিকেট খেলার দরুণ ক্রিকেটের অন্ধ ভক্ত। ব্রায়ান লারা সচিনের অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের বাইরে ব্রাজিলের সমর্থক এবং নেইমার ও মেসির অন্ধ ভক্ত।

    আরও পড়ুন

    বাবা হলেন এই ভারতীয় ক্রিকেটার

    বাবা হলেন ভারতীয় ক্রিকেটের মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান চেতেশ্বর পুজারা। এক কন্যা সন্তানের পিতা হলেন তিনি। আর সে...

    ত্রিদেশীয় সিরিজের জন্য ভারতীয় দল ঘোষণা!

    শ্রীলঙ্কায় অনুষ্ঠিত ট্রাই সিরিজ নিদাহাস ট্রফি জন্য ভারতীয় দল ঘোষণা করল বিসিসিআই। কেমন হল দল একবার দেখে...

    ধোনির দিন শেষ? কি বললেন সৌরভ

    ধোনির দিন শেষ? কি বললেন সৌরভ
    সেই কবেই নেভিল কার্ডাস বলে গেছেন ওয়ান ডে ক্রিকেটে পাজামা ক্রিকেট বলে। ওয়ান ডে ক্রিকেটের জামানায় টেস্ট...

    জয়ের সমস্ত কৃতিত্বই ওর : রোহিত শর্মা

    দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টি২০ সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে হারার পর ভারতীয় দল আরও দারুণভাবে ফিরে এসে সেঞ্চুরিয়ানের সুপার...

    বিরাটের কাছেই স্পিন খেলা শিখেছি: স্টিভ স্মিথ

    বিরাটের কাছেই স্পিন খেলা শিখেছি: স্টিভ স্মিথ
    বিশ্ব ক্রিকেটে এই মুহুর্তে তাদের মধ্যে চলছে শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই। তা সত্ত্বেও এই দুজনের মধ্যে একে অপরকে সম্মান...