খেলোয়াড়ি দক্ষতা নয় পাকিস্থানের বিরুদ্ধে সিরিজ জয়ের পেছনে ছিল ডাইনি বিদ্যা। এমনই মন্তব্য করে বিতর্কে পড়েছেন শ্রীলঙ্কার টেস্ট অধিনায়ক দীনেশ চন্ডিমল। সম্প্রতি পাকিস্থান সফরে গিয়ে ২-০ ফলাফলে টেস্ট সিরিজ জেতে শ্রীলঙ্কা। এরপরই মঙ্গলবার দেশে ফিরে এক সাংবাদিক সম্মেলনে এমন মন্তব্য করেন শ্রীলঙ্কা অধিনায়ক। তারপরই সোসাল মিডিয়ায় ট্রোল হন দীনেশ। দেশীয় সাংবাদিক সম্মেলনে ঠিক কী মন্তব্য করেন শ্রীলঙ্কার টেস্ট অধিনায়ক? চন্ডীমল সাংবাদিকদের বলেন, সংযুক্ত আরব আমীরশাহীতে পাকিস্থানের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজ হওয়ার আগে তিনি ডাইনি বিদ্যায় পারদর্শী একজন ‘মেয়নি’র কাছে আশির্বাদ নিতে গেছিলেন। যিনি তার এক বন্ধুর মা। ডাইনি বিদ্যায় পারদর্শী মহিলাদের শ্রীলঙ্কার ভাষায় বলা হয় ‘মেয়নি’। চন্ডীমলের জানান, “ সাফল্য পেতে আমি যে কোনো মানুষের কাছে আশির্বাদ নিতে আমি রাজি আছি। সে তিনি পাদ্রী বা মেয়নি যাই হোন না কেন’। শুধু এটুকু বলেই থামেন নি তিনি। তিনি আরও জানান, ‘ কেউ আমাকে জোর করে ওই মেয়নির কাছে আশির্বাদ নিতে নিয়ে যান নি। আমি স্ব-ইচ্ছায় তাঁর কাছে যাই। প্রতিভা যে কারোরই থাকতে পারে। কিন্তু এই মানুষগুলোর আশির্বাদ ছাড়া কোনো প্রতিভাই কাজে আসে না। কেউ এক পা এগোতেও পারবেন না’। তবে পাকিস্থানের বিরুদ্ধে ২-০ টেস্ট সিরিজ জিতলেও একদিনের সিরিজে ৫-০ ও টি২০ তে ৩-০ ফলাফলে হোয়াইট ওয়াশ হয়েছে শ্রীলঙ্কা।
চন্ডীমলের এমন মন্তব্যের পরেই ঝড় ওঠে সোসাল মিডিয়ায়। এক শ্রীলঙ্কার ক্রিকেট ফ্যান দাবী করেন শ্রীলঙ্কান ক্রীড়ামন্ত্রীর নির্দেশেই মেয়নির কাছে আশির্বাদ নিতে গেছিলেন ক্রিকেটাররা। সপ্তাহখানেক আগে অবশ্য এ ব্যাপারে প্রশ্ন উঠলে ক্রীড়ামন্ত্রী দয়াসিরি জয়শেখরে তা ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দেন। চন্ডীমলের বক্তব্যের পরেই এক ব্যক্তি দাবী করেন তিনিই ক্রীড়ামন্ত্রীর অনুরোধে শ্রীলঙ্কাকে জেতাতে আসরে নামেন। ওই ব্যক্তির বক্তব্য খবরের কাগজে প্রকাশিত হওয়ার পর জয়শেখরে তার বিরুদ্ধে মামলা করার হুমকি দেন। মনে করা হচ্ছে ওই ব্যক্তিই চন্ডীমলদের ‘ডাইনি বিদ্যার ওস্তাদ’।
যদিও ডাইনিদের আশির্বাদ নেওয়ার ঘটনা শ্রীলঙ্কার নতুন নয়। ২০১৫র রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে শ্রীলঙ্কার প্রাক্তণ রাষ্ট্রপতি মাহিন্দা রাজাপক্ষও নিজের ব্যক্তিগত জ্যোতিষির পরামর্শ মেনেই নির্বাচনি প্রচারে এগিয়েছিলেন। যদিও সেই নির্বাচনে হেরে যান তিনি। শ্রীলঙ্কান টেস্ট অধিনায়কের এমন মন্তব্যের পর ইন্টারনেট জগতে শুরু হয়েছে প্রবল রসিকতা। কেউকেউ আবার চন্ডীমলের বন্ধুর মা সেই মেয়নিকে সরাসরি প্রতারকও বলেছেন। তবে চন্ডীমলের বক্তব্যে শুধু শ্রীলঙ্কাতেই নয় প্রবল চাঞ্চল্য সৃষ্টি করেছে গোটা ক্রিকেট দুনিয়াতেই।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *